দৃষ্টিনন্দন নৌকার আদলে হবে নারায়ণগঞ্জ রেল স্টেশন

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৯ পিএম, ২৩ নভেম্বর ২০২০ সোমবার

দৃষ্টিনন্দন নৌকার আদলে হবে নারায়ণগঞ্জ রেল স্টেশন

প্রাচ্যের ডান্ডিখ্যাত ঐতিহ্যবাহী নারায়ণগঞ্জ শহরে গড়ে উঠেছে নদীকে কেন্দ্র করে। নদীর কারণেই ঐতিহ্যবাহী নিতাইগঞ্জ বাজারও হয়ে উঠেছে দেশের সব চেয়ে বড় ও প্রাচীন পাইকারী বাজার। ব্যবসায়ীক কারণে অসংখ্য নৌকা নারায়ণগঞ্জে আসতো। নদী কেন্দ্রীক নারায়ণগঞ্জের ঐতিহ্য ধরে রাখতে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় স্টেশনটিকে গড়ে তোলা হচ্ছে অত্যাধুনিক দৃষ্টিনন্দন নৌকার আদলে।

২২ নভেম্বর রোববার বিকেলে ৩১ বছরের কর্মজীবন শেষে অবসরে যাওয়ার পূর্বে নিউজ নারায়ণগঞ্জকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নারাণয়গঞ্জ কেন্দ্রীয় রেল স্টেশনের স্টেশন মাস্টার গোলাম মোস্তাফা নিউজ নারায়ণগঞ্জকে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, ‘নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য একটি সুখবর হলো বর্তমান সরকারের রেলের যে উন্নয়ন প্রকল্প অতি দ্রুততার সাথে ডাবল রেল লাইনের কাজ হচ্ছে। নারায়ণগঞ্জের মধ্যে অত্যাধুনিক একং দৃষ্টিনন্দন একটি স্টেশন হচ্ছে। নারায়ণগঞ্জ যেহেতু নদী কেন্দ্রীক একটি শহর। তাই নারায়ণগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনটিকেও ঐতিহ্যবাহী নৌকার আদলে নারায়ণগঞ্জ স্টেশনটি করা হচ্ছে। স্টেশনটি তিনতালা ভবন বিশিষ্ট হবে এবং নৌকার আদলে থাকবে। যা নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য সুখবর। এটি খুব দ্রুতই সম্পন্ন হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এছাড়া সবকিছুই হবে ডিজিটাল। ট্রেন পরিচালনা হবে ডিজিটাল, অনলাইন টিকিট সিস্টেম সহ স ব কিছুতেই আধুনিকতার ছোঁয়া লাগবে।’

উল্লেখ্য, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ডাবল রেললাইন প্রকল্পের জন্য ২০১৫ সালে এই প্রকল্পের একনেকের অনুমোদন দেয় জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি। এরপর প্রকল্প বাস্তবায়নে ২০১৭ সালের ২০ জুন চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান পাওয়ার কনস্ট্রাকশন করপোরেশন লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তি করে রেলওয়ে। প্রকল্পের অংশ হিসেবে গত বছরের ১৭ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ শহরের দুই নং রেলগেইট এলাকায় রেলওয়ের জমি অবৈধ ভাবে দখল করে গড়ে উঠা টিনসেড আধপাকা থান কাপড়ের মার্কেট মার্কেট, রেডিমেট জামাকাপড়ের দোকান ও বসত ঘরসহ প্রায় আড়াই হাজার ছোট বড় স্থাপনা গুড়িয়ে দেয়া হয়েছিল।

প্রকল্পটির আওতায় ১২ দশমিক ১০ কিলোমিটার মেইন লাইন ও পাঁচ দশমিক ১০ কিলোমিটার লুপ লাইন নির্মাণ করা হবে। রেলপথটি নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩’৭৮ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। রেললাইন ছাড়াও এ রেলপথে ১১টি সেতু ও কালভার্ট, দুটি ওয়াশপিট, একটি অফিস কাম স্টেশন বিল্ডিং, ৬টি স্টেশন ভবন ও প্লাটফর্ম শেড, চারটি ফুট ওভারব্রিজ, ১৮ হাজার ৯৫০ মিটার বাউন্ডারি ওয়াল, ১২টি লেভেল ক্রসিং গেট, তিন হাজার ৩শ’ মিটার ফ্যান্সিং, ৯ হাজার ৫০৭ বর্গমিটার সংযোগ সড়ক এবং তিন হাজার মিটার ড্রেন নির্মাণ করা হবে।


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও