হাল ধরেছেন চেয়ার পায়নি


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:৩১ পিএম, ১২ এপ্রিল ২০২১, সোমবার
হাল ধরেছেন চেয়ার পায়নি

নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের প্রয়াত সাংসদ নাসিম ওসমানের সহধর্মিনী পারভীন ওসমানের জন্মদিন উপলক্ষ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে পোস্ট দিচ্ছেন তার শুভাকাঙ্খি ও অনুসারীরা। নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের মধ্যে একটি অংশ তাঁকে জননী উপাধি দিয়েছেন। ১০ এপ্রিল ছিল তাঁর জন্মদিন।

প্রসঙ্গত, গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন পারভীন ওসমান। তিনি তখন বলেছিলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ জাতীয় পার্টি মানেই নাসিম ওসমান। নাসিম ওসমান আমাকে বলে গেছে, আমার অনুপস্থিতিতে তুমি দলের হাল ধরবে এবং রাজনীতি করবে। কে চাপ দিল, না দিল সেটা নিয়ে আমার কোনো মাথাব্যাথা নেই।’

সংশ্লিষ্ট তথ্য মতে, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের প্রয়াত এমপি নাসিম ওসমানের স্ত্রী পারভীন ওসমান সবশেষ অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বামীর আসনে মনোনয়ন চেয়ে ব্যর্থ হন। ওই সময়ে অনেকেই ধারণা করেছিলেন হয়তো সংরক্ষিত নারী আসনের এমপিত্ব জুটতে পারে পারভীন ওসমানের কপালে যাঁর দুইজন দেবর সেলিম ওসমান ও শামীম ওসমান দুইজনই সংসদ সদস্য।

ওই বছর ৯ জানুয়ারি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি খন্দকার দেলোয়ার জালালী প্রেরিত বিজ্ঞপ্তিতে পারভীন ওসমান সহ চারজন সম্ভাব্য নারী এমপির নাম প্রকাশ করা হয়। বাকি ৩জন হলেন ডা. শাহীনা আক্তার (কুঁড়িগ্রাম), নাজমা আখতার (ফেনী), মনিকা আলম (ঝিনাইদহ)।

এছাড়াও এখানে আরেকটি বিষয় উল্লেখ্য নারায়ণগঞ্জ জেলা থেকেও কোন নারী এমপির নাম দেয়নি আওয়ামী লীগ। ফলে অনেকটাই নিশ্চিত ছিল যে পারভীন ওসমান হতে যাচ্ছেন সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি।

কিন্তু এক মাসের ব্যবধানে ১১ ফেব্রুয়ারী সে তালিকাতে বড় ধরনের রদবদল পাওয়া যায়। এদিন জাতীয় পার্টির চারজনের তালিকাতে আছেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম, প্রেসিডিয়াম সদস্য রওশন আরা মান্নান, মাসুদা এম রশিদ ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা নাজমা আখতার। তাদের মধ্যে নাজমা আক্তার ছাড়া বাকি তিনজনের নামেই রদবদল হয়েছে।

প্রসঙ্গত পারভীন ওসমান নারায়ণগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী ওসমান পরিবারের জেষ্ঠ্যপুত্র প্রয়াত নাসিম ওসমানের সহধর্মিনী। প্রয়াত এ.কে.এম সামসুজ্জোহার পাঁচ সন্তানের মধ্যে জেষ্ঠ্য সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত নাসিম ওসমান। তিনি ছিলেন নারায়ণগঞ্জের গণমানুষের প্রাণের নেতা। তিনি ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে সুইসাইড স্কোয়াডে যুদ্ধ করেছেন। পরবর্তীতে ১৯৭৫ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বপরিবারে নিহত হওয়ার পর নববিবাহিত বধূকে রেখে বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিশোধ নিতে সশস্ত্র যুদ্ধে অবতীর্ণ হন এবং কাদেরিয়া বাহিনিতে যোগদান করেন। পরবর্তীতে ১৯৮১ সালে তিনি দেশে ফিরে আসেন। প্রয়াত নাসিম ওসমান ১৯৮৬ ও ১৯৮৮ সালে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী এবং ২০০৮ ও ২০১৪ সালে মহাজোট প্রার্থী হিসেবে জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন। নারায়ণগঞ্জের ইতিহাসে তিনি সর্বাধিক ৪ বারের নির্বাচিত জাতীয় সংসদের সদস্য। ২০১৪ সালের ৩০ এপ্রিল তাঁর অকাল মৃত্যুতে সংসদ অধিবেশনে শোক প্রস্তাব রাখতে গিয়ে অজোড়ে কেঁদে ছিলেন সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর