করোনাতেও নতুন টাকায় হাসি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:২৭ পিএম, ১৯ জুলাই ২০২১ সোমবার

করোনাতেও নতুন টাকায় হাসি

করোনার মধ্যেও ঈদ উল আজহাতে নতুন টাকার কদর ছিল নারায়ণগঞ্জে। বেশি দামে নতুন টাকা নিতে ভীড় করছে ক্রেতারা। অতিরিক্ত মূল্য পরিশোধ করলেও নতুন টাকা কিনতে পেরে খুশি সাধারণ ক্রেতারা।

১৯ জুলাই দুপুরে শহরের সিরাজউদ্দৌলা সড়কের ১নং রেল গেইট এলাকায় দেখা গেছে এ দৃশ্য। এসময় দেখা যায়, ২০০, ১০০, ৫০, ২০, ১০ টাকার নতুন নোট বিক্রি করা হচ্ছে। এর মধ্যে চাহিদা সব থেকে বেশি ২০০ ও ১০ টাকা নোটের। এজন্য ২০০ টাকার একটি নোট ৫ থেকে ১০ টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। আর ১০ টাকার ১০০ পিস নোট ১০৬০ টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া চাহিদার তৃতীয় ধাপে রয়েছে ২০ টাকার নোট। ২০ টাকার নোট ১০০ পিস বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা বেশি দামে আর ৫০ ও ১০০ টাকার নোট ২০ থেকে ৩০ টাকা বেশিতে।

নতুন টাকা কেনা বোরহান উদ্দিন বলেন, ‘ঈদে ছেলে মেয়ে, ভাতিজা সহ আশে পাশে শিশুদের দেওয়ার জন্য নতুন নোট নিয়েছি। কারণ নতুন টাকা পেলে সবাই খুশি হয়। ১০০ পিস নোট ৬০ টাকা বেশি নিলেও নতুন টাকা পেয়ে খুশি লাগছে।’

পাবেল মিয়া বলেন, ‘ছোট ভাই ভাতিজা আছে তাই ১০ টাকার নোট নিয়েছি। তাছাড়া নিজের জন্য ২০০ টাকার নোট নিয়েছি দুটা। ১০০ পিস ১০ টাকার নোট নিয়েছে ১০৬০ টাকা আর ২০০ টাকার দুটি নোটে নিয়ে ২০ টাকা বেশি।’

তিনি বলেন, ‘২০০ টাকার নতুন নোট আগে দেখি নাই তাই নিয়েছি। নিজের কাছে রেখে দিবো। আর বাড়িতে গিয়ে সবাইকে দেখানো যে নতুন ২০০ টাকার নোট।’

নতুন নোট বিক্রেতা কালাম মিয়া বলেন, ‘গত ঈদে দোকানই খুলতে পারিনি। এবার বেচাকেনা ভালো আছে। চাহিদা বেশি ২ টাকা ও ৫ টাকা নোটের। কিন্তু ২ ও ৫ টাকার নতুন নোট মার্কেটে নেই। তাই এখন চাপ পড়েছে ১০ টাকা ও ২০ টাকার নোটে। প্রতি ১০০ পিসে ৫০ থেকে ৬০ টাকা বেশি রাখতে হচ্ছে। কারণ এগুলো আমরা ঢাকা থেকেই কিনে আনতে হয়। সামান্য কিছু লাভে আমরা এসব টাকা বিক্রি করি।

তিনি বলেন, ‘২০০ টাকার নতুন নোটের চাহিদা থাকলেও মানুষ কম নিচ্ছে। কারণ ১০০ পিসের দাম হয় ২০ হাজার টাকা। এতো টাকা দিয়ে কেউ নিতে আগ্রহী না। সবাই ২ থেকে ১০ পিস নিচ্ছে। এজন্য প্রতি পিসে ৫ টাকা বেশি রাখা হচ্ছে। আর এক সঙ্গে ১০০ পিস নিলে ২০০ টাকা বেশি রাখা হয়।’


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও