জনতার ঢলে করোনার ভয় পরাস্ত

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:৪৯ পিএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ শনিবার

জনতার ঢলে করোনার ভয় পরাস্ত

করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ায় সংক্রমণ রোধে বিধি নিষেধ শিথিল করেছে সরকার। দেশের বিভিন্ন জেলার মতো এক সময়ের করোনার হটস্পট নারায়ণগঞ্জেও অবাধে ঘুরে বেড়াচ্ছে সাধারণ মানুষ। তবে সবাইকে বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহার সহ বেশ কিছু স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু নারায়ণগঞ্জ শহরের জনপ্রিয় শেখ রাসেল নগর পার্কেই সেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে দেখা যায়নি। যত্রতত্র হাচি কাঁশি দেওয়া, সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখা সহ নূন্যতম মাস্কও ব্যবহার করছে না কেউ। এতে করে করোনা সংক্রমণ আবারও বাড়তে পারে আশঙ্কা জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সহ সচেতন নগরবাসীর।

১৭ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় বিকেল থেকেই শহরের দেওভোগ এলাকায় শেখ রাসেল নগর পার্কে ভ্রমণ পিপাসু মানুষের ভীড় বাড়তে থাকে। সন্ধ্যায় লেকের পারে ভ্রমণ পিপাসুদের উপস্থিতি এতো বেশি হয় যে বসার জায়গা তো দূরের কথা দাঁড়িয়ে গল্প করার মতোও জায়গা নেই। একে অন্যের শরীরে ধাক্কা দিয়ে হেঁটে চলেছে। এসময় অনেকের মুখেই মাস্ক ব্যবহার করতে দেখা যায়নি। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নূন্যতম চিত্রও দেখা যায়নি। যত্রতত্র হাচি কাশি ও থুথু ফেলছেন অনেকেই। হাত ধোয়ার কোন ব্যবস্থাও আশে পাশে নেই তার মধ্যেই অনেকেই খাচ্ছেন খোলা খাবার।

লেকের পারে ঘুরতে আসা ফারুক মিয়া বলেন, ‘শহরের ভেতরে একটু ভ্রমণের জন্য শেখ রাসেল পার্ক অন্যতম। আর সেই জন্যই দিন দিন এর জনপ্রিয়তা বেড়ে চলেছে। সেই অনুযায়ী মানুষও বাড়ছে।’

করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি রয়েছে? তিনি বলেন, ‘দ্বিতীয় ডোজ টিকাও নিয়েছি। তাই করোনার ভয় নেই। তারপরও নিয়মিত মাস্ক ব্যবহার করছি। আজকে এখানে এসে গরমের জন্য মাস্কটা খুলে রেখেছিলাম। তারপরও যতটুকু পারছি মানুষের কাছ থেকে দূরত্ব বজায় রেখেই ঘুরছি।’

মাস্ক নেই ঘুরে বেড়াচ্ছেন মাসুদ। তিনি বলেন, ‘এখন করোনা নেই। সবাই মাস্ক ছাড়াই ঘুরে বেড়াচ্ছে।’

পার্ক এলাকার বাসিন্দা মহসিন মিয়া বলেন, ‘করোনা যার হয়েছে সেই একমাত্র বলতে পারবে এর কি কষ্ট। তাছাড়া দূর থেকে কেউ সেটা বুঝতে পারবে না। এভাবে মানুষ অসেচতন হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে তাতে তো যে কেউ আক্রান্ত হতে পারে। আমাদের দেশ থেকে তো করোনা একে বারে চলে যায়নি। জীবনের প্রয়োজনে সরকার সব কিছু শিথিল করে দিয়েছে। তাই বলে আমরা যদি অসেচতন হয়ে এভাবে ঘুরে বেড়াই তাতে করোনা সংক্রমণ আবারও যেকোন সময় বাড়তে পারে। এখনও তো অধিকাংশ মানুষ টিকা নেয়নি।’

তিনি বলেন, ‘যেহেতু সব কিছু শিথিল করে দিয়েছে সেহেতু মানুষকে সচেতন করতে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাওয়া প্রয়োজন। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন। অন্যথায় সরকারের করোনা মোকাবেলায় সফলতা মুখ থুবড়ে পরবে।’

নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. মুহাম্মদ ইমতিয়াজ বলেন, ‘করোনা সংক্রমণ এখন অনেকটাই কমে এসেছে। পাশাপাশি করোনা সুরক্ষায় ভ্যাকসিনও দেওয়া হচ্ছে। যার জন্য পরিস্থিতি শিথিল করেছে সরকার। তবে এ মুহূর্তে টিকা নিলেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। অন্তত সার্বক্ষনিক মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। অন্যথায় যেকোন সময় এ সংক্রমণ বাড়তে পারে। আমাদের সচেতন হওয়ার বিকল্প কোন কিছু নেই।’


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও