অনেকের চক্ষুশূলের কারণে বাপ্পী নাই


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৬:৪২ পিএম, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, রবিবার
অনেকের চক্ষুশূলের কারণে বাপ্পী নাই

২০০১ সালের ১৬ জুন চাষাঢ়া আওয়ামী লীগ অফিসে বোমা হামলায় যে ২০ জন নিহত হয়েছে তাদের মধ্যে একজন ছিলেন সাইদুল ইসলাম বাপ্পী। তিনি ছিলেন শহর ছাত্রলীগের সভাপতি। সেই বোমা হামলার বিচার আদৌ হয়নি। এরই মধ্যে ২০০৩ সালের পৌরসভা নির্বাচনে কমিশনার ও ২০১১ সালের সিটি করপোরেশন নির্বাচনে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন বাপ্পীর ছোট ভাই কামরুল হাসান মুন্না। তবে ২০১৬ সালের নির্বাচনে আর বৈতরণী পার হতে পারেনি মুন্না।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় বাপ্পীর এলাকায় যান সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী। ওই সময়ে আইভী বলেন, ছোট ভাই বাপ্পী। তাকে ছোট বেলায় দেখেছি। সে আমার বাবার বন্ধুর ছেলে। তার নির্মম মৃত্যু যদি না হতো তাহলে হয়তো সে অনেক বড় নেতা থাকতো এ শহরের। কিন্তু অনেকের চক্ষুশূলের কারণে সে আমাদের মাঝে নেই। বাপ্পী সড়ক হতো না যদি আমি কাজ না করতাম। বাপ্পী সড়কের নামকরণ করেছি আমি। স্বাধীনতা চত্ত্বরও করে দিয়েছি আমি।

এর আগে এক টক শোতে নিহত সাইদুল হাসান বাপ্পীর ছোট ভাই কামরুল হাসান মুন্না বলেন, ‘অনুভূতির কিছু নেই। শুধু বেদনাবিধুর দিন, বেদনাবিধুর বছর। আমরা দেখেছি বর্তমান সরকার কয়েকবার ক্ষমতায় এসেছেন। ইতোমধ্যেই বেশ কয়েকটি হত্যাকান্ডের বিচার পেয়েছি। আমরা এখনো আশা ছাড়িনি। এখনো আশাবাদি এই সরকারের আমলেই আমরা বিচারের পূর্ণাঙ্গ রায় পাবো এবং কার্যকারিতা দেখতে পাবো।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর