চাইলাম মেয়র হলাম চেয়ারম্যান


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৭:১১ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার
চাইলাম মেয়র হলাম চেয়ারম্যান

নারায়ণগঞ্জ শহরের বাবুরাইল জামে মসজিদের ৩য় তলা উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন।

বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারি বাদ আসর মসজিদের উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন মসজিদ কমিটির সভাপতি সালেহ মুহাম্মদ মুসা, সাধারণ সম্পাদক নিসার উদ্দিন কামাল, মুসলেহ উদ্দিনরহমান, মোঃ রিপন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব, জি এম আরমান, সাংগঠনিক সম্পাদক জি এম আরাফাত, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. আতিকুজ্জামান সোহেল, কার্যকরি সদস্য সাখাওয়াত হোসেন সুমন, সাবেক ছাত্রনেতা সেলিম হাসান দিনার, মোশাররফ হোসেন জনি, রাশেদুজ্জামান রিমন, হিরা ও সেন্টু প্রমুখ।

জেলা পরিষদের অর্থায়নে ১৫ লাখ টাকা ব্যয়ে তৃতীয় তলা নির্মাণে আধুনিক মিম্মর টি সকলের দৃস্টি আকৃষ্ট হয়।

আনোয়ার হোসেন বলেন, আমার শিক্ষা জীবনে মাদ্রাসা থেকে শিক্ষা পাঠ গ্রহণ করেছি। সে দেওভোগ মাদ্রাসাকে একটি ১ কোটি ৬৫ লাখ ব্যয়ে নতুন ভবন নির্মাণ করে দিচ্ছি। আমি ইতোমধ্যে দেওভোগ ডায়াবেটিক সেন্টার ফিজিও থেরাপী ও কিডনী যন্ত্র ক্রয়ে ৮০ লাখ ব্যয়ে টেন্ডার সম্পূর্ণ করেছি। নাগ মহাশয়ে নতুনভাবে নির্মাণ করা হয়েছে। এই এলাকার মানুষ যখন কোন কাজ নিয়ে যায়, তখন আমি দুর্বল হয়ে পড়ি। কারণ এই এলাকা থেকে আমি জনপ্রতিনিধি হয়েছি। মানুষের মধ্যে আল্লাহ রহমত পাওয়া যায়।

আনোয়ার বলেন, ছাত্র জীবনে বঙ্গবন্ধু হাত ধরে রাজনীতিতে আসা সময় তাঁর সাক্ষাৎ পেয়েছিলাম। তখন তিনি আমাকে বলেছিলেন, আনোয়ার মানুষের সাথে ভালো ব্যবহার করো, তাদের পাশে থাকো। মানুষের কল্যাণে রাজনীতি করেছি করে যাচ্ছি। মানুষের অন্যায় অপরাধ অত্যাচারের বিরুদ্ধে আমি সব সময় রুখে দাঁড়িয়েছি। আপস করি নাই, কাপুরুষের মত পালিয়ে যাইনি। অপরাধ অন্যায় বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে, এতে আমি নিগৃহীত হয়েছি নির্যাতিত হয়েছি।

তিনি আরো বলেন, আন্দোলন সংগ্রামের রাজনীতিতে শেষে আমি যখন নাসিক মেয়র নির্বাচন করতে চেয়েছিলাম। তখন প্রধানমন্ত্রী অনেক বিচক্ষণ। তখন তিনি আমাকে নাসিক মেয়র বদলে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মনোয়ন দেন। প্রধানমন্ত্রী চেয়েছিলেন আনোয়ারকে দিয়ে সিটি কর্পোরেশন শুরু এলাকা নয় পুরো জেলা জুড়ে উন্নয়নের কাজ করাতে হবে।

আনোয়ার বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের অর্থায়নে আড়াইহাজার কোটি কোটি টাকা বরাদ্ধ দিয়ে উন্নয়ন কাজ করেছি। বৃদ্ধাশ্রম ১ কোটি টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে, ইতিমধ্যে টেন্ডার শেষ হয়েছে কাজ শুরু হবে। আড়াইহাজার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে, পাঠাগারের দ্বিতীয় তলা কাজ সম্পূর্ণ করা পথে। রূপগঞ্জে আড়াই কোটি ব্যয়ে ডাকবাংলো প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। সোনারগাঁয়ে জৌতিবসু পাঠাগারে দেয়াল ও গেইট নির্মাণ করা হয়েছে। ৬০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে মসজিদ নির্মাণ কাজের টেন্ডার হবে। কুতুবপুরে জালকুড়িতে ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে।

চেয়ারম্যান আনোয়ার বলেন, মানুষের কল্যাণে কাজ করতে করতে ইতিমধ্যে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে ৪ বছর দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। জেলা পরিষদ যে সেবামূলক প্রতিষ্ঠান তা অনেকে জানতেন না। আমি দায়িত্ব নেয়া পর দৃষ্টামান সৃষ্টি করেছি। এই বাবুরাইল মসজিদে তৃতীয় তলা কাজের উদ্বোধন করতে পেয়ে আল্লাহ দরবারে শুকরিয়া আদায় করছি। কারণ মহান আল্লাহ আমার দায়িত্ব থাকা অবস্থায় এই মসজিদের তৃতীয় তলা সুন্দরভাবে নির্মাণ করতে সুযোগ দিয়েছে। শুধু মসজিদ করলেও হবে না, মুসল্লী এই মসজিদে ভরপুর থাকতে হবে। কারণ এই তৃতীয় তলা যদি শতাধিক মুসল্লী দোয়া করে তাহলে আমি মরে গেলেও আল্লাহ দরবারে আমার জন্য দোয়া পৌছাবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর