আইভী চায়ের দাওয়াত দিল না

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:৫৭ পিএম, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ সোমবার

আইভী চায়ের দাওয়াত দিল না

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর উপর কিছুটা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা। আগামী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ মেয়র পদে যোগ্য প্রার্থীকেই মনোনয়ন দিবেন আশা করেন এ রাজনীতিক।

আওয়ামী লীগে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ২৪ বছরের পথচলার দিন ১৩ সেপ্টেম্বর রোববার রাতে নিউজ নারায়ণগঞ্জের একটি লাইভ টক শোতে কথা প্রসঙ্গে এ আক্ষেপের কথা তুলে ধরেন খোকন সাহা। ওই সময়ে তাঁর সঙ্গে ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদা বেগম মালা ও দপ্তর সম্পাদক বিদ্যুৎ কুমার সাহা।

খোকন সাহা মেয়র আইভী সম্পর্কে বলেন, ২০১৬ সালের নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নেত্রী (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) মেয়র আইভীকে মনোনয়ন দিয়েছেন। আমরা সবাই তার পক্ষে কাজ করেছি। কিন্তু সবচেয়ে দুঃখের যে বিষয়টা, আমার এই রাজনৈতিক জীবনে যে বিষয়টা সবচেয়ে লাগছে সেটা আমি বলতে চাই, যে যতটুকু কাজ করেছে তার ততটুকু সম্মান পাওয়ার যোগ্য। বিদ্যুৎ কুমার সাহা তার টিম নিয়ে কাজ করেছে মাহমুদা মালা কাজ করেছে। আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলালীগ সহ সবাই কাজ করেছে। শামীম ওসমানও কাজ করছে, ভালো কাজ করছে। আইভীকে পাশ করানোর জন্য যা যা দরকার তা তা করেছেন। দলের সিদ্ধান্তে আমরা মেয়রের জন্য কাজ করেছি। পুরান কোর্ট আমার চেম্বারের পাশে গাছতলায় বসে যা যা করার আমি সেখানে বসেই কাজ করেছি। আমার একটা আফসোস কি জানেন। আমরা যারা খাটলাম একটা ধন্যবাদও পাই নাই মেয়রের কাজ থেকে। এই বিষয়টা আমার মধ্যে খুব লাগছে। কিংবা উনি কোন দিন বলে নাই কিংবা একটা চায়ের দাওয়াতও দেন নাই। যে দল খাটছে একটু চা খেয়ে যান। এটা কিন্তু একটা আক্ষেপ থাকে, এটাও আমার একটা আক্ষেপ। আজকে রাজনীতির শেষ বয়সে এটাও আমার একটা আক্ষেপ। সে ডাকে নাই কি কারণে ডাকে নাই এটা তার ব্যাপার। কিন্তু নূন্যতম সৌজন্যবোধ আমি অন্তত আশা করেছিলাম। তবে আমার রাজনীতিক জীবনে নেত্রীর সিদ্ধান্তের বাইরে একটি পদক্ষেপ দেই নাই। নেত্রী যখন যা সিদ্ধান্ত দিয়েছে তখন তা করেছি।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মেয়র আইভী ও সিটি করপোরেশনের কর্মকান্ডে আমার সন্তুষ্টতে কিছু যায় আসেনা। জনগণ তার মূল্যায়ন করবে। আমি মনে করিনা সিটি করপোরেশন জনগণের আশা আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটিয়েছে। এখনো অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা রয়েছে। সে রাস্তা ঘাট কিছু ডেভেলপমেন্ট (উন্নয়ন) করেছে এটা সত্যি। আমার কথায় কেউ খুশি হোক কিংবা বেজার হোক তাতে আমার কিছু যায় আসেনা। নারায়ণগঞ্জের ড্রেনেজ ব্যবস্থা মারাত্মক খারাপ। ১৫ মিনিট বৃষ্টি হলে সারা শহর ডুবে যায়। আর আমার এলাকা তো নি¤œাঞ্চল ঘনবসতিপূর্ণ একটা এলাকা। আমার এলাকায় একটু বৃষ্টি হলে কোমড় সমান পানি হয়ে যায়। সামান্য বৃষ্টিতে আমার বাড়িতে হাটু পানি হয়ে যায়। আমার বাড়ির কথা না হয় বাদই দিলাম। শহরের পশ্চিমাঞ্চলটা আমি বলবো অবহেলিত। এগুলো তার (মেয়র আইভীর) করা উচিত ছিল দেখা উচিত ছিল। ড্রেন করছেন ২ ফিট পানিতো আসে ৫ ফিট। আমি বলবো, নগরায়ন পুরোপুরি পরিকল্পিতা না, অপরিকল্পিত। অপরিকল্পিত নগরায়নের জন্য অনেক কিছু ম্লান হয়ে যায়।

আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে বলেন, আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নির্বাচন করার ইচ্ছে নেই। তবে দল ও নেত্রী (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) যদি মনে করেন তার নির্বাচন করা উচিত তবে নেত্রী ও দলের জন্য নির্বাচন করবো। এবং আমি বিশ্বাস করি আমার নেত্রী আগামী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করবেন না। নেত্রী অবশ্যই সারা দেশে নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করেন। নেত্রী অবশ্যই সত্যিকার ও ত্যাগী লোককে দলের মনোনয়ন দিবেন। দলের জন্য যে ভাল করে দলকে যে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবে তাকে মনোনয়ন দিবেন আমি বিশ্বাস করি।


বিভাগ : সাক্ষাৎকার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও