মানেনি স্বাস্থ্যবিধি দিলেন প্রতিশ্রুতি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:১৬ পিএম, ৬ এপ্রিল ২০২১ মঙ্গলবার

মানেনি স্বাস্থ্যবিধি দিলেন প্রতিশ্রুতি

সরকার ঘোষিত ৭দিনের লকডাউনে চলাকালে যেমন শিল্প কারখানা খোলা রাখা হয়েছে তেমনি ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য শহরের মার্কেটগুলোর দোকানপাট খোলা রাখার দাবীতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন নারায়ণগঞ্জের প্রায় সহস্রাধিক দোকান মালিক ও শ্রমিকেরা। বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার ব্যানারে ওই বিক্ষোভ কর্মসূচী ও মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। যেখানে নেতৃবৃন্দ সরকারের প্রতি দাবী রেখেছেন আগামী শনিবার থেকে যেন তাদের দোকানপাট খোলার অনুমতি দেওয়া হয়। সেই সাথে তারা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন সম্পূর্ন স্বাস্থ্যবিধি মেনেই তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করবেন।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে নারায়ণগঞ্জ জেলা দোকান মালিক সমিতির পক্ষ থেকে কয়েক হাজার দোকান মালিক ও শ্রমিকেরা মানববন্ধন ও সংক্ষিপ্ত সমাবেশ থেকে এমন ঘোষণা দিয়েছেন।

কিন্তু প্রতিশ্রুতি প্রদানের ওই সমাবেশেই তারা মানেনি স্বাস্থ্যবিধির যথাযথ নিয়ম। বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনে থাকা অনেকের মুখেই ছিলনা মাস্ক। করোনা প্রতিরোধে সরকার কর্তৃক জারি করা প্রজ্ঞাপনে মাস্ক পরিধান করাকেই সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। সেই প্রজ্ঞাপনের প্রধান নির্দেশনাই মানা হয়নি প্রতিশ্রুতি দেওয়া ওই সমাবেশে।

সেই সাথে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন শেষে তারা শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে চাষাঢ়া হয়ে ২নং রেলগেট হয়ে আবার প্রেসক্লাবের সামনে এসে মিছিল সমাপ্ত করেন। ওই মিছিলেও ভঙ্গ করেছেন সরকারের জারি করা প্রজ্ঞাপনের নিয়ম। মিছিলকারীদের মাঝে ছিলনা সামাজিক দূরত্ব। মিছিলের সময় তারা একে অপরের সাথে গাধাগাধি করে মিছিলে অংশ নিয়েছেন। মিছিল শেষে প্রেসক্লাবের সামনে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আরিফ দিপু। মিছিল নিয়ে শহরের প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিন করেও তারা সরকার নির্দেশিত প্রজ্ঞাপন অমান্য করেছেন। কারণ ইতোমধ্যেই সরকারের পক্ষ থেকে সকল সভা সমাবেশ মিছিল নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বক্তব্যে তিনি বলেন, সরকারের প্রতি আমাদের অনুরোধ থাকবে যেমন করে শিল্প কারখানাগুলো চালু রাখা হয়েছে। ঠিক তেমনি যেন সরকারের পক্ষ থেকে আগামী শনিবার থেকে যেন আমাদের দোকান খোলা রাখার অনুমতি দেওয়া হয়। যদি আমাদের দোকান খোলার অনুমতি না দেওয়া হয় তাহলে আগামী শনিবার থেকে আমরা নিজ দায়িত্বে সারাবাংলাদেশে একযোগে দোকানপাট চালু করবো। আমরা স্বাস্থ্য বিধি মেনেই আমাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করবো।

অতীতে দেখা গেছে সরকারের পক্ষ থেকে লকডাউন শিথিল করার পর কিছুদিন মার্কেট গুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললেও পরবর্তীতে তা আর বলবৎ রাখা হয়নি। ২০২০ সালে লকডাউনের পর প্রতিটি মার্কেটের সামনে জীবানু নাশক স্প্রে বুথ বসানো হলেও সেটি আর দীর্ঘ সময় পর্যন্ত সচল রাখার ব্যবস্থা করা হয়নি। ফলে শহরের মার্কেট ও শপিং কমপ্লেক্স গুলোতে স্বাস্থ্যবিধি পুরোদমেই অমান্য করা হয়েছে। বেড়েছে সংক্রমন। যার ফলপ্রসূতে করোনা সংক্রমন নিয়ন্ত্রনে সরকার পুনরায় ৭দিনের লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। লকডাউন ঘোষণার আগে গণপরিবহনের ব্যাপারে নির্দেশনা দেওয়া হয়। জনসমাগম ঠেকাতে নিষিদ্ধ করা হয় সকল প্রকার মিটিং মিছিল, সভা সমাবেশ। এমনকি রাজনৈতিক কর্মসূচীর ব্যাপারেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়ে ছিল।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও