ক্ষিপ্ত তৈমুর দেখিয়ে দিবেন কাজী মনিরকে

|| নিউজনারায়ানগঞ্জ২৪.নেট ০১:০১ এএম, ১ জানুয়ারি ২০১৫ বৃহস্পতিবার

ক্ষিপ্ত তৈমুর দেখিয়ে দিবেন কাজী মনিরকে
নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুজ্জামানের বক্তব্যে ক্ষেপে গেছেন জেলা বিএনপির সভাপতি কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার। মঙ্গলবার দুপুরে আদালতপাড়ায় মামলার জামিন নিতে আসা ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে করে বক্তব্য দেন তৈমুর আলম খন্দকার। ওইসময় পত্রিকায় প্রকাশিত কাজী মনিরের বক্তব্য তুলে ধরে কাজী মনিরকে অকৃতজ্ঞ আখ্যা দিয়ে গালিগালাজও করেছেন তৈমুর। এবার তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ২৫ তারিখে ২০ হাজার নেতাকর্মীদের নিয়ে রূপগঞ্জে শো-ডাউন করে গণসংযোগ করবেন। আর এ কর্মসূচির প্রধান সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহাবুব রহমান।   সূত্রমতে, মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় বেশকয়েকটি মামলায় হাজির দিতে উপস্থিত হয় জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহাবুব রহমানসহ অর্ধশত ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার স্থানীয় পত্রিকায় কাজী মনিরের বক্তব্য প্রকাশিত হয়। যেখানে রূপগঞ্জে তৈমুর আলমের গণসংযোগ নিয়ে কাজী মনির বিরুপ মন্তব্য করেছিলেন। যে কারনে তৈমুর আলম খন্দকার ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের বলেছেন, কাজী মনির একজন অকৃতজ্ঞ। সোমবার আমি তার মামলার জামিন করিয়ে দিলাম। সে আমার সাথে দেখাটাও করেনি। এমনকি পত্রিকায় আমার বিরুদ্ধে বিবৃতি দিয়েছে। আমি নাকি আত্মীয়স্বজন নিয়ে রূপগঞ্জে গণসংযোগ করি। তাই ২৫ তারিখে ২০ হাজার নেতাকর্মীদের নিয়ে রূপগঞ্জে শো-ডাউন করা হবে।   ** তৈমুরে অসন্তোষ কাজী মনিরের (সংবাদটি পড়তে ক্লিক করুন)   নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহাবুব রহমান নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আগামী ২৫ তারিখে তৈমুর আলম খন্দকার রুপগঞ্জে ২০ হাজার নেতাকর্মীদের নিয়ে শো-ডাউন করে গণসংযোগ করবেন।   এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, রূপগঞ্জের নেতাকর্মীরা সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা একটা কর্মসূচি পালন করবে। আমি সেখাবে থাকব। আর আমি এমপি-মন্ত্রী হওয়ার জন্য রাজনীতি করি না। আমি দলকে ভালবাসি। আমি দলকে শক্তিশালী করতে বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ শো-ডাউন করছি। এমপি-মন্ত্রী হওয়ার জন্য না। যারা মনোনয়ন শিকারী তাদের এ বিষয়ে চিন্তার কোন কারণ নেই। যারা ভাগ্যে নারায়ণগঞ্জে কিংবা রূপগঞ্জে এমপি হওয়া সৃষ্টিকর্তা লিখেছেন সেই এমপি-মন্ত্রী হবেন। আমার দায়িত্ব বেগম খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী করা এবং তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনায় কাজ করা। রূপগঞ্জে গণসংযোগ করি বলে কারো হৃদযন্ত্র নষ্ট করার দরকার নেই।   উল্লেখ্য যে, সোমবার আদালতপাড়ায় একটি মামলায় হাজির শেষে বিএনপি পন্থী আইনজীবী ও নেতাকর্মীদের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কাজী মনির। সোমবার দুপুরে আইনজীবী সমিতির তথ্য কেন্দ্রে বসে কাজী মনির এক পর্যায়ে তৈমুর আলমের বিরুদ্ধে কঠোর সমালোচনা করেছেন। ওই সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় জাসাসের সহ-সভাপতি আনিসুল ইসলাম সানি, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানসহ বিএনপি পন্থী আইনজীবী ও স্থানীয় সাংবাদিকদের কয়েকজন।     কাজী মনির বলেন, বেগম খালেদা জিয়া আমাকে রূপগঞ্জ আসনে কাজ করতে বলেছেন। কিন্তু তৈমুর আলম খন্দকার একশ দেড়শ লোজজন রূপগঞ্জে গণসংযোগ করেন। রূপগঞ্জে তৈমুর আলমের কোন নেতাকর্মী নেই। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে কাজ করে তিনি রূপগঞ্জে বিরোধ সৃৃষ্টি করছেন। তৈমুর আলম খন্দকার নিজেই তার দুর্বলতার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন।  

বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও