বিএনপি নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী, পেছনে কাজী মনির!


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:৪০ পিএম, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার
বিএনপি নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী, পেছনে কাজী মনির!

আগামী ২০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। আর এবারের নির্বাচনে বিএনপি থেকে কোনো প্রার্থী অংশ নিচ্ছে না। তবে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন বিএনপি মনোনীত সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা বিএপির সাবেক স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক শরীফ আহমেদ টুটুল। বিএনপির পদে থেকেও দলীয় নীতির বাইরে গিয়ে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন। তারপরেও তার বিরুদ্ধে কোনো ভূমিকা রাখা হচ্ছে না স্থানীয়ভাবে।

আর তাকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান। কিন্তু এর আগে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপির পদে থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন অংশগ্রহণ করা প্রার্থীকে বহিস্কার ও মনোনয়ন পত্র জমা না দেয়ায় অনেককে অব্যাহতি দেয়া হয়েছিল। তবে দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী শরীফ আহমেদ টুটুলের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। যা নিয়ে স্থানীয় পর্যায়েও চলছে নানা কানাঘুষা। কার জোরে তিনি নির্বাচন করছেন সেটা নিয়েও বিএনপির নেতাকর্মীরা ভাবতে শুরু করছেন।

জানা যায়, বিএনপি থেকে কোনো প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলেও জমে ওঠেছে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। আগামী ২০ অক্টোবর ভোটগ্রহণের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। সেই লক্ষ্যে ইতোমধ্যে প্রার্থীরা মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। গত ২৩ সেপ্টেম্বর ছিল মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন। আর এই শেষ দিনে দুইজন চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ৪৫ জন সদস্য প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

দুইজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর মাস্টার এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বিএনপি মনোনীত সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাবেক স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক শরীফ আহমেদ টুটুল।

আগে বিএনপি থেকে মনোনীত হয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেও শরীফ আহমেদ টুটুল এবার চাচ্ছেন বিএনপি থেকে নির্বাচনে অংশ না নিয়ে স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচনে অংশ নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে। কিন্তু এই নীতি তার দল বিএনপি সমর্থন করে না। দলীয় পদে থেকে দলের পরিচয়ের বাইরে গিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী কাজ। যে কাজ করতে গিয়ে ২০১৬ সালে তৎকালিন ফতুল্লাা থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মনিরুল আলম সেন্টুকে বহিস্কার হতে হয়েছিল।

সেসময় সেন্টুকে বহিস্কার করা হলেও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামানের সমর্থনে এখনও বলবৎ রয়ে যাচ্ছেন দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নেয়া শরীফ আহমেদ টুটুল।

সূত্র বলছে, নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ২০১৬ সালের ২১ এপ্রিল দলের সহ-দফতর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়েছিল ‘দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে নারায়ণগঞ্জ জেলাধীন ফতুল্লা থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মনিরুল আলম সেন্টুকে বিএনপির প্রাথমিক সদস্য পদসহ সকল পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।’

এর আগে একই বছরের ৭ এপ্রিল ইউনিয়ন নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র জমা না দেওয়া সহ সরকারী দলের সঙ্গে আঁতাত ও ছলচাতুরির অভিযোগে ৭জন বিএনপি নেতাকে দল ও পদ থেকে সাময়িক অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছিল। কিন্তু এবারের নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশ নেয়া শরীফ আহমেদ টুটুলের বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনো পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর