প্রাথমিকে উপবৃত্তি নিয়ে শঙ্কা


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৪৫ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার
প্রাথমিকে উপবৃত্তি নিয়ে শঙ্কা

নারায়ণগঞ্জে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা কাটছে না অভিভাবকদের। ইতোমধ্যে ছয় মাসের টাকা দেওয়া হলেও পরবর্তী তিন মাসের টাকা দেওয়ার সময় চলে আসায় অভিভাবকদের মাঝে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষার্থীদের চলতি বছর থেকে মোবাইল ব্যাংকিং ‘নগদে’ টাকা দিয়ে আসছে। তার পর থেকেই শিক্ষার্থীদের এই উপবৃত্তির টাকা একটি চক্র হাতিয়ে নিচ্ছে। যার কারণে বিব্রতকর পরিস্থিতির শিকার হচ্ছে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। অভিভাবকদের অভিযোগ, নগদে টাকা আসলে ম্যাসেজ দিয়ে জানানো হয় না। এই সুযোগে ওৎপেতে থাকা হ্যাকাররা টাকা তুলে নেয়। শিওর ক্যাশে তেমন কোন সমস্যা হয়নি। শিওর ক্যাশে টাকা এলে সাথে সাথে মোবাইলে ম্যাসেজ আসতো। সেই ম্যাসেজ দেখে টাকা তোলা যেত সহজেই। এখন নগদে এসে ম্যাসেজ দেয়া হচ্ছে না। হ্যাকারদের সুযোগ দেয়ার জন্যই কি নগদ থেকে ম্যাসেজ দেয়া হয় না।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ জেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে ৫৪৭ টি। প্রাক-প্রাথমিক ব্যতীত জেলায় প্রথম শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত মোট শিক্ষার্থীর সংখ্য ১ লাখ ৪৫ হাজার ২৮০ জন । যারা প্রত্যেকেই উপবৃত্তি পেয়ে আসছে। সরকার তাদের মাসিক ১৫০ টাকা করে উপবৃত্তি প্রদান করে আসছে। চলতি বছর এপ্রিল, মে ও জুন মাসে ছাত্রছাত্রীরা মোট ৬ কোটি ৩২ লাখ ৯২ হাজার ৮০০ টাকা পেয়েছে। গেল বছর পর্যন্ত রুপালী ব্যাংকের ‘শিওর ক্যাশ’ মোবাইল ব্যাংকিংয়ে শিক্ষার্থীদের অর্থ প্রদান করে আসছিল। হঠাৎ ‘নগদ’ মোবাইল ব্যাংকিং-এ টাকা প্রদান করায় মোবাইল সিম থেকে টাকা হ্যাকিং হওয়ার অভিযোগ করতে থাকেন অভিভাবকরা।

নগদ সূত্রে জানাগেছে, চলতি বছর এপ্রিল, মে ও জুন মাসে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ৪৫ হাজার ৬৮৯ জন শিক্ষার্থী পেয়েছে উপবৃত্তির ১ কোটি ৯৯ লাখ ১৫ হাজার ২৭৫ টাকা। বন্দর উপজেলার ২০ হাজার ৮২৪ জন শিক্ষার্থী পেয়েছে ৯০ লাখ ৫২ হাজার ৩৫০ টাকা। সোনারগাঁও উপজেলার ২৩ হাজার ৬৮৯ জন শিক্ষার্থী পেয়েছে ১ কোটি ২ লাখ ৫৯ হাজার ১০০ টাকা। আড়াইহাজার উপজেলার ৩০ হাজার ১০০ জন শিক্ষার্থী পেয়েছে ১ কোটি ৩১ লাখ ৭৫ হাজার ৩২৫ টাকা। রূপগঞ্জ উপজেলার ২৪ হাজার ৯৭৮ জন শিক্ষার্থী পেয়েছে ১ কোটি ৮ লাখ ৯৩ হাজার ৭৫০ টাকা।

ভুক্তভোগী অভিভাবকরা জানান, ‘নগদে’ টাকা প্রদান করলে মোবাইলে কোনো এসএমএস আসে না। যার কারণে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জানতেই পারেন না তাদের সিমে টাকা আসছে। যখন জানে টাকা আসছে তখন এজেন্টের কাছে টাকা তোলার জন্য গেলে দেখা যায় অ্যাকাউন্টের বিপরীতে পিনকোড পরিবর্তন হয়ে গেছে। নতুন পিনকোডের জন্য হটলাইন কিংবা কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ করলে নতুন পিন দেওয়া হলেও অ্যাকাউন্টে ব্যালেন্স শূন্য দেখায়। এ নিয়েই শিক্ষকদের সঙ্গে অভিভাবকদের ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়। এমনকি অনেক অভিভাবক গালমন্দসহ স্কুল শিক্ষকদের সঙ্গে তুমুল ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়েন।

শহরতলীতে কর্মরত বেশ কিছু শিক্ষক জানান, অনেক অভিভাবক উপবৃত্তির টাকা না পেলে বিদ্যালয়ে এসে শিক্ষকদের দোষারোপ করেন, শিক্ষকরা টাকা মেরে দিয়েছেন। তাদের কোনোভাবেই বুঝানো সম্ভব হচ্ছে না যে, এই টাকা সংঘবদ্ধ কোনো চক্র তুলে নিয়ে গেছে। এ নিয়ে অভিভাবক ও শিক্ষকদের মাঝে সম্পর্কের টানাপড়েন সৃষ্টি হচ্ছে। এর ওপর রয়েছে অভিভাবকের ফোন নাম্বার সমস্যা। অনেক ফোন নাম্বারধারী পূর্বের দেওয়া নাম্বার হয় ব্যবহার করছেন না কিংবা ওই নাম্বারধারী কর্মসূত্রে এলাকার বাইরে আছেন।

এদিকে, টাকা খোয়া গেলে তাৎক্ষণিক তার কোনো প্রতিকারও নেই সংশ্লিষ্ট শিক্ষা অফিসের নিকট। এমন পরিস্থিতিতে দীর্ঘ বিরতির পর বিদ্যালয় খুলে দেওয়ায় এখন অভিভাবকরা তাদের টাকার জন্য বিদ্যালয়গুলোতে ভিড় করছেন। সঙ্গে তারা আরও দাবি করছেন, জুলাই, আগস্ট ও সেপ্টেম্বর এই তিন মাসের টাকা যেন কোনোভাবেই নয়-ছয় না হয়। নগদে টাকা আসলে যেন অবশ্যই মোবাইলে ম্যাসেজ দেয়া হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ‘নগদ’ ডাক বিভাগের মোবাইল ব্যাংকিং যা ইতোপূর্বে ছিল ‘থার্ড ওয়েভ টেকনোলজিস’-এর। কয়েক দিন আগে ‘নগদ’ ডাক বিভাগের বলে জানিয়েছেন ডাক বিভাগের মহাপরিচালক।

কর্মরত শিক্ষকরা সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা প্রেরণের পূর্বে স্ব-স্ব মোবাইল নাম্বারে আগাম এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দিলে তা হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা কমে আসবে। পাশাপাশি শিক্ষা অফিসের নিজস্ব কাস্টমার কেয়ারের মাধ্যমে দ্রুত সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিলে সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রকে আইনের আওতায় আনা সম্ভব হবে।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অহিন্দ্র কুমার মন্ডল জেলায় হ্যাকিং করে টাকা নিয়ে গেছে এরকম কোনো অভিযোগ তিনি পাননি বলে জানান। শুরুতে কিছু সমস্যা হয়েছে। এসব টেকনিক্যাল কারণে দুই-একটা সমস্যা হয়তো হতে পারে বলে মনে করেন এ কর্মকর্তা।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর