হাজীগঞ্জে ঈদগাহ সংকট নিরসন


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:০৭ পিএম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শুক্রবার
হাজীগঞ্জে ঈদগাহ সংকট নিরসন

ফতুল্লা থানার হাজীগঞ্জ এলাকায় নবুমিস্ত্রী ঈদগাহ ময়দানে ঘর নির্মাণকে কেন্দ্র করে যে উত্তেজনা বিরাজ করছিলো তা বর্তমান কমিটি স্থগিত করে সাময়িক সমাধান করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বাদ জুমা হাজীগঞ্জ নবুমিস্ত্রী জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত জরুরি বৈঠকে তিনমাসের জন্য নতুন আহ্বায়ক কমিটির ঘোষণা দেওয়া হয়। তাতে আহ্বায়ক হিসেবে নিজের নাম ঘোষণা করেন মসজিদের প্রবীন মোতায়াল্লি এহসান কাদির রুমী। একই সাথে তিনি এও ঘোষণা দেন আগামী ঈদের জামাত ঈদগাহ ময়দানে হবে এবং আহ্বায়ক কমিটি পূর্ববর্তী কমিটির হিসাব-নিকাশ তদন্ত করবে।

আহ্বায়ক নিজের নামের পাশাপাশি আরও দু’জনের নাম ঘোষণা করেন। তারা হলেন কোষাধ্যক্ষ নুরুজ্জামান ও দপ্তর সম্পাদক মিলন মাস্টার।

আগামী রোববার বাদ মাগরিব পরবর্তী বৈঠকে ১২ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটির অপর সদস্যদের নাম জানানো হবে।

বৈঠকে পূর্ববর্তী কমিটির সভাপতি মোবারক হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সবুর মোল্লা, মসজিদের খতিব মুফতি ইমরান হোসেনসহ শতাধিক মুসুল্লি উপস্থিত ছিলেন।

তবে ঈদগাহ মাঠে ঘর নির্মাণের বিষয়ে কোনও কর্থা ওঠেনি শুক্রবারের বৈঠকে। ঘর নির্মাণ হবে কি না এ বিষয়টিও পরিস্কার হয়নি।

ঈদগাহ মাঠের ঘর নির্মাণের বিষয়টি সমাধান না করে কমিটি কেন ভাঙলো তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে অনেকে। তারা বলেন, এখানে সুক্ষ্মভাবে মূল বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়া চেষ্টা করা হয়েছে। ঈদগাহকে সামনে রেখে কমিটি ভাঙার খেলা চলছে। গণসাক্ষর নেওয়া হয়েছিলো ঈদগাহ রক্ষার দাবিতে। কিন্তু বৈঠকে এই প্রসঙ্গ এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে।

তবে আরেক পক্ষের দাবি সবার সাথে কোনও প্রকার আলোচনা না করে ঈদগাহ মাঠে ঘর নির্মাণের সিদ্ধান্ত সঠিক ছিলো না বর্তমান কমিটির। আর সেজন্যই পরিস্থিতি ঘোলাটে হয়েছে। এর দায় বর্তমান কমিটি এড়াতে পারে না। কমিটি স্থগিত করে মোতায়াল্লি সাহেব ঠিক কাজটিই করেছেন।

প্রসঙ্গত, ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ডে অবস্থিত হাজীগঞ্জ নবুমিস্ত্রী জামে মসজিদ। এই নামেই প্রায় ৬৬ শতাশং জমির ওপর একটি ঈদগাহ মাঠ রয়েছে। ৭/৮ বছর আগে একবার এই মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছিলো। তারপর থেকে এই ঈদগাহে ঈদের জামাত বন্ধ রয়েছে। এই ঈদগাহের পশ্চিম পাশে বেশ কয়েকটি টিনসেড ঘর করে সেগুলো ভাড়া দেওয়া হয়েছে। এখান থেকে প্রাপ্ত অর্থ এবং দান-অনুদানের অর্থ মিলিয়ে মসজিদের উন্নয়ন ও ইমাম-মুয়াজ্জিন-খাদেমের সম্মানী ভাতাসহ যাবতীয় ব্যয় মেটানো হয়।

গত রোববার মসজিদ কমিটি ঈদগাহ মাঠে আরও বেশ কয়েকটি ঘর নির্মাণ কাজ করতে গেলে স্থানীয় লোকজন তাতে বাধা দেয়। এ সময় মসজিদ কমিটির সাথে নির্মাণ কাজে বাধা প্রদানকারীদের কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে পরিস্থিতি অশান্ত হয়ে ওঠলে মসজিদ কমিটি কাজ বন্ধ রাখে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর