মহানগর ছাত্রদলের ৬ ইউনিটের কমিটি গঠন, চার আহবায়ক জানেই না

|| নিউজনারায়ানগঞ্জ২৪.নেট ০১:০১ এএম, ১ জানুয়ারি ২০১৫ বৃহস্পতিবার

মহানগর ছাত্রদলের ৬ ইউনিটের কমিটি গঠন, চার আহবায়ক জানেই না
নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম সজল তিন থানা ছাত্রদলের ৪ কমিটি, নারায়ণগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ও নারায়ণগঞ্জ সরকারী তোলারাম কলেজ শাখা কমিটি গঠন করেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে এসব কমিটি ঘোষণা করা হয়। এসময় মহানগর ছাত্রদলের অন্যান্য যুগ্ম আহ্বায়করা উপস্থিত ছিলেন না। আর এ কমিটি গঠনে মহানগর ছাত্রদলের আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম সজলের বিরুদ্ধে ওঠেছে কমিটি বাণিজ্যের অভিযোগ। কমিটির অন্যান্য যুগ্ম আহ্বায়কদের অভিযোগ- মনিরুল ইসলাম সজল অগঠনতান্ত্রিকভাবে ছাত্রদলের কমিটি গঠন করেছে। সজল আর্থিকভাবে লাভবান হয়ে কমিটি বাণিজ্য করেছে। যে কারণে সে এ কমিটি গঠন করেছে। মহানগরের ৬জনের আহবায়ক কমিটির মধ্যে অনুমোদনকৃত কমিটিতে সজলের একক স্বাক্ষর থাকলেও যুগ্ম আহবায়ক রাশিদুর রহমান রশো সমর্থন দিয়েছে কমিটির প্রতি।   অভিযোগ রয়েছে, একটি সিন্ডিকেট করে জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর আলম খন্দকার সমর্থিতদের প্রাধান্য দিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। আর এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে আওয়ামী লীগের একটি ইন্ধন রয়েছে। কমিটির প্রতি যাদের সমর্থন রয়েছে তাদের মধ্যে একজন যুগ্ম আহবায়ক নারায়ণগঞ্জ শহরে মাদকাসক্ত হিসেবেই পরিচিত। তবে জেলা বিএনপির একজন আত্মীয়।   এও অভিযোগ রয়েছে, গঠনতান্ত্রিকভাবে গঠিত কমিটি গঠনের পেছনে জেলা বিএনপির একজন শীর্ষ নেতার মৌন সম্মতি রয়েছে যার বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের সঙ্গে গোপন আতাতের অভিযোগ রয়েছে। ওই নেতার কথামতই তার অনুগামী ও তোষামেদকারী কয়েকজনকে কমিটিতে স্থান দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।   নারায়ণগঞ্জ সদর থানা ছাত্রদলের সাত সদস্য বিশিষ্ট কমিটিতে সভাপতি রাফিউদ্দিন আহম্মেদ রিয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক শেখ মাগফুর ইসলাম পাপন, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম আপন, সিনিয়র সহ-সভাপতি এমএএম সাগর, সহ-সভাপতি আব্দুর সাত্তার, যুগ্ম সম্পাদক জাহিদ হোসেন খন্দকার ও ফারহান আহম্মেদ নাঈমকে যুগ্ম সম্পাদক করা হয়।   বন্দর উপজেলা ছাত্রদলের হারুন অর রশিদ লিটনকে সভাপতি ও শাহাদুল্লাহ মুকুলকে সাধারণ সম্পাদক করে সাত সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। সিনিয়র সহ-সভাপতি এসএম নুরুজ্জামান, ১ম যুগ্ম সম্পাদক আব্দুস সাত্তার, যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আল-আমিন ভ্ইুয়া জনি ও দপ্তর সম্পাদক করা হয় বিজয় হোসেন পনিরকে।   বন্দর থানা ছাত্রদলের মোহাম্মদ রাসেলকে আহ্বায়ক করে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন আশিকুর রহমান আলী, কামরুল হাসান রনি, রাহিদ ইসতিয়াক, জনি মোল্লা, শিপলু, মহসিন, অহিদুর রহমান, অহিদুজ্জামান শাহজাদা, বাপ্পী দেওয়ান, জাহিদ হাসান দিপু, মুনজুর হোসেন ও শামীম মিয়া।   সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্রদলের কমিটির সভাপতি মমিনুর রহমান বাবু ও রিপন সরকারকে সাধারণ সম্পাদক করে ৯ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয় এরশাদ আলী, সিনিয়র সহ-সভাপতি আহসান খলিল শ্যামল, সহ-সভাপতি আলী নূর হোসেন, সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম সাগর, যুগ্ম সম্পাদক রিয়াজুল আলম ইমন, শাহরিয়ার খান তুষার ও সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয় নাইম সিদ্দিক তুষারকে।   সরকারী তোলারাম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখা ছাত্রদলের ৭ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটি ঘোষণা দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে কাওসার আহমেদকে সভাপতি ও সাইদুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। আশিকুর রহমান অনি সিনিয়ার সহ সভাপতি, মোঃ মাসুদ রানা সহ সভাপতি, শাহ্জালাল যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, বাইজিত আল কাউছার সাংগঠনিক সম্পাদক, মোঃ রফিকুল ইসলাম সহ সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়।   নারায়ণগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখায় জোবায়ের আলম ঝলক সভাপতি, সাইফুল ইসলাম ইরাম সিনিয়র সহ সভাপতি, শান্ত জামাল সাধারণ সম্পাদক, মোঃ জসিমউদ্দীন আলী (রিকসন) যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, মোঃ মাসুম বিল্লাহ সহ সাধারণ সম্পাদক, এম.এ মুক্তাদির হোসাইন হৃদয় সাংগঠনিক সম্পাদক, মোঃ জোবায়ের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক।   ত্রিশ দিনের মধ্যে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করে মহানগর ছাত্রদলের কাছে জমা দেয়ার নিদের্শনা দেয়া হয়। DSC_1236 চার যুগ্ম আহবায়কের ক্ষোভ : কমিটি গঠন নিয়ে যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, এটা ছাত্রদলের সাংগঠনিক নীতি মেনে কমিটি গঠিত হয়নি। এটা কোন কমিটি না। সজল ব্যক্তিগতভাবে আর্থিকভাবে লাভবান হয়ে এ কাজ করেছে। এটা মহানগর ছাত্রদলের কোন কমিটি না। এটা সজলের ব্যক্তিগত কমিটি। সজল ২৬ জুন উপ-নির্বাচনে সেলিম ওসমানের কাছ থেকে টাকা নেয় লাঙ্গলের পক্ষে কাজ করেছে। এখন সে শামীম ওসমানের প্রেসক্রিপশনে এ কমিটি গঠন করেছে।   যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল কাউসার আশা নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, সজল গঠনতন্ত্র বিরোধী কাজ করেছে। স্বাভাবিক মানুষ যখন অস্বাভাবিক হয়ে যায় তখন সে অস্বাভাবিক আচরণ তো করবেই। সজল চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলা থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য একজনের লেজুরবৃত্তি করে এ কমিটি গঠন করেছে। আভ্যন্তরীন কোন্দল করে ছাত্রদলে বিরোধ সৃষ্টি করেছে সজল।   যুগ্ম আহ্বায়ক সাহেদ আহম্মেদ নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আমি কমিটির বিষয়ে শুনেছি। আর যদি একজন আহ্বায়ক কমিটি গঠন করতে পারে তাহলে বাকী ৫ জন যুগ্ম আহ্বায়কদের কেন রাখা হয়েছে? সামনের আন্দোলনে নষ্ট করতেই এ কাজ করা হয়েছে। এটা আন্দোলন নস্যাতের অপচেষ্টা করা হয়েছে।   যুগ্ম আহ্বায়ক রশিদুর রহমান রশু নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, যাদেরকে নিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে তারা যদি রাজপথের নেতাকর্মী হয়ে থাকে তাহলে আমার কোন আপত্তি নেই। রাজপথের নেতাকর্মীদের দিয়ে গঠিত হলে আমার সমর্থন আছে।   যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ মোহাম্মদ অপু নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, কিভাবে কেন এমন কমিটি গঠিত হয় তা আমার বোধগম্য নয়। বাংলাদেশে এ প্রথম এমন কমিটি গঠিত হতে দেখলাম। এটা সংগঠন বিরোধী কাজ। এটা করতে পারে না। নিয়ম অনুযায়ী সকল যুগ্ম আহ্বায়কদের নিয়ে সভা হবে। সভায় সিদ্ধান্তের মাধ্যমে কমিটি গঠিত হবে।   আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম সজল বলেন, দীর্ঘদিন এক যুগেরও বেশি সময় ধরে ছাত্রদলের কোন কমিটি হয়নি। দীর্ঘদিন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা রাজপথে কাজ করছে। তাদের পদ দেয়া হচ্ছে না। দেড় বছর পেরিয়ে গেলেও অন্যান্য যুগ্ম আহ্বায়কদের নিয়ে কমিটি গঠন করা হয়নি। আন্দোলনকে আরও চাঙ্গা করতে বাকী যুগ্ম আহ্বায়কদের কোন সাড়া না পেয়ে এবং রাজপথের নেতাকর্মীদের চাপের মুখে অনেকটা বাধ্য হয়ে কমিটি গঠন করতে হয়েছে।

বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও