নিট পল্লীর বিরোধীতা করে মানববন্ধন

|| নিউজনারায়ানগঞ্জ২৪.নেট ০১:০১ এএম, ১ জানুয়ারি ২০১৫ বৃহস্পতিবার

নিট পল্লীর বিরোধীতা করে মানববন্ধন
নারায়ণগঞ্জ-মুন্সিগঞ্জ শীতলক্ষ্যা, বুড়িগঙ্গা ও মেঘনা নদীর মোহনায় জেগে ওঠা ১০০০ একর খাস জমিতে নীট পল্লী না করে পরিবেশ বান্ধব প্রকল্প গ্রহন করার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করবেন বলে ঘোষনা দিয়েছে নারায়ণগঞ্জ পরিবেশ আন্দোলনের বক্তারা।   শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনে বক্তারা এসব কথা বলে।   নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাংবাদিক মোস্তফা করিমের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের উপদেষ্টা ও শ্রমিক নেতা মন্টু ঘোষ, শ্রুতি সাংস্কৃতিক একাডেমীর সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, গণসংহতি আন্দোলনের নারায়ণগঞ্জ জেলার সমন্বয়ক তরিকুল সুজন, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার আহবায়ক ধীমান সাহা জুয়েল প্রমুখ।   ** নিট পল্লীর বিরোধীতাকারীরা সুস্থ মস্তিস্কের মানুষ না : সেলিম ওসমান (সংবাদটি পড়তে ক্লিক করুন)   শ্রমিক নেতা মন্টু ঘোষ বলেন, ৩ নদীর মোহনায় জেগে ওঠা ১০০০ একর জমিতে নীট পল্লী তৈরি না করে কৃষি খাতে ব্যবহার করা গেলে বাংলাদেশ বেশি লাভবান হবে। বিকেএমইএ আর বিজিএমইএ আবেদন করতেই পারে কিন্তু সরকারের ভাবতে হবে, এ খাস জমিতে কি করবেন। এসকল খাস জমি নিয়ে টানা হেছড়া করলে বাংলাদেশের সমস্যা কোন দিন সমাধান হবে না। তাই বাংলাদেশের উন্নয়নের জন্য রাষ্ঠ্রীয় ভাবে এ সকল খাস জমিতে প্রকল্প গ্রহন করা উচিত।   আব্দুর রহমান বলেন, সরকারকে কোন প্রতিষ্ঠানের জন্য না ভেবে জনগনের কাছে থাকতে হবে। এ দেশ জনগনের। দেশটা কোন সংগঠনের হতে পারে না। নারায়ণগঞ্জের একটি পরিবার সরকারের জায়গা ও ৩ নদীর মোহনায় জেগে ওঠা খাস জমিগুলো দখল করার পায়তারা করছে। বিকেএমইএ ও বিজিএমই এর মাধ্যমে এ জায়গা গুলো দখল করার চেষ্টা চালাচ্ছে। সংসদ সদস্য হয়ে নদী শাসন না করে চর দখল করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। নীট পল্লী না করে সাধারণ মানুষ উপকৃত হবে এমন প্রকল্প গ্রহন করা উচিত।   মানববন্ধনের সভাপতি মোস্তফা করিম বলেন, প্রয়াত সংসদ সদস্য একেএম নাসিম ওসমান নারায়ণগঞ্জ শহরের রেলস্টেশন, বাসস্টেশন চাঁদমারী এলাকায় হস্তান্তর করার জন্য আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু তারই ছোট ভাই তার আসনে এমপি হওয়ার দুই মাস না যেতেই শীতলক্ষ্যা, বুড়িঙ্গা ও মেঘনা নদীর মোহনায় জেগে ওঠা খাস জমিতে নিট পল্লী করবেন বলে ঘোষনা দিয়েছেন। ১ হাজার একর জমিতে মাত্র ৪০০টি শিল্প নিয়ে নীট পল্লী  করবেন। এখানে নীট পল্লীর পরিবর্তে লুটপাট করার জন্য এ প্রস্তাব করেছেন। এ প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করতে হবে। ১ হাজার একর জমি থেকে সেনাবাহিনীকে ১০০ এক জমি দেয়া হোক। তার পরিবর্তে চাঁদমারীতে রেলস্টেশন, বাসস্টেশন সরানো হোক। নারায়ণগঞ্জ শহরের ভিতরে পার্ক গড়ে তোলা হোক। ৩ নদীর মোহনায় জেগে ওঠা খাস জমিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা স্টেডিয়াম ও সুইমিংপুল ও পার্ক হতে পারে।   নীট পল্লী সম্পর্কে তিনি বলেন, আমাদের নীট পল্লীর প্রয়োজন আছে। তার জন্য ইয়ান র্মাচেন্ডের সাবেক সভাপতি বাদশা মিয়ার পদ্মা নদীর পারে কয়েক হাজার একর জায়গা আছে সেখানে নীট পল্লী করার জন্য তিনি জায়গা দিয়ে দিবেন। সেখানে নীট পল্লী করেন।

বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও