শহীদ মিনারে চুলোচুলি, পার্কে নাচানাচি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১১:০১ পিএম, ৯ জুন ২০২১ বুধবার

শহীদ মিনারে চুলোচুলি, পার্কে নাচানাচি

ভিডিও ভিত্তিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টিকটকের ব্যবহার সামাজিকতা ছাড়িয়ে অশ্লীলতা এবং আইন শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর পর্যায়ে উপনীত হয়েছে। অশ্লীল ভিডিও প্রদর্শন, অঙ্গিভঙ্গি থেকে শুরু করে অপহরন, মারপিট, নারী পাচার, ধর্ষণের মত অপরাধে জড়িয়ে যাচ্ছে উঠতি তরুন তরুণীরা। ক্রমাগত এই অপরাধ প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায় অনেকে বাধ্য হয়ে টিকটক, লাইকি এপস বাংলাদেশে বন্ধের দাবী জানিয়েছেন।

টিকটকের শুরুটা হয় ২০১৬ থেকে যাত্রা শুরু করে টিকটক। বাংলাদেশে এর জনপ্রিয়তা শুরু হয় ২০১৮/১৯ থেকে। প্রথমে ১৫ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেশী বিদেশী গানের সাথে নিজেদের মুখ মেলানো তরুণদের কাছে বেশ বিনোদনের জায়গা করে নেয়। এরপর শুরু হয় অভিনয়ের পালা। শ্যূটিংয়ের নাম করে বিভিন্ন স্থানে অদ্ভুত সব অভিনয় শুরু করে টিকটকাররা। জনবহুল স্থানে কিম্ভূতকিমাকার পোশাক আর সাজসজ্জা নিয়ে শুরু হয় তাদের অভিনয়। এতে আশেপাশের উপস্থিত লোকজন যেমন বিব্রতবোধ করেন তেমনি প্রকাশ্য অশালীনতায় পরিবার পরিজনের সামনে মাথা নিচু করে রাখতে বাধ্য হন অনেকে।

সম্প্রতি টিকটক সেলিব্রিটিদের সুইমিংপুল পার্টি, ভারতে নারী পাচার নিয়ে ব্যাপক তোলপার হয়েছে দেশজুড়ে। এই কর্মকান্ডের অনেকটা অংশজুড়েই ছিল নারায়ণগঞ্জ। কথিত সেলিব্রিটি ও নারী পাচার চক্রের হোতা হৃদয় বাবু গ্রুপের ২ সদস্যকে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করে র‍্যাব। তারা দুজনে স্বামী স্ত্রী এবং নারী পাচার চক্রের সাথে জড়িত। সবশেষ সোমবার টিকটক সেলিব্রিটি সেজে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বরগুনা জেলার ১৫ বছরের এক কিশোরীকে অপহরণের অভিযোগ উঠে এক টিকটকারের বিরুদ্ধে। পেশায় রাজমিস্ত্রী হলেও টিকটকে সে ছিল সেলিব্রিটি। সেই সুবাদে পরিচয় হয়েই ঘটায় অপহরণের মত ঘটনা। অভিযুক্ত টিকটকারকে গ্রেফতার ও অপহৃত কিশোরীকে সিদ্ধিরগঞ্জ পাইনাদী এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

এর আগেও নারায়ণগঞ্জে টিকটকারদের প্রকাশ্যে উশৃঙ্খলতা চোখে পড়েছে সাধারণ মানুষের। চলতি বছরের ১৩ মার্চ নারায়ণগঞ্জের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে দুই তরুনীর প্রকাশ্যে চুল টানাটানির দৃশ্য চোখে পরে সকলের। এরা দুজনেই টিকটকার হিসেবে পরিচিত। সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত শহীদ মিনারে থাকতো এদের আড্ডা। কোন একটি কারনে প্রথমে মনোমালিন্য পরে চুলোচুলিতে রূপ নেয় তাদের বিরোধ। এছাড়া শহরের শহীদ মিনার, ৫ নং খেয়া ঘাট, মেরিন পার্ক, শেখ রাসেল পার্ক, এডভেঞ্চার ল্যান্ড, সাইরা গার্ডেন, চৌরাঙ্গী পার্কে টিকটকার উশৃঙ্খল নাচানাচি প্রায়ই চোখে পড়তো।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কোন একটি অপরাধ প্রথমেই বৃহৎ আকার ধারন করে না। শুরুতেই যখন দেখা গেছে টিকটক ছেলে মেয়েদের পোশাক, চুল, রুচি, আচার আচরণ পালটে দিচ্ছে তখনই এই বিষয়ে সতর্ক হওয়া উচিৎ ছিল প্রশাসনের। কিন্তু তারা বরাবরই এগুলো পরিবারের উপর চাপিয়ে দিয়ে দায় সেরেছে। সেই টিকটক বর্তমানে নারী পাচার, ধর্ষণ, অপহরন, মারামারিতে রূপ নিয়ে সমাজে মহামারী আকার ধারন করেছে। এখন প্রশাসন বলছে এই টিকটক নিষিদ্ধ করার কথা। অথচ এই বিষয়গুলো আগে পদক্ষেপ নিলে এতদূর মেলতো না অপরাধের ডানা। দ্রুত ভিত্তিতে টিকটক নিষিদ্ধ সহ অপরাধীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার দাবী জানিয়েছেন তারা।

ফ্ল্যাশব্যাক

সম্প্রতি ভারতের কেরালায় একটি হোটেলে নারী নির্যাতন করার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। কথিত টিকটক সেলিব্রিটি হৃদয় বাবুর হাত ধরে ভারতে গিয়ে নারী পাচারের শিকার হয়েছিলেন তিনি। দেহ ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় জোরপূর্বক নির্যাতন ও গণধর্ষণ করে তার ভিডিও ছড়িয়ে দেয় এই চক্র। এভাবে অসংখ্য নারী তাদের হাতে ধর্ষিত ও পাচারের শিকার হয়েছে টিকটক থেকে পরিচয়ের মাধ্যমে। নির্যাতিতা সেই নারী বাংলাদেশে ফিরে পুলিশ প্রশাসনকে এমন তথ্য জানালে বেরিয়ে আসে চক্রের ভয়ংকর সব ঘটনা।

ভুক্তভোগী ওই নারী আরও জানায়, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে টিকটক হৃদয় ফতুল্লায় অ্যাডভেঞ্চার ল্যান্ডপার্কে `টিকটক হ্যাংআউট পুল পার্টি`র আয়োজন করে। তার আমন্ত্রণে ওই পার্টিতে যান তিনি। তখন হৃদয় অফার দেয়, বিদেশে ভালো বেতনে চাকরির সুযোগ রয়েছে। সেটা না করলে টিকটক তারকা হওয়ার পথ খোলা আছে। এর পর একই বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর গাজীপুরের আফরিন গার্ডেন রিসোর্টে আরেকটি পুল পার্টির আয়োজন করে হৃদয়। সেখানে ৭০০-৮০০ তরুণ-তরুণী অংশ নেয়। পার্টিতে সবাইকে মদ সরবরাহ করা হয়েছিল।

নারায়ণগঞ্জের এডভেঞ্জার ল্যান্ডের সুইমিংপুল সেকশনে ৭০-৮০ জনের পুল পার্টি আয়োজন করার কথা নিশ্চিত করেছে খোদ ভুক্তভোগী এক তরুণী। ফেইসবুকে খোঁজ নিয়েও এর সত্যতা মেলে। নারায়ণগঞ্জে আর কোথায় কোথায় এমন পুল পার্টি হয় এমন খোঁজ নিতে গিয়ে বেশ কিছু টিকেটের দেখা পাওয়া যায়। সেখানে ভেন্যু হিসেবে উল্লেখ করা হয় সোনারগাঁও এর নাম। তবে সোনারগাঁওয়ে শুধুমাত্র রয়েল রিসোর্টে সুইমিংপুল রয়েছে এবং সেখানে এই ধরণের পুল পার্টি আয়োজনের অনুমতি দেয়া হয়না বলে জানা গেছে।

তবে একটি সূত্র জানায়, বন্দরের মদনপুর এলাকায় অবস্থিত সাইরা গার্ডেন রিসোর্টে সুইমিংপুল রয়েছে এবং সেখানে প্রায়ই বিভিন্ন গ্রুপ পুল পার্টির আয়োজন করে। টিকটক ব্যবহারকারীদের একজনের সাথে যোগাযোগ করে জানা যায়, সোনারগাঁ ভেন্যু হিসেবে মদনপুরের সাইরা গার্ডেনের নামই উল্লেখ করা হয়েছে। কারণ মদনপুর এলাকাটি সোনারগাঁওয়ের কাছাকাছি হওয়ায় তাদের ভেন্যু লিখতে ভুল করে থাকতে পারে। তাছাড়া টিকটক পুল পার্টির একটি ভিডিও সংরক্ষিত রয়েছে এই প্রতিবেদকের নিকট। সেখানে সাইরা গার্ডেনে টিকটক পুল পার্টির আয়োজনের বিষয়টি স্পষ্টভাবে উঠে এসেছে। এর আগেও সাইরা গার্ডেনের রিসোর্ট ও কটেজগুলোতে অসামাজিক কার্যকলাপ চালানোর একাধিক অভিযোগ উঠেছিলো।

অনুসন্ধানে জানা যায়, সাইরা গার্ডেনের পুল, মাঠ এবং খাবার সহ একদিনের রিজার্ভ খরচ প্রায় ২ লাখ টাকা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাইরা গার্ডেনে ডেস্ক এক্সিকিউটিভ কামরুস সায়েদীন। অপরদিকে এডভেঞ্জার ল্যান্ড পার্কের পুল জোনের রিজার্ভ ভাড়াও প্রায় দেড় থেকে দুই লাখ টাকা। তবে এডভেঞ্জার ল্যান্ড বর্তমানে বন্ধ রয়েছে বলে জানিয়েছেন পার্কের ইনচার্জ বাবুল। অপরদিকে করোনার লকডাউনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে চালু রাখা রয়েছে সাইরা গার্ডেন। তারা করোনার ভেতরেও জনসমাগমের অনুমতি দিচ্ছেন আগত দর্শনার্থীদেরকে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও