করোনাতেও মৌমিতার দৌরাত্ম্য

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১১:৩৩ পিএম, ৪ এপ্রিল ২০২১ রবিবার

করোনাতেও মৌমিতার দৌরাত্ম্য

নারায়ণগঞ্জ শহরে যেন কোনোভাবেই মৌমিতা বাসের দৌরাত্ম্য থামছে না। এই পরিবহনের বাসগুলো সবসময় সকল নিয়ম নীতি ঊর্ধ্বে থেকে চলাচল করে আসছে। নারায়ণগঞ্জ শহরজুড়ে যানজট সৃষ্টির অন্যতম কারণ হিসেবে চলাচল করে আসলেও এবার করোনাতেও তারা থামছে না। করোনাকারি কালিন সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে আবার ডাবল ভাড়াতেই যাত্রী আনা নেওয়া করছে। দুইসিটে একজন নেয়ার কথা থাকলেও তারা দুইসিটই পূর্ণ করে নিচ্ছেন সেই সাথে ভাড়াও আদায় করছেন অধিক।

জানা যায়, সারাদেশের মতো নারায়ণগঞ্জেও দিনের পর দিন পাল্লা দিয়ে বেড়ে যাচ্ছে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা। সেই সাথে প্রতিদিনই বৃদ্ধি হচ্ছে মৃত্যুর সংখ্যা। আর এমতাবস্থায় সারাদেশের মতো নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন থেকে গনপরিবহনে দুইসিটে একজন যাত্রী নেয়া এবং ৬০ শতাংশ ভাড়া নেয়ার নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

কিন্তু এসকল নির্দেশনার কোনো নিয়ম মানা হচ্ছে না ঢাকা নারায়ণগঞ্জ রুটে চলাচল করা মৌমিতা টান্সপোর্ট। তারা অন্যসময়ের মতোই যাত্রী পূর্ণ করে চলাচল করছেন। অনেক ধারণ ক্ষমতার বাইরেও তারা যাত্রী পরিবহণ করছেন। দুই সিটে একজন করে নেয়ার কথা বলা হলেও তারা দুই সিট পূর্ণ করে আবার দাঁড় করিয়েও যাত্রী পরিবহণ করছেন। ফলে মৌমিতা এবার করোনা ভাইরাস সংক্রমনের কারণ হিসেবে আবির্ভাব হয়েছে।

নাঈম নামে একজন যাত্রী জানান, মৌমিতা বাসে কোনো রকমের স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। যেভাবে পারছে ঠিক সেভাবেই তারা যাত্রী পরিবহন করছেন। তারা করোনাকালেও নিয়ম নীতির ধারধারি হচ্ছে না।

পরিবহণ সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, নিয়মনীতির উপেক্ষা না করেই নারায়ণগঞ্জ থেকে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন রুটে চলাচল করছে মৌমিতা ট্রান্সপোর্ট নামের বাস কোম্পানী। নারায়ণগঞ্জ শহরের কোথাও কাউন্টারের অস্তিত্ব নেই। ফলে নারায়ণগঞ্জ থেকে শুরু করে সাইনবোর্ড পর্যন্ত সারা রাস্তা জুড়েই যেন তাদের কাউন্টার। সেখানে ইচ্ছা সেখান থেকেই যাত্রী উঠানামা করছে।

প্রতিদিন নারায়ণগঞ্জ থেকে চন্দ্রা, ইপিজেড, নবীনগর, সাভার, হেমায়েতপুর, গাবতলী, শ্যামলী, আসাদগেট, আজিমপুর, বকশীবাজার, চানখারপুল চলাচল করছে এই বাসটি। রুট পারমিট কাগজপত্রে কি আছে না আছে তা নিয়ে তাদের কোনো ভাবনা নেই। কথাছিল বাস ছাড়া হবে ২নং রেলগেট থেকে এবং তা বঙ্গবন্ধু সড়ক হয়ে চাষাঢ়া গোলচত্তর ঘুড়ে প্রবেশ করবে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে। কিন্তু বাস্তবে তার উল্টো চিত্র। যাত্রী উঠানো হচ্ছে খানপুর ৩শ’ শয্যা হাসপাতালের সামনে থেকে ভাসমান অবস্থায়।

এরপর যাত্রী উঠানো হয় চাষাঢ়া শহীদ মিনারের সামনে থেকে। সেই সাথে শহীদ মিনারে পেরিয়ে চাষাঢ়া আর্মি মার্কেটের সামনে থেকেও যাত্রী উঠানো হয়। ফলে চাষাঢ়া গোল চত্ত্বর এলাকাতেও যানজটের অন্যতম প্রধান কারণ এই মৌমিতা পরিবহণের বাস। এবার করোকালিন সময়ে তারা করোনা সংক্রমনের কারণ হিসেবে দাঁড়িয়েছে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও