শোকের স্রোতে এক মোহনায়

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১১:০৯ পিএম, ২৬ জুলাই ২০২১ সোমবার

শোকের স্রোতে এক মোহনায়

নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক অঙ্গনে বিভিন্ন সময় মতপার্থক্য থাকলেও মৃত্যুতে সকলেই এক হয়ে থাকেন। দল মত নির্বিশেষে সকলেই শেষ বিদায়ে উপস্থিত হন। তেমনি বিলুপ্ত নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত আলী আহম্মদ চুনকার সহধর্মিনী ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডাক্তার সেলিনা হায়াত আইভীর মা মমতাজ বেগমের মৃত্যুতে দলমত নির্বিশেষে সকলেই এক কাতারে উপস্থিত হয়েছিলেন। করোনার সময়ে লকডাউনের মধ্যেও অনেকেই স্বশরীরে এসে হাজির হন। কেউবা হাজির হতে না পেরে আপসোস করেছেন।

নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে দুটি মেরুর রাজনীতি হলেও শোকের স্রোতে দুই মেরু এক মোহনায় এসেছিল। অবশ্য সবার প্রত্যাশাও ছিল সেটা। সবশেষ প্রমাণিত হলো মৃত্যু নিয়ে রাজনীতির কোন অবকাশ নাই।

মেয়র আইভীর মাতা মমতাজ বেগম (৭৩) রোববার বিকেল পৌনে ৫টায় শহরের দেওভোগের বাসায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি গত কয়েকদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি ৫ সন্তান সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

এশা নামাজের পর মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর বাসভবনের অদূরে অবস্থিত বাইতুন নূর জামে মসজিদে মরহুমার জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এতে দল মত নির্বিশেষ সকল ধরণের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সর্বস্তরের মানুষজন অংশগ্রহণ করেন।

মায়ের মৃত্যুতে মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীকে সমবেদনা জানাতে বাসায় ছুটে আসেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু, জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত সহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।

এছাড়াও এসেছিলেন সাবেক সংরক্ষিত নারী সাংসদ হোসনে আরা বাবলি, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহবায়ক রফিউর রাব্বি, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি মাহবুবুর রহমান মাসুম, বর্তমান সভাপতি খন্দকা শাহ আলম, সাধারণ সম্পাদক শরীফউদ্দিন সবুজ, নারায়ণগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুস সালাম প্রমুখ।

দেওভোগে মেয়র আইভীর বাস ভবনে গিয়ে তাঁর সাথে সমবেদনা জ্ঞাপনকালে সেলিম ওসমান তাঁর মায়ের জন্য দোয়া কামনা করেন। সেই সাথে তাঁর মাথায় হাত দিয়ে দোয়া করেন এবং বলেন সবসময় দোয়া করি তোমার জন্য। আল্লাহ তায়ালা মাকে জান্নাত নসিব করুক। এ সময় তাঁর সাথে ছিলেন নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল ও শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু।

নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু বলেন, আমরা উনার হাতের রান্না খেয়েছি। উনার স্নেহ মায়া মমতা আমাদের সকলের প্রতি ছিল। আল্লাহ যেন উনাকে বেহেশত নসিব করেন। আমরা সেই কামনায় এখানে ছুটে এসেছি।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়াম্যান আনোয়ার হোসেন বলেন, তিনি আমাদের অভিভাবক ছিলেন। তিনি অত্যন্ত অতিথিপরায়ন ছিলেন। তার হাতের রান্না বাংলাদেশের অনেকেই খেয়েছেন। তার হাতের রান্না খুবই সুস্বাধু ছিল। কাউকে খালি মুখে বাসা থেকে বের হতে দিতেন না। আমরা তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করছি আল্লাহ যেন তার বেহেশত নসিব করেন।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও