মসজিদ কমিটিতেও ক্ষমতার দাপট, মুসল্লীদের ক্ষোভ


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:২৪ পিএম, ০৪ অক্টোবর ২০২০, রবিবার
মসজিদ কমিটিতেও ক্ষমতার দাপট, মুসল্লীদের ক্ষোভ

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় একটি মসজিদের কমিটি গঠন নিয়ে তুলকালাম কান্ড ঘটেছে। ওই কমিটিতে স্থান পেয়েছেন ক্ষমতাসীন দলের অনুগামীরা। উপেক্ষা করা হয়েছে নিয়মিত নামাজীদের। আর ওই কমিটি গঠন করতে ছুটে যেতে হয়েছে নারায়ণগঞ্জের আওয়ামী লীগের দুইজন প্রভাবশালী নেতাকেও।

ওই দুই নেতা হলেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হক নিপু।

সাধারণত মসজিদ কমিটি গঠন করে এলাকার মুরুব্বীরা। কিন্তু ওই কমিটি গঠন ও ঘোষণার সময়ে এ দুই নেতাকেই দেখা গেছে জিন্সের প্যান্ট ও শার্ট পরিহিত অবস্থায়।

এ নিয়ে স্থানীয়ভাবেও রয়েছে নানা ক্ষোভ।

জানা গেছে, ফতুল্লার তক্কার মাঠ সংলগ্ন বায়তুল আমান কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কমিটি গঠনের লক্ষে গত ৬ সেপ্টেম্বর কমিটির সভায় ৩ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি করা হয়। তাঁরা হলেন আহবায়ক হাজী সামছুল হক, সদস্য সচিব ইলিয়াছ মাতবর ও সদস্য আবুল বাশার।

শনিবার ৩ অক্টোবর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সানোয়ার হোসেন জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক বিএম কামরুজ্জামানের নাম ঘোষণা করা হয়। আর এতে উপেক্ষিত রাখা হয় তিন সদস্যের আহবায়ক কমিটির মতামত।

আহবায়ক হাজী সামছুল হক গণমাধ্যমকে জানান, আমরা চেয়েছিলাম ধর্মপ্রান নামাজী ব্যক্তিদের মাধ্যমে একটি কমিটি করব। প্রয়োজনে এই মসজিদের মুসল্লিদের ভোটের মাধ্যমে নেতৃবৃন্দ নির্বাচিত করবো। কিন্তু সেটা হয়নি। বরং বহিরাগতরা এসে কমিটি দিয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা আল্লাহর ঘর নিয়ে কোন সংঘাত চাইনা। যারা আল্লাহর ঘরকে নিয়ে তামাশা করছে তারা অশ্যই মারাত্মক গুনাহের কাজ করছে। তাদের কমিটি ঘোষণা করা অবৈধ। আহবায়ক কমিটির মেয়াদের মধ্যে নতুন কমিটি ঘোষণা করার কোনই এখতিয়ার নেই সাবেক কমিটির নেতৃবৃন্দের। ক্ষমতার লোভ লালসার জন্য তারা অবৈধ কমিটি করেছে। তাদের কারণে শান্তিপ্রিয় তক্কার মাঠ এলাকায় এখন উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনায় যে কোন সময় সংঘর্ষ হওয়ার আশংকাও রয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর