মেয়াদোত্তীর্ণ এক্সটিংগুইসার, ঝুঁকিতে নারায়ণগঞ্জ সদর হাসপাতাল

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:১৩ পিএম, ২৭ মে ২০২১ বৃহস্পতিবার

মেয়াদোত্তীর্ণ এক্সটিংগুইসার, ঝুঁকিতে নারায়ণগঞ্জ সদর হাসপাতাল

নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে অগ্নি দুর্ঘটনা প্রতিরোধে রাখা ফায়ার এক্সটিংগুইসার বা অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের মেয়াদ শেষ হয়েছে প্রায় ৬ মাস আগে। কিন্তু এখনও সেগুলো পরিবর্তন করা হয়নি। এছাড়া অগ্নি নির্বাপনের জন্য বালু ভর্তি করে রাখার বালতিগুলোও আবর্জনায় ভরা। এমন পরিস্থিতিতে হাঠাৎ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আগুন নেভাতে পারবে না। ছোট আগুন থেকেই ঘটে যেতে পারে বড় দুর্ঘটনা।

২৫ মে মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিনে হাসপাতাল পরিদর্শন করে দেখা যায় এমন দৃশ্য। হাসপাতালের বহিঃর্বিভাগ, জরুরী বিভাগসহ প্রতিটি ওয়ার্ডের দেওয়ালে এক্সটিংগুইসার বা অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র সাজিয়ে রাখা হয়েছে। যেগুলোতে ডিউ ডেট দেওয়া আছে ২০১৯ সালের ২৭ অক্টোবর। এগুলোর এক্সপায়ার ডেট দেওয়া আছে ২০২০ সালের ২৬ অক্টোবর। অর্থাৎ অগ্নি নির্বাপক যন্ত্রগুলোর মেয়াদ ছিল ১ বছর। সেই মেয়াদ শেষ হয়েছে প্রায় ৬ বছর। কিন্তু এখনো সেগুলো পরিবর্তন করা হয়নি।

এছাড়া হাসপাতালের জরুরী বিভাগ ও বহিঃর্বিভাগের প্রবেশ পথে সাজিয়ে রাখা হয়েছে বালতি। যেগুলোতে বালু ভর্তি করে রাখার কথা থাকলেও সেগুলো আবর্জনায় পরিপূর্ণ। এমন পরিস্থিতিতে ছোট অগ্নিকান্ডের ঘটনাও সামাল দিতে পারবে না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এমন পরিস্থিতিতে আতঙ্ক বিরাজ করছে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও স্বজনদের মধ্যে।

এ প্রসঙ্গে মো. শফিউল্লাহ নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘নাকের সমস্যা নিয়ে চিকিৎসার জন্য এসেছিলাম। কিন্তু এসব দেখে আতঙ্কে থাকতে হয়। যদি ছোট দুর্ঘটনাও ঘটে তাহলেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে পারবে না। বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের এমন উদাসীনতা গ্রহণযোগ্য না।’

এদিকে হাসপাতালের অগ্নি নির্বাপক যন্ত্রের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখা যাচ্ছে না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। উল্টো এগুলো পরিবর্তন করা কার দায়িত্ব সে বিষয়েই ধোঁয়াশার কথা জানালেন সিভিল সার্জন। পরিবর্তন করা হবে বলে জানালেন হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আসাদুজ্জামান নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘নতুন আরো কয়েকটি পেয়েছি এগুলো রিপ্লেস করা হবে। এ বিষয়ে আমরা অলরেডি চিঠি দিয়েছি। আমাদের তো ফান্ড থাকে না। আমরা বলেছি এগুলো রিপ্লেস করার জন্য।’

নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ বলেন, ‘বিষয়টি আমি দেখবো। এটা কি ফায়ার সার্ভিস করে দিবে না কি আমাদের নিজেদের করতে হবে সেটা একটু দেখতে হবে। আমার ধারণা নাই। আপনি বিষয়টি সম্পর্কে বলেছেন আমি আগামী বৃহস্পতিবার খোঁজ নিব।’

এ প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ সহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফিন বলেন, ‘অগ্নি নির্বাপক যন্ত্রগুলোর মেয়াদ শেষ হয়েছে কি না আমার জানা নেই। আগুলো পরিবর্তন করার দায়িত্বও আমাদের না। আমি লোক পাঠিয়ে দেখব। এগুলো পরিবর্তন করার জন্য চিঠি দিব।’


বিভাগ : স্বাস্থ্য


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও