যানবাহন বন্ধ করে হকারদের বিক্ষোভে আটকে অ্যাম্বুলেন্সও


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:২৩ পিএম, ০৫ মার্চ ২০২১, শুক্রবার
যানবাহন বন্ধ করে হকারদের বিক্ষোভে আটকে অ্যাম্বুলেন্সও

নারায়ণগঞ্জ শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের উভয় পাশে ফুটপাতে বসতে দেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে হকাররা। ঘণ্টাব্যাপী মিছিলে ভোগান্তিতে পড়েছে অ্যাম্বুলেন্সে থাকা রোগী ও তাদের স্বজনরা। ২ থেকে ৩ মিনিটের রাস্তায় মিছিলের পিছনে পিছনে যানজট পার হয়ে আসতে ৩০ থেকে ৪০ মিনিটের বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে। এসময় অ্যাম্বুলেন্সের হর্ণ বাজলেও হকার নেতারা তাতে কর্ণপাতও করেননি।

৪ মার্চ বৃহস্পতিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাব থেকে মিছিল বের হওয়ার পর চাষাঢ়া গোল চত্ত্বরে অবস্থান নেয় হকাররা। ওইসময় মিছিলের পিছনে দাঁড়িয়ে ছিল ৩০০ শয্যা হাসপাতালে রোগী নিয়ে যাওয়া অ্যাম্বুলেন্স। হকারদের মধ্যে থেকে কয়েকজন রাস্তা ছাড়ার জন্য বললেও তাতে ক্ষিপ্ত হয়ে বাধা দেয় হকার নেতা আসাদুজ্জামান আসাদ। পরে মিছিল নিয়ে ডিআইটির দিকে যাওয়ার পথে মিছিলের পিছনে আরো দুটি বেসরকারি হাসপাতালের অ্যাম্বুলেন্স ধীর গতিতে চলতে দেখা যায়। আবার যখন ডিআইটি থেকে প্রেসক্লাবের দিকে মিছিল আসছিল তখনও পিছনে ছিল জরুরী রোগীবাহী আরেকটি অ্যাম্বুলেন্স। যানজটে পরে একের পর এক হর্ণ বাজিয়ে গেলেও হকার নেতারা তাতে কর্ণপাত করেনি। মিছিলটি প্রেসক্লাব আসা পর্যন্ত সামনের গাড়িগুলো না যেতে পারায় ধীর গতিতে হর্ণ দিয়ে আসতে থাকে অ্যাম্বুলেন্সটি। পরে প্রেসক্লাব পার হয়ে দ্রুত গতিতে ছুটে চলে অ্যাম্বুলেন্স।

অ্যাম্বুলেন্সে স্বজনদের জিজ্ঞাস করলে বলেন, ‘হার্ট অ্যাটাক করেছে তাই ঢাকা নিয়ে যাচ্ছি।’ পরে তাদের আর কোন খোঁজ নেওয়া সম্ভব হয়নি।’

এদিকে হকারদের মিছিলে সাধারণ মানুষ ও যাত্রীদের ভোগান্তি হলেও তাতে নূন্যতম দুঃখ প্রকাশ করতেও শোনা যায়নি হকার নেতাদের বক্তব্যে। বরং বড় ধরনের কর্মসূচি দিয়ে শহর অচল করার ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে মিছিলে ব্যানারে উল্লেখ করা হয়, ‘পুনর্বাসন ছাড়া হকার উচ্ছেদ চলবে না। উচ্ছেদের নামে জুলুম, নির্যাতন ও গ্রেফতার বন্ধ কর, করতে হবে। হাকার্স মার্কেট আধুনিক ও বহুতল ভবনে রূপান্তরিত করে পুনর্বাসন কর। পুনর্বাসনের আগ পর্যন্ত, জনগনের সাচ্ছন্দে চলাচলের ব্যবস্থা রেখে হকারদের বসতে দেওয়া হোক।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন হকার্স নেতা আসাদুজ্জামান আসাদ, রহিম মুন্সি, শরীফ ও সংহতি প্রকাশ করে ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র জেলার সাধারণ সম্পাদক বিমল দাস সহ অন্যান্যরা।

প্রসঙ্গত গত ২ মার্চ থেকে ধারাবাহিক ভাবে ফুটপাতে বসার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে আসছে হকাররা। দাবি না মানা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুশিয়ারী দিয়েছেন হকার নেতারা। আর তাদের এ মিছিলে প্রতিদিন সাধারণ মানুষ ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে পরে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। নষ্ট হচ্ছে মানুষের মূল্যবান কর্মঘণ্টা। এছাড়াও অ্যাম্বুলেন্স সহ বিভিন্ন যানবাহনে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরাও ভোগান্তিতে পরেন।’

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর