তিন বেলাই শহরে যানজট


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:১০ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০২০, রবিবার
তিন বেলাই শহরে যানজট ফাইল ফটো

করোনার আগে বলা হত ট্রেনের কারণে শহরে যানজট সৃষ্টি হয়। করোনাকালে বন্ধ ছিল ট্রেন। কিন্তু যানজট বন্ধ ছিলনা। তাহলে এই কারণটি ঠুনকো। শহরের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে যানজট লেগেই আছে। এর কোন সময় নেই। গাড়ি যাচ্ছেতো তো হঠাৎ থেমে যাচ্ছে।

শহরে যানজটের প্রধান পয়েন্টগুলো হচ্ছে নিতাইগঞ্জ মোড়, মন্ডলপাড়া ব্রিজ, ২নং রেলগেইট, নন্দিপাড়া মোড়, গ্রিন্ডল্যাজ ব্যাংক মোড়, নুর মসজিদ মোড়, পপুলার পয়েন্ট এরপর চাষাড়া চৌরাস্তা মোড়। চাষাড়ায় এলে পড়তে হয় মহা ঝঞ্জাটে। ঢাকা থেকে যাত্রীবাহি বাস শহরে ঢুকছে। আবার শহর থেকে বাস ঢাকার উদ্দেশ্যে বের হচ্ছে। এর সাথে ট্রাক, প্রাইভেটকার, সিএনজি, রিক্সা ও মোটরসাইকেলের জঞ্জাল।

শহরের সান্তনা, সমবায় ও খাজা মার্কেট এর ব্যবসায়ী এবং ফুটপাতের লোকজনের সাথে আলাপকালে তারা জানায়, রাস্তায় যানজট লাগে মানুষের স্বভাবের কারণে। এই মানুষগুলো হচ্ছে পরিবহন জগতের মানুষ। সকালে তারা বিভিন্ন যানবাহন নিয়ে রাস্তায় বের হন।

নির্দিষ্ট স্ট্যান্ড থেকে বের হয়েই বিভিন্ন পয়েন্টে বাস বা সিএনজি দাঁড় করিয়ে রাখেন যাত্রী তোলার আশায়। যাত্রীর আশায় চালক গাড়ি স্টার্ট দিয়ে দু একটি ফ্যান চালু করে ঠায় বসে থাকে। সিএনজিগুলো একই অবস্থা। যাত্রীর জন্য রাস্তা দখল করে বসে থাকে। সাত সকালে রাস্তায় গাড়ি চলাচল কম থাকে বিধায় তখন বোঝা যায়না যে বাস, সিএনজি বা লেগুনা কিম্বা অটো কিভাবে রাস্তা দখল করে রাখে।

সূত্রমতে, বেলা বাড়ার সাথে সাথে শহরে ঢাকাগামী বাসগুলো ২নং রেলগেইট চত্বর ঘুরতেই যানজট লাগে। ট্রেন আসার সিগন্যাল পড়লেতো কথাই নেই। রেলগেইটের দু’পাশে যানজট। ট্রেন গেলে কে কার আগে যাবে। একটা অসুস্থ প্রতিযোগীতা চলে। ২নং রেলগেইট চত্বর ঘুরেই বাস দাঁড়িয়ে থাকে মনির হোটেল কিম্বা ইসলামী ব্যাংক (মিডটাউন) এর সামনে। পেছনে তখন থমকে যায় সব যানবাহন। থমকে থাকা যানবাহনের সম্মিলিত কোরাসে পথচারীদের কান জ্বালাপালা হয়। এভাবেই বছরের পর বছর ধরে শ্রবণ শক্তি কমে যাচ্ছে শহরের খেটে খাওয়া মানুষের। তবুও যানজট কমছেনা।

শহরের ২নং রেলগেইট ও আশপাশ এলাকার ব্যবাসায়ীসমাজ ও সাধারণ মানুষের সাথে আলাপকালে তারা জানান, শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে সারাদিন ট্রাফিক পুলিশ ডিউটি করে। গাড়ির ¯্রােত নিয়ন্ত্রণ করে। কিন্তু ফলাফল শূণ্য। যানজট লেগেই থাকে। কারণ ট্রাফিক পুলিশ গাড়ি থামাতে ও ছাড়তেই দিন পার করে থাকে। মূলত: যানজটের কারণগুলো দূর করতে কোন পদক্ষেপ নেয়না। যেমন বিভিন্ন মোড়ে গাড়ি থামিয়ে যাত্রী তোলা ও যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং বিষয়ে কঠোর কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়না।

পর্যবেক্ষক মহলের মতে, যানজটের মূল কারণ কেন্দ্রীয় বাস স্ট্যান্ড। পরিবহন খাত দখলের মনোবৃত্তি ছাড়তে না পারার কারণে কেন্দ্রীয় বাস টার্মিণাল এখনো জগদ্দল পাথরের মতো শহরবাসীর বুকে চেপে আছে। ট্রাক স্ট্যান্ড চলে গেছে। সবাই তাকিয়ে আছে নগরমাতা ডাঃ সেলিনা হায়াৎ আইভীর দিকে। তাছাড়া গুরুত্বপূর্ণ মোড়গুলোতে কমিউনিটি পুলিশ মোতায়েন করতে হবে। যাতে কোন গাড়ি যাত্রী উঠানোর জন্য দাঁড়িয়ে না থাকে। অবৈধ পার্কিং দেখলেই জরিমানার বিধান চালু করতে হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর