লক্ষণখোলায় খেলার মাঠ ইস্যুতে বাকবিতন্ডা


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:৫৮ পিএম, ১১ অক্টোবর ২০২১, সোমবার
লক্ষণখোলায় খেলার মাঠ ইস্যুতে বাকবিতন্ডা

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার ২৫নং ওয়ার্ডে লক্ষ্মণখোলা চৌরাপাড়া এলাকায় খেলার মাঠে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃক ওয়ার্কশপ নির্মাণ কাজে বাধা দিয়েছে এলাকাবাসী। সোমবার ১১ অক্টোবর বিআইডব্লিউটিসির কর্মকর্তারা শ্রমিক নামধারী শতাধিক সন্ত্রাসীদের নিয়ে মাঠ দখলের চেষ্টা করলে এলাকাবাসী বাধা দেয়। এসময় বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও বন্দর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম এ রশিদের ভাতিজা নয়নের নেতৃত্বে শ্রমিক নামধারী সন্ত্রাসীরা এলাকাবাসীর উপর চড়াও হয়। এসময় উভয়পক্ষের মধ্যে তুমুল বাকবিতন্ডায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এসময় সন্ত্রাসীরা এলাকাবাসীকে দেখে নেওয়ারও হুমকী দেয়। এ ঘটনায় লক্ষ্মণখোলা চৌরাপাড়া এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা গেছে, শীতলক্ষ্যা নদী বিধৌত নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ২৫ নং ওয়ার্ড বন্দরের চৌরাপাড়া এলাকাটি মনোরম প্রাকৃতিক সৌন্দর্যবেষ্ঠিত একটি জনবহুল এলাকা। এই এলাকার ছেলেরা ফুটবল, ভলিবলসহ বিভিন্ন খেলাধুলায় জাতীয় পর্যায়ে অবদান রাখছে। কিন্তু খেলাধূলা চর্চার জন্য এখানে কোন মাঠ নেই।

এলাকাবাসী জানান, নদী তীরের বিআইডব্লিউটিসির ভাসমান ডকইয়ার্ডের মাঠটি খেলাধুলা চর্চার একমাত্র ভরসা। সুপ্রাচীনকাল থেকে এলাকার মানুষ এই মাঠে খেলাধূলাসহ নানা অনুষ্ঠানাদির আয়োজন করে আসছেন। ভাসমানের ডকইয়ার্ডের একটি ওয়ার্কশপ থাকা সত্ত্বেও বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ মাঠটিতে আরেকটি ওয়ার্কশপ নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ওয়ার্কশপ করা হলে ধ্বংস হবে খেলার মাঠ। যুব সমাজ ও মানুষ বাঁচাতে খেলার মাঠ এবং মনোরম প্রকৃতি রক্ষার দাবি জানান এলাকাবাসী। ইতিমধ্যে খেলার মাঠ রক্ষার দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছেন এলাকাবাসী। নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক, নাসিক মেয়র ও স্থানীয় এমপির কাছে এ ব্যাপারে স্মারকলিপিও দিয়েছেন এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী আরো জানান, বন্দরের নবীগঞ্জ, কাইতাখালী, সোনাচোরা এলাকায় বিআইডব্লিউটিসি’র ৪ টি ডকইয়ার্ড রয়েছে। যেগুলোতে অচল অবস্থায় পড়ে আছে অসংখ্য জাহাজ। ওই ডক ইয়ার্ডগুলোতে কোনো জাহাজ সংস্কার বা মেরামত করা হয়না। এই ৪ টি ডকইয়ার্ড বর্তমানে বেকার পড়ে আছে। তা সত্ত্বেও বিআইডব্লিউটিসি খেলার মাঠ নষ্ট করে এবং নদীর পাড় সংলগ্ন মনোরম প্রকৃতি ধ্বংস করে চৌরাপাড়া বিআইডব্লিউটিসি খেলার মাঠে ওয়ার্কশপ নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। ৪টি ডকইয়ার্ড সংস্কার করে সচল করার উদ্যোগ নিলে খেলার মাঠটি ধ্বংস করার প্রয়োজন পড়েনা।

সোমবার ১১ অক্টোবর দুপুরে বিআইডব্লিউটিসি’র চৌরাপাড়া খেলার মাঠে নির্মাণ কাজ শুরু করতে আসেন বিআইডব্লিউটিসির উর্ধ্বতন কর্মকর্তার।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) জেসমিন আরা বেগম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী স্বদেশ প্রসাদ মন্ডল, সহ মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মোঃ মইনূল হাসানসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা। এসময় বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ রশিদের ভাতিজা নয়নের নেতৃত্বে শ্রমিক নামধারী শতাধিক সন্ত্রাসীও উপস্থিত ছিল। বিআইডব্লিউটিসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মাঠে এসেছে এবং নির্মাণ কাজ শুরু করতে যাচ্ছে এহেন খবর পেয়ে এলাকাবাসী সেখানে ছুটে যান। যুব সমাজের স্বার্থে খেলার মাঠটি রক্ষা করা দরকার জানিয়ে এলাকাবাসী কর্মকর্তাদের কথা বলতে গেলে এলাকাবাসীর উপর চড়াও হয় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রশিদের ভাতিজা নয়নের নেতৃত্বাধীন শ্রমিক নামধারী সন্ত্রাসীরা। তারা এলাকাবাসীর সঙ্গে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে এবং এলাকাবাসীকে নানা হুমকি ধামকি দেয়। তবে এলাকাবাসীর বাধার মুখে শেষ পর্যন্ত খেলার মাঠে ওয়ার্কশপ নির্মাণ করতে না পেরে ফিরে যান বিআইডব্লিউটিসির কর্মকর্তারা।

বিআইডব্লিউটিসির মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) জেসমিন আরা বেগম বলেন, বিআইডব্লিউটিসি’র বহরে আরও ৫৬টি জাহাজ যুক্ত হচ্ছে। এগুলোর রক্ষণাবেক্ষণের জন্য জায়গা দরকার। তাই এ স্থানে ওয়ার্কশপ নির্মাণ করা হবে।

উল্লেখ্য খেলার মাঠ সংরক্ষণের বিষয়ে ২০১৪ সালের ১৪ মে দেশের সব খাল, খেলার মাঠ ও পার্ক রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সরকারকে নির্দেশ দেন হাইকোটের্র একটি বেঞ্চ। এছাড়া খেলার মাঠ সংরক্ষণেরও তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর