উকিলপাড়া সুউচ্চ ফটক ও মনোমুগ্ধকর আলোকসজ্জা

|| নিউজনারায়ানগঞ্জ২৪.নেট ০১:০১ এএম, ১ জানুয়ারি ২০১৫ বৃহস্পতিবার

উকিলপাড়া সুউচ্চ ফটক ও মনোমুগ্ধকর আলোকসজ্জা
সনদ সাহা সানি : হোসিয়ারী পল্লীখ্যাত শহরের উকিলপাড়া এলাকার প্রধান আকর্ষণ শারদীয় দূর্গোৎসব উপলক্ষ্যে প্রতিবছরের মতো শহরের বিবি রোডের উপর বিশালাকারের সুউচ্চ গেট। এছাড়া উকিলপাড়া প্রবেশ পথের সড়কে মনোমুগ্ধকর আলোকসজ্জা যা দৃষ্টি আকর্ষণ করে দূরদূরান্তের দর্শনার্থীদের। এবছর পূজার মোট ব্যয়ের বেশিভাগ অংশ ব্যয় করা হয় সুউচ্চ গেট নির্মাণে। গেটের ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ লাখ টাকা। সুউচ্চ গেটে মন্দিরের দুর্গা পূজার সকল দেবদেবীর প্রকাশ করতে চেষ্টা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন উকিলপাড়া দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি কৃষ্ণ সাহা।   দুর্গাপূজার আরো সংবাদ পড়তে নিচে ক্লিক করুন    তিনি আরো বলেন, এবছর পূজার ব্যয় ঠিক করা হয়েছে ২০ লাখ টাকা। যা গতবছরের তুলনায় ৫ লাখ টাকা বেশি। গেইট ছাড়া ম-পের ভিতরের কারুকাজে ও প্রতিমা তৈরিতে বাকি অর্থ ব্যয় করা হবে।   পূজা ম-পে নিত্য নতুন কিছু দেওয়ার জন্য ম-পে কর্কশিটের উপর নিক্ষুদ কারুকাজসহ বিভিন্ন রঙয়ের ব্যবহার করা হয়েছে। আর এসব কাজের জন্য দেশীয় চারুকারু শিল্পীদের সাথে ভারতের শিল্পীও আছে। গত ১ মাস যাবৎ তারা দিনরাত কাজ করতে হয়েছে ম-পের ভিতরের সাজসজ্জার জন্য। আমাদের পূজাম-পের জায়গা কম থাকার কারণে আমাদের প্রধান দৃষ্টি দেয়া হয় মায়ের প্রতিমা এবং গেইটে। আমাদের পূজা মন্ডেপের জায়গা অনেক কম। অনেক কারুকাজ করতে চাইলেও করতে পারি না। প্রতিবছরের মতো এই বছরও সরকারী অনুদান পেয়েছি ৩ হাজার ৬০০ টাকা। নিরাপত্তার জন্য প্রশাসনে পক্ষ থেকে বলা হয়েছে রাস্তার পাশে কোন দোকান বসতে না দিতে ও রেললাইনে আলোকসজ্জা করতে। দর্শনাথীদের সাহায্য সহযোগিতা করতে ৫০ জন স্বেচ্ছাসেবক কাজ করবে।   তিনি আরো বলেন, মা সকলের জন্য আনন্দ নিয়ে আসেন। পৃথিবী থেকে অপরাধের বিনাশ করে থাকেন। পূজার পরে কোরবানীর ঈদ পূজা শেষ করে আমরা ঈদের আনন্দ উপভোগ করবো তাই কোন প্রকার দূর্ঘটনা যেন না ঘটে পুলিশ প্রশাসনের পাশাপাশি আমাদের সেচ্ছাসেবক কর্মী আছে।  

বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও