যুদ্ধ করে বিজয়ে নাই


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১১:৫০ পিএম, ১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার
যুদ্ধ করে বিজয়ে নাই

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদ উর রউফ যিনি ছাত্রজীবন থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত রয়েছেন। সেই সাথে ছাত্রজীবন থেকেই দাপটের সাথে রাজনীতি করে আসছেন। ছাত্রজীবন পেরিয়ে পেশাগত জীবনেও নারায়ণগঞ্জের আইনাঙ্গনে আওয়ামী লীগের শক্ত অবস্থান গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করেছেন। যা এখনও চলমান রয়েছে। সেই সাথে দলের দুঃসময়ে আওয়ামী লীগের ঝান্ডা ধরে রেখেছেন। বিশেষ করে ২০০১ সালের পর আওয়ামী লীগের জন্য বেশ কঠিন সময় পার করতে হয়। আর এসময়ে এসে আওয়ামী লীগের ঝান্ডা ধরে রাখার লক্ষ্যে টানা কয়েকবছর নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতিতে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছেন। কিন্তু খুব সময়ই তিনি জয়ের স্বাদ পেয়েছেন। দলের দুঃসময় থাকার কারণে বরাবরই তাকে বিজয়ের সিড়ি থেকে ছিটকে পরতে হয়েছে। তারপরেও তিনি কখনও পিছু হটেনি।

অ্যাডভোকেট মাসুদ উর রউফ ক্ষমতাবলেই দলের ঝান্ডা ধরে রাখার আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন। তবে দলের সুসময়ে এসে দলের দিক নির্দেশনাকারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে গেলেও জয়ের স্বাদ পাচ্ছেন না। জুনিয়র আইনজীবীদের সুযোগ করে দিতে গিয়ে তাকে বিজয়ের স্বাদ অর্জন করা থেকে বঞ্চিত থেকে যেতে হচ্ছে। জুনিয়ররাও আর সেই বিজয়ের স্বাদ অর্জনের সুযোগ করে দিচ্ছেন না। নিজেদের মধ্যেই নেতৃত্ব ধরে রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতিতে গত কয়েক বছর ধরেই কর্তৃত্ব চালিয়ে আসছে সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ মনোনীত আওয়ামী লীগপন্থী আইনজীবীরা। তারা সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রেখেছে। বিশেষ গত দুই মেয়াদ ধরে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ মনোনীত প্রার্থীরা পূর্ণ প্যানেলেই জয়ী হয়ে আসছে। যদিও তাদের মাঝে বিরোধ রয়েছে। কিন্তু এই বিরোধ উপেক্ষা করেই তারা পূর্ণ প্যানেলে বিজয় অর্জন করে আসছেন।

তবে এবার অনেক আইনজীবীদেরই চাওয়া হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির আগামী নির্বাচনে যেন অ্যাডভোকেট মাসুদ উর রউফকে সুযোগ করে দেয়া হয়। কারণ তিনি দলের দুঃসময়ে নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় আওয়ামী লীগের ঝান্ডা করে রাখার চেষ্টা করেছেন। আর তাই এবার দলের সুসময়ে বিজয়ের স্বাদ অর্জন করার সুযোগ দেয়া হোক।

নির্বাচন প্রসঙ্গে অ্যাডভোকেট মাসুদ উর রউফ বলেন, আমি সবসময় দলের জন্য কাজ করেছি। সবসময় আওয়ামী লীগের আইনজীবী প্যানেলের দিকনির্দেশনাকারী হিসেবে কাজ করেছি। আমার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার ইচ্ছা নেই। তবে দল যদি চাই তাহলে নির্বাচন করতে পারি। কারণ আমি সবসময় দলের আনুগত্যশীল হিসেবে কাজ করেছি।

নেতাকর্মীদের সূত্র বলছে, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের পরিবারের সাথে অ্যাডভোকেট মাসুদ উর রউফের পারিবারিকভাবে সম্পর্ক রয়েছে। ছোটবেলা থেকেই মাসুদ উর রউফ তাদের পরিবারের যাতায়াত করতেন। সেই সূত্র ধরে তিনি ওসমান পরিবারের ঘনিষ্টজন হিসেবে কাজ করে থাকেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর