বন্দরে নানী নাতনিকে অচেতন করে কিশোরীকে ধর্ষণ


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:১২ পিএম, ০৫ অক্টোবর ২০২০, সোমবার
বন্দরে নানী নাতনিকে অচেতন করে কিশোরীকে ধর্ষণ

বন্দরে নানী ও নাতনীকে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে অচেতন করে (১৪) বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে কতিপয় লম্পটদের বিরুদ্ধে। গত ৩ অক্টোবর শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বন্দর থানার ২৪নং ওয়ার্ডের বক্তারকান্দী এলাকায় এ ধর্ষনের ঘটনাটি ঘটে। এ ব্যাপারে ধর্ষিতা কিশোরী মা বাদী হয়ে গত ৪ অক্টোবর রোববার রাতে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এ মামলা দায়ের করেন।

জানা গেছে, মামলার বাদিনীর মেয়েকে দীর্ঘদিন ধরে একই থানার নবীগঞ্জ বড়বাড়ী এলাকার রুহুল আমিন মিয়ার ছেলে জাহিদ কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছে। এর ধারাবাহিকতায় গত ১৮ সেপ্টেম্বর বাদিনী ও তার স্বামী তাদের মেয়ে ও বাদিনী মাকে বাড়িতে রেখে শ^শুর বাড়ীতে বেড়াতে যায়। ওই সুযোগে গত ৩ অক্টোবর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় লম্পট জাহিদ একই এলাকার রোহান ও আসিফ বসত ঘরে প্রবেশে করে। ওই সময়ে বাদিনীর মা ও মেয়েকে কোমল পানির সাথে নেশা জাতীয় দ্রব্য সেবন করিয়ে বাদিনী মাকে এক রুমে ফেলে রেখে তার মেয়েকে অন্য একটি রুমে নিয়ে লম্পট আসিফ ও রোহানের সহায়তা লম্পট জাহিদ বাদিনী কিশোরী মেয়েকে ধর্ষণ করে। পরে ধর্ষিতার চিৎকার শব্দ শুনে প্রতিবেশী রজমান ও রহমান এগিয়ে আসলে ওই সময় ধর্ষকেরা পালিয়ে যায। এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করে। পুলিশ ৫অক্টোবর সোমবার সকালে ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরিক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে। পরে ডাক্তারি পরিক্ষা শেষে ভিকটিমকে ২২ ধারায় আদালতে প্রেরণ করা হয়।

বন্দর থানার অফিসার ইনর্চাজ ফখরুদ্দীন ভূইয়া জানান, কিশোরী ধর্ষনের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। সে সাথে ভিকটিমকে ডাক্তারি পরিক্ষার পর ২২ ধারায় আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। ধর্ষন মামলার আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যহত আছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর