অভিযোগ বাড়ছে ছাত্রলীগ সহ সভাপতি হিমেলের বিরুদ্ধে


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৩৩ পিএম, ০৪ অক্টোবর ২০২০, রবিবার
অভিযোগ বাড়ছে ছাত্রলীগ সহ সভাপতি হিমেলের বিরুদ্ধে

আবারোও আলোচনায় ছাত্রলীগ নেতা শাহরিয়ার রেজা হিমেল। তিনি জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি। দোর্দন্ড প্রতাপশালী এ নেতার বিরুদ্ধে এবার মানববন্ধন করেছে অসহায় একটি পরিবার। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে ৪ অক্টোবর রোববার ওই মানববন্ধন হয়। এর আগেও এ হিমেলের বিরুদ্ধে ছিল নানা অভিযোগ। তবে তিনি বরাবরই বলেন, ‘অয়ন ওসমানের ক্ষুদ্র কর্মী তিনি।’

তবে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শামীম ওসমান কিংবা অয়ন ওসমান কখনোই এসব অন্যায়কে প্রশ্রয় দেন না। ভূমিদস্যু, অপরাধমূলক কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে তাঁরা। কিন্তু অয়ন ওসমানের সঙ্গে ছবি তুলে সেটা নিয়ে এখন এলাকায় দাবড়াচ্ছেন হিমেল।

২৫ সেপ্টেম্বর এক অনুষ্ঠানে হিমেল বলেন, নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে ওসমান পরিবার। করোনা কালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাধারণ মানুষের কল্যানে কাজ করেছেন ওসমান পরিবারের সকল সদস্য। আজ তারা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ওসমান পরিবারের সকলের জন্য আপনার দোয়া করবেন। কেননা ওসমান প‌রিবার সুস্থ থাক‌লে আগামী এই নারায়ণগ‌ঞ্জে আ‌রো উন্নয়ন হ‌বে। আওয়ামীলীগ সরকার সাড়া দেশে ব্যাপক উন্নয়ণ করছে। এই উন্নয়ণের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে কাজ করে যাচ্ছে ওসমান পরিবার। তাই ওসমান পরিবারের হাতকে শক্তিশালী করাই আমাদের মূল উদ্দেশ্য।

হিমেল আরো বলেন, আ‌মি কোন নেতা না, আ‌মি অয়ন ওসমা‌নের একজন ক্ষুদ্র কর্মী। তি‌নি আমাকে ছোট ভাই‌য়ের ম‌তো স্নেহ ক‌রেন। আর এটাই অ‌নেক দু‌ষ্কৃ‌তিকরীরা চায়না যে অয়ন ওসমা‌নের হাত শ‌ক্তিশালী হোক। আমি কোন ধান্দালেুটপা‌টের রাজনী‌তি ক‌রি না। আ‌মি রাজনী‌তি ক‌রি অয়ন ওসমা‌নের হাত‌কে শক্তিশালী করার জন‌্য। আর এ জন‌্যই কিছু মানুষ আমার পিছ‌নে উ‌ঠেপ‌ড়ে লে‌গে‌ছে। কিন্তু আ‌মি এতে দ‌মে যা‌বো না।

উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি তানজিদ রিয়াদ হৃদয়, দপ্তর সম্পাদক রেজাওয়ান উল করিম, গ্রন্থ ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক তামিম আহম্মেদ। দোয়া মাহফিলের আ‌য়োজ‌নে মোঃ র‌ফিকুল ইসলাম শিপলু, মোঃ আফ‌েনে নুর, মোঃ হানীফ, প্রীতম আহ‌মেদ, মোঃ জিসান, মোঃ আকাশ প্রমূখ। দোয়া মাহফিলে ওসমান পরিবারের সকল সদস্যের সুস্থতা কামনায় দোয়া করা হয়।

এছাড়াও সারা দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে নিহতদের আত্মার মাগফেতার কামনা ও আক্রান্তদের দ্রুত সুস্থতা কামনায় দোয়া করা হয়

সবশেষ নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি শাহরিয়ার রেজা হিমেল ও তার চাচা সহ পরিবারের লোকজনদের বিরুদ্ধে হয়রানির অভিযোগ তুলে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেছে অসহায় এক পরিবার। তিন সন্তানকে নিয়ে স্বামী ও স্ত্রী ওই মানববন্ধনটি করেন।

৪ অক্টোবর রোববার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে অভিযোগ করে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লার সস্তাপুর এলাকার রিকশা গেরেজ মহাজন শফি প্রধান তার স্ত্রী ও তিন ছেলে সন্তান।

শফি প্রধান বলেন, সস্তাপুর এলাকায় আমার গ্যারেজের সামনে রাস্তায় এক চালক রিকশা রেখে গ্যারেজে আসে। এসময় ছাত্রলীগ নেতা হিমেলের চাচা মজিবুর ও তার বাহিনীর লোকজন যেতে সমস্যা হওয়ায় আমার তিনটি সন্তানের সামনে আমাকে এলোপাথারি মারধর করে। এতে আমার ছেলেরা আমাকে রক্ষা করার চেষ্টা করেন। তখন মজিবুর তার লোকজন দিয়ে আমার তিন ছেলেকে গলায় ছুরি ধরে রাখে। ওই সময় পার্শ্ববর্তী সজল সহ কয়েকজন এগিয়ে এসে আমাকে তাদের কাছ থেকে উদ্ধারের চেষ্টা করে। এতে সজলসহ কয়েকজনকে এলোপাথারী মারধর করে। এক পর্যায়ে সজলের একটি আঙ্গুলে কোপ দিয়ে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে এবং আরো একজনকে কুপিয়ে তারা চলে যায়।

এঘটনায় আমার ছেলে বাদল বাদী হয়ে ফতুল্লা থানায় হিমেলের চাচা জুয়েল তার তাদের বাহিনীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলাটি প্রত্যাহার করে নিতে হিমেল তার চাচা মজিবুর, জুয়েল নানা ভাবে হুমকি দিতে থাকে।

এক পর্যায়ে মজিবুর তার সহযোগি আনোয়ারকে দিয়ে কয়েকজনকে আমার গ্যারেজে পাঠায়। তারা এসেই আবারো মারধর করে হুমকি দিয়ে যায়। মামলা না উঠালে একাধীক মামলা দিয়ে আমাদের এলাকা ছাড়া করবে। বিষয়টি ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলামকে জানাই। এতে হিমেল ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের কর্মচারীকে দিয়ে মিথ্যা অভিযোগ এনে ফতুল্লা থানায় আমার ছেলে বাদলসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে একটি মারধরের মামলা করেছেন।

তিনি আরো বলেন, তারপরও আমার ছেলে বাদল মামলা প্রত্যাহার করেনি। এরপর বিষয়টি নিয়ে এলাকায় মিমাংসার প্রস্তাব দেয় তারা। আমি বলেছি আমার মিমাংসা প্রয়োজন নেই তারা শুধু দুঃখ প্রকাশ করুক এতেই মামলা তুলে নিবো।

কিন্তু তারা দুঃখ প্রকাশ না করে উল্টো এক নারী দিয়ে আমার ছেলে বাদলের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেছে। আমরা হতদরিদ্র আমার ক্ষমতা নেই এই মামলা চালানোর। আমি তাদের কাছে ক্ষমা চাই আমি বিচার চাইনা। আমার ছেলেরা ফেরি করে কাপড় বিক্রি করে সংসার চালায়। আমি পরিবার নিয়ে শান্তিতে থাকতে চাই।

তিনি আরো বলেন, হিমেলের শেল্টারে তার চাচা মজিবুর ও জুয়েল এলাকায় সাধারন মানুষদের অনেক অত্যাচার করেন। সস্তাপুরে অনেক পরিবারকে বাসা থেকে বের করে দিয়ে ঘরে তালা দিয়েছে। সাইনবোর্ড লাগিয়ে বাড়ি ঘর দখল করেছে। তারা অনেক প্রভাবশালী তাদের সঙ্গে আমাদের কোন তুলনা হয়না। আমরা খেটে খাওয়া দরিদ্র মানুষ। তাদের আক্রোশ থেকে রক্ষা পেতেই জেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছি।

প্রসঙ্গত নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়া থেকে শিবু জালকুড়ি পর্যন্ত ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের দুই পাশে বড় বড় বিলবোর্ড আর সাইনবোর্ডে ঝুলছে একজনের ছবি। বিশাল আকৃতির ছবির সঙ্গে আছে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদেরও ছবি। বিশাল আকৃতির ওই নেতার নাম শাহরিয়ার রেজা হিমেল। করেন ছাত্রলীগের রাজনীতি। সে কারণেই সড়কের পাশের বিলবোর্ড আর অনেক বহুতল ভবনের ছাদেও শোভা পাচ্ছে সেই ব্যানার।

স্থানীয়রা জানান, বড় বড় বিলবোর্ডেই না বরং এলাকাতেই বেশ দাপটশালী এ হিমেল। রয়েছে বিশাল কর্মী বাহিনী। ধরাকে সরা জ্ঞান করেন তিনি। এলাকার সব কিছুই এখন তার নিয়ন্ত্রনে। ইশারার বাইরে হয় না কিছুই। আর এতে সব সময়ে তিনি ব্যহার করেন একজন প্রভাবশালী এমপি পুত্রের নাম। এলাকার লোকজনও জানে ওই এমপি পুত্র তার বন্ধু। সে কারণে ভয়ে তটস্থ থাকে সকলে।

ছাত্রলীগের জেলা কমিটির সহ সভাপতি হলেও সাংগঠনিক কার্যক্রমকে থোরাই করেন না তিনি। সেটার প্রমাণ মিলে ব্যানার ফেস্টুন আর বিলবোর্ডে। সেখানের কোথাও নেই ছাত্রলীগ নেতাদের ছবি। সভাপতি কিংবা সেক্রেটারী কারো ছবিই ঠাঁই পায়নি সেখানে।

ফতুল্লার সস্তাপুর, শিবু মার্কেট, কোতোয়ালেরবাগ সহ আশপাশ এলাকা মূলত হিমেলের নিয়ন্ত্রনে। সেখানে পান থেকে চুন খসলেও হিমেলকে অবহিত করতে হয়। এলাকাতে সবাই এক নামেই চিনে ‘হিমেল ভাই’।

গত বছরের শেষের দিকে রাস্তায় বালু রেখে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির প্রতিবাদ করায় বাবা ছেলে সহ অনন্ত ৫জনকে কুপিয়ে আহত করা হয়। হামলাকারীরা সস্তাপুর এলাকার মজিবর ও ছাত্রলীগ নেতা শাহরিয়ার রেজা হিমেলের অনুগামী জানা গেছে। ঘটনার পর হিমেল সেখানে উপস্থিত হয়ে জাকির নামের একজনকে গুলি করে দেওয়ার প্রকাশ্য হুমকি দেন। সেই সঙ্গে জাকির ও তার লোকজনদের ধরে আনার জন্য অনুগামীদের নির্দেশ দেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর
আজকের সবখবর