নোংরাপানি মাড়িয়ে স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে যেতে হয় রোগীদের


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:১৬ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০২০, রবিবার
নোংরাপানি মাড়িয়ে স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে যেতে হয় রোগীদের

৮ মাস ধরে জলমগ্ন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার এনায়েতনগর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের কার্যালয়। প্রবেশ মুখে হাটু পানির কারণে চিকিৎসা সেবা না নিয়েই ফেরত যাচ্ছেন অনেক রোগী। আবার অনেক রোগীকে নোংরা পানি মাড়িয়েই কার্যালয়ের ভেতরে প্রবেশ করে চিকিৎসা সেবা নিতে হচ্ছে। ভারী বৃষ্টি হলে কার্যালয়ের ভেতরেও পানি প্রবেশ করছে। দীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থা বিরাজ করলেও দেখার যেন কেউ নেই। পানি নিস্কাশনের কোন উদ্যোগ না নিয়ে শুধু বালু ফেলেই দায় সারছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-মুন্সীগঞ্জ সড়কের সংযোগস্থল ফতুল্লার পঞ্চবটি এলাকায় অবস্থিত ‘অ্যাডভেঞ্চার ল্যান্ড’ পার্কের বিপরীতে এনায়েতনগর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি অবস্থিত। এর অদূরেই অবস্থিত বিসিক হোসিয়ারী শিল্পনগরী। যেখানে অন্তত ৭০০ টি শিল্পপ্রতিষ্ঠানে সোয়া দুই লাখ শ্রমিক কাজ করে। এছাড়া পঞ্চবটি এলাকায় গড়ে উঠেছে আরো কয়েকশ’ শিল্প প্রতিষ্ঠান যেখানে লাখো শ্রমিক কাজ করে। শ্রমঘন এলাকা হিসেবে এনায়েতনগর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের গুরুত্ব অনেক বেশী। এই স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে উপ সহকারী কম্যুনিটি মেডিকেল অফিসার, ভিসিটর অফিসার, ফার্মাসিস্ট, এমএলএসএস, আয়া কর্মরত রয়েছে। তারা বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা এবং ওষুধ ও জন্ম নিয়ন্ত্রন সামগ্রী দিয়ে থাকেন। এছাড়া পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শকের বেশ কয়েকজন মাঠকর্মী রয়েছেন যারা মাঠ পর্যায়ে কাজ করছেন। এই স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে বিনামূল্যে খাবার বড়ি, কনডম, ইনজেকটেবলস পাওয়া যায়। এছাড়া মহিলাদের জন্য দীর্ঘমেয়াদী অস্থায়ী ক্লিনিক্যাল পদ্ধতি আই ইউ ডি, দীর্ঘমেয়াদী অস্থায়ী ক্লিনিক্যাল পদ্ধতি ইমপ্ল্যান্ট এবং পুরুষ ও মহিলাদের জন্য স্থায়ী ক্লিনিকাল পদ্ধতি চিকিৎসা সেবা বিনামূল্যে প্রদান করা হয়। এছাড়া গর্ভবর্তী মায়ের স্বাস্থ্যসেবাসহ শিশুদেরও স্বাস্থ্যসেবাও বিনামূল্যে প্রদান করা হয়। এখানে বিনামূল্যে বয়:সন্ধিকালীন সেবাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যসেবাও প্রদান করা হয়।

সরেজমিনে দেখা গেছে, হাটু পানিতে এনায়েতনগর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের কার্যালয়ের আঙিনা তলিয়ে গেছে। ভেতরে প্রবেশ করতে হলে এই নোংরা পানি মাড়িয়েই ভেতরে প্রবেশ করতে হচ্ছে। আশেপাশের এলাকাও অস্বাস্থ্যকর ও স্যাতসেতে। হাটু পানিতে তলিয়ে রয়েছে মেডিকেল অফিসারের কোয়ার্টারটির (বাসভবন) প্রবেশপথও। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের প্রবেশমুখে রয়েছে অবৈধ দখলদাররাও। বেশ কয়েকটি কাঠ বিক্রির দোকানও গড়ে তোলা হয়েছে। যে কারনে অনেক রোগীই স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি দেখতে পায়না। পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় গত ৮ মাস ধরেই পানিতে ডুবে আছে এনায়েতনগর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের কার্যালয়। ভারী বৃষ্টি হলে স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ভেতরেও পানি প্রবেশ করে। ওই কেন্দ্রে আগত মুসলিমনগর এলাকার বাসিন্দা নারী শ্রমিক আসমা বেগম জানান, বিনামূল্যে সেবা পাওয়া যায় বিধায় এখানে তারা আসেন। কিন্তু নোংরা পানি মাড়িয়েই দীর্ঘদিন ধরেই চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। এতে করে উল্টো চর্মরোগে আক্রান্ত হতে হচ্ছে অনেক রোগীকে। আবার অনেকে ফেরতও যাচ্ছেন।

ওই কেন্দ্রের ফ্যামিলি প্ল্যানিং বিভাগের কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান জানান, কয়েক বছর আগে জলাবদ্ধতার কারণে কার্যালয়টির চারিপাশে বালু ফেলা হয়েছিল। তবে পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় জলাবদ্ধতার পানি কমছেনা। গত ফেব্রুয়ারী মাস থেকেই এ অবস্থা বিরাজ করছে। তারা উর্ধ্বতনদের এ বিষয়ে জানিয়েছেন। পানি কমলে শুস্ক মৌসুমে বালু ফেলা হবে বলে জানানো হয়েছে।

এনায়েতনগর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের পরিচালনা কমিটির সভাপতি এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান জানান, এখানে যারাই চিকিৎসা নিতে আসে তারা কিন্তু প্রাইভেট হাসপাতালে যেতে পারেনা। এই কেন্দ্রে আমি ডিপ টিউবওয়েল স্থাপনসহ বিভিন্ন ধরনের ফার্নিচার দিয়েছি। কিন্তু কাইল্যানী খালের পানি নিস্কাশনের প্রতিবন্ধকতা দূর করা না গেলে এখানকার জলাবদ্ধতা নিরসন সম্ভব নয়। তাই এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে সরকারের উর্ধ্বতনদের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ পরিচালক মো: বসির উদ্দিন জানান, এনায়েতনগর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের জলাবদ্ধতা নিরসনের লক্ষ্যে আমরা এর আগে বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছিলাম। যার মধ্যে ফ্লোর ও আঙ্গিনা উচুসহ লম্বা পাইপের মাধ্যমে পানি নিস্কাশনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু আশেপাশের এলাকা সব ভরাট হয়ে যাওয়ায় পানি নিস্কাশন করা যাচ্ছেনা। এখন আমরা ওই ভবনটি ভেঙ্গে রোড লেভেলে নতুন ভবন নির্মাণের জন্য প্রস্তাবনা পাঠিয়েছি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর