আওয়ামী লীগ অফিস ভাঙচুরের মামলায় মামুনুল হক আসামী


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১১:৪৬ পিএম, ০৯ এপ্রিল ২০২১, শুক্রবার
আওয়ামী লীগ অফিস ভাঙচুরের মামলায় মামুনুল হক আসামী

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলায় রয়েল রিসোর্টে হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে নারী সহ অবরুদ্ধে তান্ডবের ঘটনায় আরো তিনটি মামলা হয়েছে। এ নিয়ে মামলার সংখ্যা দাঁড়ালো ৬টিতে। ওই ঘটনার পর রাতেই ভাঙচুর ও ব্যাপক তান্ডব চালানো হয় আওয়ামী লীগ কার্যালয় ও নেতাদের বাড়িঘরে।

তিনটি মামলায় উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি সোহাগ রনির বাবা হাজী শাহ জামাল তোতা ও মোগড়াপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক নাছির উদ্দিন পৃথকভাবে তিনটি মামলা করেছেন। ৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার রাতে এসব মামলা হয়।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় উপজেলা যুবলীগের প্রচার সম্পাদক নাসির উদ্দীন বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। মামুনুল হককে প্রধান আসামি দেখিয়ে স্থানীয় হেফাজত ও বিএনপির ১১১ নেতাকর্মীর নাম উলে­খ করে এবং অজ্ঞাত ৩০০ জনকে মামলার আসামি করা হয়।

হাজী শাহ জামাল তোতার মামলায় ২০ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরও ৩০ থেকে ৪০ জনকে আসামী করা হয়। এর মধ্যে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

রফিকুল ইসলাম নান্নু বাদী হয়ে ১২০ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরও ৫০ থেকে ৬০ জনকে আসামী করে শুক্রবার (৯ এপ্রিল) মামলাটি করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ‘৩ এপ্রিল বিকেল ৫টায় সোনারগাঁয়ের রয়েল রিসোর্টের ৫০১ নাম্বার কক্ষে মামুনুল হককে নারী সহ অবরুদ্ধ করে রাখে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু, ছাত্রলীগ নেতা মোহাম্মদ হোসাইন, জেলা ছাত্রলীগ সাবেক সহ সভাপতি সোহাগ রনি সহ অনুগামী যুবলীগ, ছাত্রলীগ সহ স্থানীয় কয়েকজন। তারা মামুনুল হকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। খবর পেয়ে সেখানে যান সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আতিকুল ইসলাম, এসিল্যান্ড গোলাম মোস্তফা মুন্না, নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) টিএম মোশাররফ হোসেন, সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তবিদুর রহমানসহ স্থানীয় সাংবাদিকরা।  সন্ধ্যা ৭টায় মামুনুল হককে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে খবর পেয়ে স্থানীয় হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা রয়েল রিসোর্টের সামনে বিক্ষোভ শুরু করে। তারা রিসোর্টের প্রধান ফটক ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করে ভাঙচুর করতে শুরু করে। পরে কয়েকজন হেফাজতের নেতারা গিয়ে পুলিশের কাছ থেকে মামুনুল হককে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এসময় রিসোর্টের বাইরে থাকা কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে। আর একদল বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মী উপজেলার মোরগাপাড় মোড়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বাশ, কাঁঠে আগুন দিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। এসময় কয়েকটি গাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। রাত পৌনে ৯টায় পুলিশ গিয়ে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের ধাওয়া দিয়ে ও ফাঁকা গুলি ছুড়ে সরিয়ে দেয়। পরে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।’

৩ এপ্রিলের ঘটনার পরদিন মুফতি ফয়সাল মাহমুদ হাবিবী বাদী হয়ে সোনারগাঁও থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। এতে তিনি উল্লেখ করেন, ‘মামুনুল হক ৩ এপ্রিল সোনারগাঁয়ে রয়েল রিসোর্টে সম্পূর্ণ নিয়মকানুন মেনে স্ত্রী সহ অবস্থান করেন। হোটেল মালিক সাইদুর রহমান নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হন। এলাকার কতিপয় সন্ত্রাসী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি সোহাগ হোসেন রনির নেতৃত্বে কতিপয় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি মামুনুল হকের উপর হামলা চালায়। তার জামার কলার ছিড়ে ফেলে, দাড়ি ধরে টান দেয়, শারিরীক ভাবে লাঞ্ছিত করে, অশ্লীল, অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে, গাড়ির চাবি, ম্যানিব্যাগ ছিনিয়ে নেয়।’

সোনারগাঁ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ইয়াউর রহমান সরকারি কাজে বাধা, পুলিশের ওপর হামলা ও রয়্যাল রিসোর্ট ভাঙচুরের ঘটনায় ৪১ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ২৫০-৩০০ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। মামলায় প্রধান আসামি করা হয় মামুনুল হককে। এ ছাড়া এ মামলায় সোনারগাঁ পৌরসভা জাতীয় পার্টির সভাপতি এম এ জামান, সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম, মোগরাপাড়া চৌরাস্তা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব মহিউদ্দিন খান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মসজিদের খতিব ইকবাল হোসেনসহ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের আসামি করা হয়।

এসআই আরিফ হাওলাদার বাদী হয়ে যানবাহনে অগ্নিসংযোগ ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনে আরও একটি মামলা করেন। এ মামলায় ৪২ জনের নাম উল্লেখ ও ২৫০-৩০০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়। এ মামলায় আসামি করা হয়েছে হেফাজতে ইসলাম, জাতীয় পার্টি ও বিএনপি নেতা-কর্মীদের।

অপর মামলাটি করেন হেফাজতে ইসলামের কর্মীদের হামলায় আহত স্থানীয় এস এ টেলিভিশনের নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি হাবিবুর রহমান। এ মামলায় ১৭ জনের নাম উল্লেখ ও ৭০-৮০ জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামি করা হয়

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর