৪ সাংবাদিকের মামলা প্রত্যাহার চেয়ে সমাবেশ মানববন্ধন


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:৪৬ পিএম, ০২ মার্চ ২০২১, মঙ্গলবার
৪ সাংবাদিকের মামলা প্রত্যাহার চেয়ে সমাবেশ মানববন্ধন

নারায়ণগঞ্জে চার সাংবাদিক সহ সারাদেশে সকল গণমাধ্যমকর্মীদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২ মার্চ মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক ইত্তেফাকের স্টাফ রিপোর্টার হাবিবুর রহমান বাদল, নারায়ণগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক, দৈনিক যুগান্তর ও ডিবিসি চ্যানেলের জেলা প্রতিনিধি রাজু আহমেদ, নারায়ণগঞ্জ জেলা ফটো সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান কচিসহ সারা দেশে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার দাবীতে ওই প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন হয়।

নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ আলমের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ক্রইম রিপোটার্স এসোসিয়েশন (ক্র্যাব) এর সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আরিফ। সাংবাদিকদের এই প্রতিবাদে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারন সম্পাদক মশিউর রহমান খান।

নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ আলম বলেছেন, ‘সাংবাদিকের পেশাটাই ঝুঁকিপূর্ণ। অনেক ক্ষেত্রে জীবণের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হয়। সাংবাদিকদের বলা হয় সমাজের দর্পন। আমি দেখছি বর্তমান সমাজে সব চাইতে অবহেলিত, সবচাইতে লাঞ্ছিত, নিগৃহীত সাংবাদিক সমাজ।’

তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাশ হওয়ার আগে খসরা হিসেবে যে কমিটির কাছে দেওয়া হয়েছিল। সেই কমিটিতে সাংবাদিক ছিলেন তিন চার জন। তাঁদেরকি উচিৎ ছিল না এটাকে উপস্থাপন করা যে এই আইনটি একদিন কালো আইন হতে পারে। সাংবাদিকদের উপর প্রয়োগ করা হলে সংবাদ কর্মীদের সাংবাদিকতা ব্যাহত হতে পারে। তাঁরা প্রতিবাদ করেননি। কেন? কিসের আশায়? একেক জন একেক জায়গায় ভালো অবস্থানে প্রতিষ্ঠিত। সাংবাদিক মাঠ পর্যায়ে মরে গেলো না কি হলো কারো দেখার সময় নেই।’

তিনি বলেন, ‘সারা বাংলাদেশ উত্তাল হলো সাগর-রুনি হত্যা নিয়ে। কই আজও পর্যন্ত সাগর-রুনি হত্যাকারী গ্রেপ্তার হলো না। বিচার হলো না। আন্দোলনের অগ্রভাগে যারা ছিলেন তাঁরা তো ঠিকই একেক জন ভালো ভালো জায়গায় চেয়ার নিয়ে বসে গেছেন। এসব কথা বলতে গেলে নিজেদের ঘাড়েই পড়ে।’

তিনি বলেন, ‘হামলা মামলা দিয়ে, এমন কি জীবন নাশের হুমকি দিয়েও সাংবাদিকের কলম বন্ধ করা যাবে না। যারা প্রকৃত সাংবাদিক তাঁরা জীবনের মায়া করে না। আমরা সদা সর্বদা বস্তুনিষ্ট সংবাদ পরিবেশনে অনড় থাকব। এমন কিছু যেন না করি যে কারণে আমাদেরকে সমাজের কাছে মুখ দেখাতে কষ্ট হবে। সাংবাদিকদের মাঝে এমন কিছু যেন না হয় সেটা খেয়াল রাখার অনুরোধ করব।’

তিনি বলেন, ‘হাবিবুর রহমান বাদল আমার একজন অভিভাবক। তাঁর বিরুদ্ধ মামলা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া রাজু, কচিসহ যারা আছে শুধু এরাই নয়, সারা দেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দিয়ে সাংবাদিকদের হয়রানি করা হচ্ছে। সকল মামলার প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং প্রত্যাহার দাবি করছি। সেই সাথে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি বঙ্গবন্ধুর কণ্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে।’

বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আরিফ বলেন, ‘আজকে যে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছি এটি একটি কালো আইনের বিরুদ্ধে। আমরা আইনের বিপক্ষে নই। আমরা আইনের অপপ্রয়োগের বিরুদ্ধে। গণপ্রজানন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৩৯ অনুচ্ছেদে বাক স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে। মত প্রকাশের স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারায় কিন্তু মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে ক্ষুন্ন করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে একটি ভালো আইন হলে আমরা এর বিপক্ষে নয়। অপরাধীদের সেই আইনে সাজা দিন। কিন্তু যারা সত্য রিপোর্ট প্রকাশের কারণে, মত প্রকাশের কারণে, কিছু লেখার কারণে সাংবাদিকদের যে ৩২ ধারায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাগুলো দিচ্ছেন আমরা সেই অপপ্রয়োগের বিরুদ্ধে কথা বলছি।’

তিনি বলেন, ‘লেখক কাজলের অস্বাভাবিক মৃত্যুর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। যারা তাঁর অস্বাভাবিক মৃত্যুর জন্য দায়ী তাঁদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। কার্টনিস্ট কিশোরসহ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কারাবন্দি আছেন এবং যাদের নামে মামলা আছে তাঁদের সকলের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি। পাশাপাশি বলতে চাই কোনো সংবাদ প্রকাশের কারণে কারো সম্মানহানি হলে বিশ্বের কোনো দেশে ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গন্য হয় না। একমাত্র আমাদের দেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মানহানির মামলা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ফৌজদারি মামলা হিসেবে গন্য হয়। বাংলাদেশ সংবিধানের ৩৯ অনুচ্ছেদ আর ৩২ ধারা এক সঙ্গে চলতে পারে না। আমি মনে করি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে যেসব অসঙ্গতি রয়েছে সেগুলো অবিলম্বে দূর করা হবে। এবং এই আইনের অপপ্রয়োগগুলো বন্ধ করা হবে।’

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর