অসহায়কে তারেকের পক্ষে দিনার গৃহ নির্মাণ


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:৩০ পিএম, ০৪ মার্চ ২০২১, বৃহস্পতিবার
অসহায়কে তারেকের পক্ষে দিনার গৃহ নির্মাণ

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পক্ষে এক অসহায় পরিবারকে গৃহ নির্মাণ করে দিয়েছেন মানবতার মা খ্যাত নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ও মহানগর মহিলা দলের যুগ্ম আহবায়ক আয়শা আক্তার দিনা।

৪ মার্চ বৃহস্পতিবার বিকেলে জালকুড়িতে ঘরের মালিক বিল্লাল ও তার স্ত্রী হাসনা এবং আয়শা আক্তার দিনার উপস্থিতিতে ঘরের উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আবুল কাউসার আশা এবং ভিডিও কনফারেন্সে মোনাজাত পরিচালনা করেন কেন্দ্রীয় ওলামা দলের যুগ্ম আহবায়ক মাওলানা শামীম আহমেদ।

ঘরের মালিক বিল্লালের স্ত্রী হাসনা বলেন, আমাদের কাছে কোনো টাকা পয়সা ছিল না। ফলে ঘরও নির্মাণ করতে পারছিলাম না। পুরানো কাপড় চোপড় দিয়ে কোনো রকম বসবাস করে আসছিলনা। এমতাবস্থায় হঠাৎ একদিন কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনা আমাদের দেখে যান। পরে তিনি আমাদের জন্য একজ ঘর নির্মাণ করে যান। আমরা তার কাছে কৃতজ্ঞ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহাগনর যুবদলের সাবেক সদস্য দুলাল হোসেন, ৯নং ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতি রাকিবুল দেওয়ান, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন, মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক রাব্বী প্রধান ও সিদ্ধিরগঞ্জ স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা এস এ খান দিপু সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

প্রসঙ্গত, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে জয়ী হওয়ার পর থেকেই আয়শা আক্তার দিনা বিভিন্নভাবে জনকল্যাণে কাজ করে আসছেন। বিশেষ করে করোনাকালিন সময়ে আয়শা আক্তার দিনার ভূমিকা ছিল সাহসী করোনা যোদ্ধা। করোনা পরিস্থিতিতে তার সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডগুলোতে কর্মহীন মানুষকে কখনো নিজ অর্থায়নে কখনো সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সহায়তায় আবার কখনো দানশীল ব্যক্তি কিংবা প্রতিষ্ঠানের ব্যক্তিগত অনুদানে এ খাদ্য সহায়তা পৌছে দিয়েছেন তিনি।

অনেক সময় ঝড় বৃষ্টি উপেক্ষা করে নিজের সাংসারিক কাজ ফেলে রেখে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন তিনি। পাশাপাশি করোনাকালিন সময়ে গর্ভবতী নারীদের গর্ভকালীন সেবা নিশ্চিতে নিজ উদ্যোগে একজন গাইনি ডাক্তারের মাধ্যমে সেবার ব্যবস্থা করেছেন আয়শা আক্তার দিনা। গর্ভবতী মহিলার গর্ভকালীন ঔষুধ ও পুষ্টিকর খাদ্য সরবারহ করছেন তিনি। তার সহায়তায় অনেক দরিদ্র পরিবারের সন্তান পৃথিবীর আলোর মুখ দেখেছে। একই সাথে এসকল পরিবারের সদস্যদের মুখেও ফুটেছে হাসি। যে কারণে ইতোমধ্যে তাকে ‘মানববতার মা’ উপাধিতে ভূষিত করা হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর