মানহানি না করে কেন ডিজিটাল আইনে হয়রানি ? প্রশ্ন আলাউদ্দিন আরিফের

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৩৩ পিএম, ২ মার্চ ২০২১ মঙ্গলবার

মানহানি না করে কেন ডিজিটাল আইনে হয়রানি ? প্রশ্ন আলাউদ্দিন আরিফের

বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আরিফ বলেন, ‘আজকে যে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছি এটি একটি কালো আইনের বিরুদ্ধে। আমরা আইনের বিপক্ষে নই। আমরা আইনের অপপ্রয়োগের বিরুদ্ধে। গণপ্রজানন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৩৯ অনুচ্ছেদে বাক স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে। মত প্রকাশের স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারায় কিন্তু মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে ক্ষুন্ন করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে একটি ভালো আইন হলে আমরা এর বিপক্ষে নয়। অপরাধীদের সেই আইনে সাজা দিন। কিন্তু যারা সত্য রিপোর্ট প্রকাশের কারণে, মত প্রকাশের কারণে, কিছু লেখার কারণে সাংবাদিকদের যে ৩২ ধারায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাগুলো দিচ্ছেন আমরা সেই অপপ্রয়োগের বিরুদ্ধে কথা বলছি।’

২ মার্চ মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক ইত্তেফাকের স্টাফ রিপোর্টার হাবিবুর রহমান বাদল, নারায়ণগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক, দৈনিক যুগান্তর ও ডিবিসি চ্যানেলের জেলা প্রতিনিধি রাজু আহমেদ, নারায়ণগঞ্জ জেলা ফটো সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান কচিসহ সারা দেশে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে আয়োজিত প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘হাবিবুর রহমান বাদল ভাই, রাজু ভাই, কচি ভাই ও লিংকনের নামে সাজানো মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। আমরা এই মামলা প্রত্যাহার চাই। সাংবাদিকরা যদি কোনো অন্যায় করে থাকে, ভুল করে থাকে তাহলে প্রতিবাদ দিতে পারতেন, মানহানির মামলা দিতে পারতেন। তাহলে কেন মানহানির মামলা না করে ডিজিটাল আইনের মত কালো আইন জামিন অযোগ্য আইনে মামলায় তাঁদের হয়রানি করছেন।’

তিনি বলেন, ‘লেখক কাজলের অস্বাভাবিক মৃত্যুর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। যারা তাঁর অস্বাভাবিক মৃত্যুর জন্য দায়ী তাঁদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। কার্টনিস্ট কিশোরসহ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কারাবন্দি আছেন এবং যাদের নামে মামলা আছে তাঁদের সকলের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি। পাশাপাশি বলতে চাই কোনো সংবাদ প্রকাশের কারণে কারো সম্মানহানি হলে বিশ্বের কোনো দেশে ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গন্য হয় না। একমাত্র আমাদের দেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মানহানির মামলা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ফৌজদারি মামলা হিসেবে গন্য হয়। বাংলাদেশ সংবিধানের ৩৯ অনুচ্ছেদ আর ৩২ ধারা এক সঙ্গে চলতে পারে না। আমি মনে করি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে যেসব অসঙ্গতি রয়েছে সেগুলো অবিলম্বে দূর করা হবে। এবং এই আইনের অপপ্রয়োগগুলো বন্ধ করা হবে।’

নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ আলমের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন দৈনিক কালের কণ্ঠ ও নিউজ টুয়েন্টিফোরের জেলা প্রতিনিধি দিলীপ কুমার মন্ডল, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের কার্যকরী পরিষদের সদস্য ও দৈনিক মানবজমীনের স্টাফ রিপোর্টার বিল্লাল হোসেন রবিন, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের জেলা প্রতিনিধি নোমান চৌধুরী সুমন প্রমুখ।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও