নারায়ণগঞ্জে তান্ডবের মূল হোতা মামুনুল হক


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:৩৯ পিএম, ০৪ মে ২০২১, মঙ্গলবার
নারায়ণগঞ্জে তান্ডবের মূল হোতা মামুনুল হক

নারায়ণগঞ্জে গত ২৮ মার্চ হেফাজতের হরতাল চলাকালে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড ও শিমরাইলে মহাসড়কে ব্যাপক তান্ডবের ঘটনায় একজন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেছেন। ৪ মে মঙ্গলবার মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক নামের এক হেফাজত নেতা ওই জবানবন্দী প্রদান করেন।

নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ হুমায়ূন কবীরের আদালতে দেওয়া জবানবন্দীতে মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক সেই হরতালের নাশকতার ঘটনায় মূল হোতা হিসেবে বিলুপ্ত হেফাজত ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক সহ উল্লেখযোগ্য কেন্দ্রীয় নেতাদের নাম প্রকাশ করেন।

তিনি আরো জানান, মামুনুল হক সহ আরো কয়েকজন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার হেফাজত ইসলামের সভাপতি মাওলানা মাহমুদুল হাসান পাটোয়ারি হরতাল সফল করার উদ্দেশ্যে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তার নেতৃত্বে অবস্থান করতে জ্বালাও পোড়াও সহ গাড়ি ভাংচুরের দায়িত্ব দেয়।

পুলিশের নিকট সে আরোও কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রদান করে। যা যাচাই বাছাই অব্যাহত আছে। সম্পৃক্ত অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে অভিযান চলমান রয়েছে।

৪ মে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান মামলাটির তদন্তকারী সংস্থা নারায়ণগঞ্জ পিবিআই। এতে জানানো হয়, ২৮ মার্চ বেলা অনুমান সাড়ে ১২টায় এজাহার নামীয় ২৮ জন আসামী সহ অজ্ঞাত ৪০০/৫০০ জন বিএনপি, জামায়াত, শিবির, হেফাজত কর্মী সহ আরো অনেক উশৃঙ্খল হামলাকারী সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন সাইনবোর্ডস্থ চৌরঙ্গী পেট্রোল পাম্প হতে মৌচাক পর্যন্ত মহাসড়ক এলাকায় হরতাল ও অবরোধ পালনকালীন উত্তেজিত আসামীরা একে অপরের সহায়তায় ও প্ররোচনায় বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব বিপন্ন ও জন নিরাপত্তা বিঘ্ন করার উদ্দেশ্যে জনসাধারণ বা জন মনে আতঙ্ক সৃষ্টির মাধ্যমে সরকারী কর্মচারীকে ক্ষতিসাধনের উদ্দেশ্যে আঘাত করে জখম, যানবাহনে অগ্নিসংযোগ এবং ভাংচুর করে।

ওই ঘটনায় দায়েরকৃত মামলাটি পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স মাধ্যমে গত ১৫ এপ্রিল পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলা কর্তৃক তদন্তভার প্রাপ্ত হয়। মামলাটির তদন্তভার প্রাপ্তির পর পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম (পিপিএম) এর নির্দেশে মামলাটির তদন্তভার পুলিশ পরিদর্শক আরিফুর রহমান গ্রহণ করেন।

সাম্প্রতিক সময়ের প্রতি অধিক গুরুত্ব দিয়ে পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপারের দিক নির্দেশনায় তদন্তকারি কর্মকতা মামলাটি প্রকাশ্য ও গোপনে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় মহাসড়কে তান্ডব পরিচালনাকারী মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিককে (২৮) গ্রেপ্তার করে। তিনি বর্তমানে সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজিতে বায়তুল নাজাত জামে মসজিদের ইমাম ছিলেন।

গত ২৮ মার্চ হেফাজতের ডাকা হরতালে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ড মোড় থেকে শিমরাইল এলাকা পর্যন্ত হরতাল সমর্থনকারীরা ব্যাপক সহিংসতা চালায়।ওই দিন যাত্রীবাহী বাস, ট্রাক, পিকআপ ভ্যান, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস ও অ্যাম্বুলেন্সসহ অন্তত ৫০টি গাড়ি ভাঙচুর হয়। আগুন দেয়া হয় ১৮টি গাড়িতে। এ ঘটনায় পুলিশ ও র‌্যাব ছয়টি মামলা করে। পরে আরও তিনটি মামলা করেন ক্ষতিগ্রস্ত গাড়ির মালিকরা।

এরই মধ্যে বিলুপ্ত হওয়া হেফাজতে ইসলামের নারায়ণগঞ্জ জেলা হেফাজতের সেক্রেটারী মুফতি বশিরউল্লাহ, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা জামায়াতে ইসলামীর আমীর আব্দুল্লাহ বাকি ও বিএনপি নেতা ইসলামকে দ্বিতীয় দফায় রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

৩ মে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল মহসীনের আদালতে তাদের সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত এক দিন রিমান্ডে নেয়ার আদেশ দেয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর