ফতুল্লা ছেড়ে শহরে কেন মাতব্বরী ? প্রশ্ন আইভীর

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৩:১২ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০২০ মঙ্গলবার

ফতুল্লা ছেড়ে শহরে কেন মাতব্বরী ? প্রশ্ন আইভীর

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, যারা ফুটপাত দিয়ে মানুষের হাঁটাচলা প্রতিবন্ধকতা করছে তাদের পৃষ্ঠপোশকতা করছে কয়েকজন জনপ্রতিনিধি। তাদের প্রতি আমি ধিক্কার জানাই। এ ফুটপাত রক্ষা করতে গিয়ে আমরা মার খেয়েছি। রক্ত ঝরিয়েছি। আমরা সেইসব পৃষ্ঠপোশক জনপ্রতিনিধিদের ধিক্কার জানাই যারা শহরের ৫ থেকে ১০ লাখ মানুষকে জিম্মি করে রাখছে। তারা আমাদের হাঁটার অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, হকাররা যদি থানা ঘেরাও করতে পারে তাহলে আমাদের যে মারবে না সেটার কি নিশ্চয়তা আছে। কাউন্সিলররা যদি হকার উচ্ছেদ করতে যায় তাহলে হয়তো সব কাউন্সিলরদের মারবে না। কিন্তু ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে তো রাস্তায় মারধর শুরু হবে। তাদের এসব ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ ও সাহসের পেছনে কারা সেটা খুঁজে বের করা উচিত। তাঁকে রাস্তায় দাঁড় করিয়ে সাথে নিয়ে হাঁটতে চায় নারায়ণগঞ্জের মানুষ। কিন্তু তাঁর এলাকা নারায়ণগঞ্জ না। তাঁর এলাকা ফতুল্লা। সেখানে গিয়ে মাতুব্বরী করুক, নারায়ণগঞ্জ শহরে না।

আইভী বলেন, নারায়ণগঞ্জ শহরের যত্রতত্র স্ট্যান্ড গড়ে তোলা হচ্ছে। শহরের খানপুরে সিটি করপোরেশনের রশিদ ছাপিয়ে টাকা আদায় করা হয়। অবৈধ রশিদসহ গোয়েন্দা সংস্থাকে একাধিকবার দেয়া হয়েছে। কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। চাষাঢ়া রাইফেল ক্লাবে এমপি সাহেব বসে থাকেন। সেখানে ক্লাবের সামনেই ২৪ ঘণ্টা অবৈধ স্ট্যান্ড গড়ে উঠেছে। আমি চাই ট্রাক স্ট্যান্ড নির্ধারিত স্থানে থাকুক। কিন্তু অন্য একজন জনপ্রতিনিধি চান ট্রাক স্ট্যান্ড মন্ডলপাড়াতেই থাকবে। কারণ চাঁদাবাজি করতেই হবে। এই চাঁদাবাজির পেছনে কারা আছে তা আমরা সকলেই জানি। কিন্তু মুখ খুলি না।’

১৩ অক্টোবর মঙ্গলবার সকালে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২০২০-২০২১ অর্থ বছরের বাজেট ঘোষণা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। করোনার কারণে এবার সুধী সমাবেশ না করে আলী আহাম্মদ চুনকা পাঠাগার মিলনায়তনে ওই বাজেট অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এবার নতুন করে কোন কর আরোপ ছাড়াই নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের (নাসিক) ২০২০-২১ অর্থ বছরের ৭৫৫ কোটি ৭৩ লাখ ৪৩ হাজার ১৪৪ টাকার বাজেট ঘোষণা করেছেন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী।

বাজেটে রাজস্ব ও উন্নয়নখাতে ৬৫৮ কোটি ৬৬ লাখ ৫ হাজার ২৪৩ টাকা আয় এবং ৬৫১ কোটি ১৭ লাখ ৫৩ হাজার ৬৫৪ টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। বাজেটে উদ্বৃত্ত থাকবে ৭ কোটি ৪৮ লাখ ৫১ হাজার ৫৮৯ টাকা।

বাজেট অনুষ্ঠানে আইভী জানান, নারায়ণগঞ্জবাসীর ট্যাক্সের টাকায় দেওভোগ জিমখানায় শেখ রাসেল নগর পার্ক হচ্ছে। এখানে সরকারের অনুদান খুবই কম। মানুষের জন্য কাজ করতে গেলে জেলা প্রশাসক জায়গা দেয়না। কিন্তু সিমেন্ট কোম্পানি বা ব্যাক্তিকে অনায়াসে জমি বরাদ্দ করা হয়। রাজউক অনেক জায়গা দখল করে আছে। উপরন্তু মামলা চলাকালে তারা জমি বিক্রি করে দিয়েছে। শহরের যত্রতত্র পরিবহন স্ট্যান্ড গড়ে উঠেছে। সুইপারদের জন্য ১০০ কোটি টাকা ব্যায়ে আধুনিক কলোনী হবে। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্মানাধীন বহুতল ভবনে নারায়ণগঞ্জ ইতিহাস সংরক্ষণে যাদুঘর তৈরী করা হবে। বার্থ, ডেথ সার্টিফিকেট, ট্রেড লাইসেন্স অনলাইনের মাধ্যমে করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। বিসিক খাল পর্যায়ক্রমে উদ্ধার করবো। সিদ্ধিরগঞ্জের লেকের উপর সাতটি ব্রীজ সাত বীর শ্রেষ্ঠের নামে করা হবে।

এবারের বাজেটে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের উন্নয়নকেই প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। শহরের বাবুরাইল খালকে আধুনিকায়ন, বিভিন্ন এলাকার রাস্তা ও ড্রেনের উন্নয়নকে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া সিটি করপোরেশেনের বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডে স্বাস্থ্য সেবার উন্নতিকরণ, মাঠ ও জলাধার সংরক্ষণকেও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া এবারের বাজেটে সেতু, কালভার্ট নির্মাণ ও পুনঃনির্মাণ, দারিদ্র্য বিমোচন, তথ্যপ্রযুক্তি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যানজট নিরসন, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সংস্কার, খেলাধুলার মানোন্নয়ন ও রাস্তার বাতি স্থাপনে বিশেষ বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

এদিকে, এডিবি, সিজিপি, এমজিএসপি, এডিপি প্রকল্প সহায়তার মাধ্যমে অবকাঠামো নির্মাণ ও পুনঃনির্মাণ, পরিবেশ সংরক্ষণ এবং সিটি করপোরেশনের আওতাধীন খালগুলো খননের মাধ্যমে জলাশয় সংরক্ষণে বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

এর আগে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বাজেট ছিল ৮৭০ কোটি ৩৯ লাখ ৭৭ হাজার ৭৬ টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৭১৫ কোটি ৫১ লাখ ২১ হাজার ৩৭৭ টাকা বাজেট ঘোষণা করা হয়েছিল।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও