পানিতে ডুবে থাকা নৌযানকে সার্ভে রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হচ্ছে


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৬:১২ পিএম, ০৪ মে ২০২১, মঙ্গলবার
পানিতে ডুবে থাকা নৌযানকে সার্ভে রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হচ্ছে

নিরাপদ নৌপথ চাই সংগঠনের সেক্রেটারী জেনারেল মো: সবুজ শিকদার বলেছেন, নিহতদের স্মজনদের কান্নায় পদ্মা নদীর তীরের আকাশ বাতাস ভারি হয়ে গেছে। চলমান লকডাউনে যেখানে যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে সেখানে কিভাবে এই স্পীডবোটগুলো কোন ধরনের সার্ভে রেজিস্ট্রেশন ছাড়া রুট পারমিট ছাড়া বিআইডব্লিউটিএ নৌ প্রশাসনের সামনে দাবড়ে বেড়াচ্ছে। স্পীডবোটগুলোর পরিচালনাকারীরা কোন ধরনের লাইফ জ্যাকেট ছাড়া, সেফটি সিকিউরিটি ছাড়াই গরুর মতো মানুষদেরকে স্পীডবোটে উঠতে বাধ্য করে। আপনার জানেন কিছুদিন পূর্বে শীতলক্ষ্যার মদনগঞ্জ-সৈয়দপুর এলাকায় সেতুর ভুল নকশার কারণে নদীর পথ সংর্কীণ করে ফেলার কারণে মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় ৩৪ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এর আগে বুড়িগঙ্গা নদীতেও মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় অনেক প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার আগে ইশতেহারে নদী দখল ও দূষণমুক্তের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। বর্তমান সরকার নদী রক্ষায় হাজার কোটি টাকা বাজেট দিলেও ডিজি শিপিং বিআইডব্লিউটিএ’র দুর্নীতিবাজদের কারণে সেটা সম্ভব হচ্ছেনা। সরকার হাজার হাজার কোটি বরাদ্দ দিলেও সেগুলো লুটপাট করা হচ্ছে। ১২ জন মানুষ বহন করতে পারে এ ধরনের ছোট নৌযানের সার্ভে রেজিষ্ট্রেশন থাকার কথা থাকলেও বর্তমানে বড় বড় নৌযানেও সার্ভে রেজিষ্ট্রেশন নেই। সার্ভে রেজিষ্ট্রেশনের নামে ঘুষ বাণিজ্য হচ্ছে। এমনকি পানিতে ডুবে থাকা নৌযানকেও সার্ভে রেজিষ্ট্রেশন দেওয়া হচ্ছে। কয়েকদিন আগে সেটা ধরা পড়ায় পরবর্তীতে ডুবে থাকা সেই জাহাজের সার্ভে রেজিষ্ট্রেশন বাতিল করা হয়। ডিজি শিপিংয়ের সার্ভেয়াররা নদীতে চলাচলকারী যানের দিকে খেয়াল করেনা। তাদের চীফ ইঞ্জিনিয়ারসহ কয়েকজন ইতিমধ্যে ঘুষ লেনদেনের দায়ে গ্রেফতার হয়েছে। আজকে ডিজি শিপিং বিআইডব্লিউটিএ’র দুর্নীতিবাজদের কারণে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে। যেকোন দুর্ঘটনার পরে তদন্ত কমিটি গঠন করা হলেও তাদের রিপোর্ট আলোর মুখ দেখেনা। আজকে স্পীডবোটে প্রাণহানির ঘটনা দুর্ঘটনা নয় এটি হত্যাকান্ড। নদীগুলোর উভয় তীরে গড়ে ওঠা বিভিন্ন কলকারখানা, সিমেন্ট ফ্যাক্টরী, ডকইয়ার্ডসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সামনে এলোপাথারি জাহাজ বার্থিং (নোঙ্গর) করে রাখার কারণে নদীপথগুলো সংকীর্ন হয়ে ও নাব্যতা সঙ্কট দেখা দিচ্ছে। আজকে অবৈধ নৌযানগুলো সারাদেশে দাবড়ে বেড়াচ্ছে যেকারণে প্রাণহানি বেড়েই চলেছে। আজকে সকল নদীতে কয়েকশত স্পটে চাঁদাবাজি হচ্ছে। বিআইডব্লিউটিএ নৌ পুলিশ দেখেও না দেখার ভান করছে। বিআইডব্লিউটিএ থেকে ইজারা নিয়ে অবৈধভাবে অতিরিক্ত টাকা আদায় করা হচ্ছে। আজকে লকডাউনের কারণে শত শত যাত্রীবাহি নৌযানগুলো বন্ধ থাকায় শ্রমিকরা কর্মহীন হয়ে পড়েছে। আমরা শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রীবাহি নৌযানগুলো চলাচলের অনুমতি প্রদানের অনুরোধ জানাচ্ছি। আমরা নদীপথে হত্যাকান্ড, চাঁদাবাজি, দুর্ঘটনা দেখতে চাইনা। নিরাপদ নৌপথের দাবিতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

মঙ্গলবার ৪ মে বিকেলে মাদারীপুরের পদ্মা নদীর বাংলাবাজার ঘাটে স্পীডবোট দুর্ঘটনায় ২৬ জনের প্রাণহানিসহ সকল নৌ দুর্ঘটনায় দায়ীদের সর্বোচ্চ শাস্তি ও নিরাপদ নৌপথের দাবিতে নারায়ণগঞ্জের ৫নং খেয়াঘাট এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে নিরাপদ নৌপথ চাই সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে এসকল কথা বলেন সবুজ শিকদার। নিরাপদ নৌপথ চাই সংগঠনের সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ শাহআলমের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কবির হোসেন, নিজামউদ্দিন, পান্না মিয়া, মিরাজ খান, স্বপন মিয়া প্রমুখ।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর