খোরশেদকে সরাতে নানামুখী ষড়যন্ত্র

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:৫০ পিএম, ২১ জুন ২০২১ সোমবার

খোরশেদকে সরাতে নানামুখী ষড়যন্ত্র

করোনায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে নারায়ণগঞ্জ শুধু নয় কিংবা দেশের গন্ডি নয় বিশ্বে আলোচিত কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে তাকে সরাতে নানামুখী ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। কখনো নারী, কখনো অযাচিত ভিত্তিহীন অভিযোগ পাশাপাশি মামলা দিয়েও তাকে হয়রানি করা হচ্ছে।

ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্মানহানীর অভিযোগ এনে এক নারী আইসিটি আইনে মামলা দায়ের করেছেন কাউন্সিলর খোরশেদের বিরুদ্ধে। এই মামলায় ব্যাহত হচ্ছে তার স্বাভাবিক কার্যক্রম যা মানুষের সেবা থেকে তাকে ও তার টিমকে দূরে সরাতে পারছে। দেশে এখন আবারো করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু বেড়েছে আর এতে করে তার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছে সবাই। তবে তাকে নিয়ে হটাতই কেন এমন ষড়যন্ত্র শুরু হল তা নিয়েই এখন প্রশ্ন জনমনে।

সম্প্রতি রোটারীয়ানদের সর্বোচ্চ এ্যাওয়ার্ড প্ল্যাটিনাম সম্মানে ভূষিত হয়েছেন কাউন্সিলর খোরশেদ। তার এই সম্মান তাকে আরো অনুপ্রাণিত করবে তবে তার পরিবার এখন তাকে নিয়ে চিন্তিত।

জানা যায়, সামনে আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে ঘিরে খোরশেদকে নিয়ে রয়েছে নানা আলোচনা সমালোচনা। নারায়ণগঞ্জবাসীর অনেকেই মনে করছেন খোরশেদ এবার মেয়র হিসেবে নির্বাচন করতে চান আর তাই তিনি এসব করছেন। পাশাপাশি মেয়র না করলেও এবার তাকে তার কাউন্সিলর অবস্থান থেকে সরিয়ে দিতেও শুরু হয়েছে অপপ্রচার ও নানা ষড়যন্ত্র। তবে মানুষের সেবা প্রদানে নিজেকে বিরত না রেখে বরং এতে আরো মানুষের মনে যায়গা করে নিচ্ছেন খোরশেদ।

অনেকের মতে এই নির্বাচন ও তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি শক্তিশালী মহল তাকে সরাতে মাঠে নেমেছে। নারী কিংবা অন্য যেকোন উপায়ে তাকে নির্বাচন, রাজনীতি ও মানবসেবার মাঠ থেকে দূরে রাখতে চলছে নানা প্রয়াস। তবে তার ওয়ার্ডবাসীর মতে, এসব করে কোন লাভ হবেনা কারণ খোরশেদ পর পর তিন বারের সর্বোচ্চ ভোটে নির্বাচিত কাউন্সিলর। এবারো নির্বাচন করতে চাইলে তিনি সর্বোচ্চ ভোট পেয়েই জয়ী হবেন পুরো সিটিতে।

এদিকে কাউন্সিলর খোরশেদকে নিয়ে এহেন ঘটনায় শহরজুড়ে একাধিকবার বিক্ষোভ হয়েছে। প্রতিটি বিক্ষোভে হাজারো মানুষ তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তবে এতেও ক্ষান্ত হয়নি ষড়যন্ত্রকারীরা। এখন নিয়মিত তার পরিবারের সদস্যদের রাতে নানাভাবে ভয়ভীতিও দেখাচ্ছেন। এ নিয়ে সম্প্রতি থানায় জিডি করেছেন কাউন্সিলরের স্ত্রী আফরোজা খন্দকার লুনা।

আফরোজা খন্দকার লুনা ঘটনার বর্ণনা তুলে ধরে বলেন, ১৫ জুন ঠিক রাত পৌনে ৪ টার দিকে একাধিক ব্যক্তি আমাদের বাড়িতে প্রবেশ করে আমাদের ফ্ল্যাটের বাইরে কলিংবেল দেয়। আমরা উঠে ডোর ভিউয়ার দিয়ে দেখি দুজন অপরিচিত ব্যক্তি। পরে তারা তিন তলায় উঠেও একই কাজ করে এবং কিছুক্ষন ঘুরাফেরা করেন। এতে আমরা আতঙ্কিত হয়ে পড়লে আমার মেয়ে ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে অবগত করে বিষয়টি। পরে দ্রুত তারা আমাদের ঠিকানা জানতে চাওয়ার পর ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ বাড়িতে আসে। পুলিশ সদস্যদের সাথে নিয়ে আমরা পুরো বাড়ি খুঁজি এবং ছাদেও খুঁজি কিন্তু তাদেরকে পাইনি। পরে পুলিশ সদস্যরা ধারণা করেন তারা ছাদ দিয়ে পালিয়ে গেছে এবং আমাদের ভয়ভীতি দেখানোর জন্য এমন ঘটনা ঘটিয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের প্রায় ১৫/২০ মিনিট এভাবে ভয় দেখায় যুবকরা। এর আগে শিউলি নামে এক নারী আমাদেরকে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দিয়েছিল এবং বলেছিল আমার বেডরুম পর্যন্ত পৌছে দেয়ার মত তার লোক আছে। এ ঘটনায় আমি পরিবার নিয়ে চরম উদ্বেগ উৎকণ্ঠায় দিন পার করছি। আমরা জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত। বিষয়টি আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের দৃষ্টিও আকর্ষণ করেছি।

এ বিষয়ে কাউন্সিলর খোরশেদ জানান, আমি নির্বাচন নিয়ে ভাবছি না। আমার কোন উচ্চ পদের আকাঙ্খাও নেই। আমি শুধু এই দুর্যোগে মানুষের পাশে থাকতে চাই। আমি সকল ষড়যন্ত্রকারীরা তাদের ভুল বুঝতে পেরে নিজেরাই থমকে যাবে আশা করছি। আল্লাহ আমাদের সহায় হবেন। জানিনা মানুষের পাশে থাকতে পেরেছি কিনা তবে মানুষের পাশেই আজীবন থাকতে চেষ্টা করবো, আমৃত্যু পর্যন্ত।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও