নিট পল্লীর বিরোধীতাকারীরা সুস্থ মস্তিস্কের মানুষ না : সেলিম ওসমান

|| নিউজনারায়ানগঞ্জ২৪.নেট ০১:০১ এএম, ১ জানুয়ারি ২০১৫ বৃহস্পতিবার

নিট পল্লীর বিরোধীতাকারীরা সুস্থ মস্তিস্কের মানুষ না : সেলিম ওসমান
নারায়ণগঞ্জ-৫ (শহর-বন্দর) আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান বলেছেন, আল্লাহর কাছে শোকরিয়া আদায় করছি যে কেউ কালিরবাজার, নিমতলী বা টানবাজারের পূর্ণবাসন করতে বলেন নাই। যারা মানববন্ধনে নীট পল্লীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে বক্তব্য প্রদান করেছেন তারা সুস্থ মস্তিকের মানুষ নয় এবং তারা নারায়ণগঞ্জ-বন্দর-সোনারগাঁওয়ের মানুষের উন্নয়নের ক্ষতিসাধন করার চেষ্টা করছেন। কেউ শান্তিরচরকে কোন পরিবারের নামে চায় নাই বা কোন জনপ্রতিনিধি কোন পরিবারের পক্ষেও সুপারিশ করে নাই বলে মন্তব্য করেছেন সেলিম ওসমান। তবে বাস ও রেলস্টেশন স্থানান্তরের প্রস্তাবটি একটি ভাল। এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জবাসী অচিরেই উদ্যোগ গ্রহন করবেন।   নারায়ণগঞ্জ-মুন্সিগঞ্জ শীতলক্ষ্যা, বুড়িগঙ্গা ও মেঘনা নদীর মোহনায় জেগে ওঠা ১০০০ একর খাস জমিতে নীট পল্লী গড়ার লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জের ছয়জন সংসদ সদস্য, সিটি করপোরেশনের মেয়র সহ, ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেম্বারদের সুপারিশকৃত গার্মেন্টস ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বিকেএমইএ এর প্রধানমন্ত্রী বরাবর আবেদনের বিরোধীতা করে শনিবার সকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করা পরিবেশ আন্দোলনের বক্তাদের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে নিউজ নারায়ণগঞ্জকে দেওয়া এক প্রতিক্রিয়ায় নারায়ণগঞ্জ-৫ (শহর-বন্দর) আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান এমন মন্তব্য করেন।   বক্তাদের দেওয়া এমন বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে নারায়ণগঞ্জ-৫(শহর-বন্দর) আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান নিউজ নারায়ণগঞ্জকে দেওয়া এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমি আল্লাহর কাছে শোকরিয়া আদায় করছি যে কেউ কালিরবাজার, নিমতলী, ও টানবাজার পূর্নবাসন করতে বলেন নি। বিকেএমইএ কখনও বলে নাই শান্তিরচরের জায়গাটি বিকেএমইএর নামে রেজিস্ট্রেশন করে দিতে হবে। বিকেএমইএর আবেদন পরিবেশ দূষনমুক্ত নীট পল্লী গড়ে তোলা। পরিবেশ দূষনমুক্ত করার জন্যই এটাকে নীট পল্লীর জন্য আবেদন করা হয়েছে। আমি বিভিন্ন সমাবেশে বক্তব্যে বলেছি সরকার চাইলে এটা বিকেএমইএ, মন্ত্রনালয় অথবা পিপিপি মাধ্যমে করতে পারতেন।   ** নিট পল্লীর বিরোধীতা করে মানববন্ধন  (সংবাদটি পড়তে ক্লিক করুন)   সেলিম ওসমান বলেন, যারা পরিবেশের কথা বলছেন তারাই আবার বলছেন বাদশা মিয়ার ব্যক্তিগত জমি নিয়ে নদীর পাড়ে নীট পল্লী গড়তে। আমার ধারণা তারা নারায়ণগঞ্জ-বন্দর-সোনারগাঁওবাসীর উন্নয়নের ক্ষতিসাধনের কথা চিন্তা করছেন। এ ব্যাপারে আমি সুনিশ্চিত উনারা যে ১৭ জন ব্যক্তি প্ল্যাকার্ড নিয়ে মানববন্ধন করেছেন তারা আমাদের আবেদন পত্রটি পড়েননি। এ আবেদনের মধ্যে সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ আছে যে ৫০০ একর উক্ত অঞ্চলকে ঘিরে প্রশস্থ রাস্তা তৈরি করে প্রতি প্লট এক একর করে সর্বমোট ৪০০টি প্লট বরাদ্দ দেয়া যেতে পারে বলে বিকেএমইএ বিশ্বাস করে, ১০০ একর নদী থেকে পানিকে পরিশোধিত করে সেন্ট্রাল ইফ্লুয়েন্ট ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট এর মাধ্যমে ফ্যাক্টরীতে প্রদান করা এবং পরবর্তীতে ব্যবহৃত পানি পুনরায় পরিশোধনের মাধ্যমে নদীতে প্রবাহিত করা। এক্ষেত্রে প্রয়োজনে বিকল্প হিসেবে পাশ্ববর্তী দেশ ভারতের মতো কয়লার মাধ্যমে বয়লার পরিচালনা করে স্টীম প্রক্রিয়ায় পানি পরিশোধন করে ফ্যাক্টরীতে সরবরাহ করা যাবে এবং পুনরায় পরিশোধিত করে নদীতে পুন:প্রবাহ করা যাবে। সেক্ষেত্রে গ্যাসের উপর নির্ভরতাও কমবে। ৫০ একর শ্রমিকদের জন্য ডরমিটোরি নির্মান করা। ৫০ একর একটি পাওয়ার প্লান্ট, একটি হাসপাতাল ও একটি স্কুল তৈরী করা। ১০০ একর একটি পর্যটন শিল্প এলাকা ও একটি ফায়ার স্টেশন গড়ে তোলা। ১০০ একর  একটি ইনল্যান্ড কন্টেইনার টার্মিনাল নির্মাণ করা: যেহেতু অঞ্চলটি তিন নদীর মোহনায় অবস্থিত। ১০০ একর  একটি ফাইভ স্টার সমতুল্য হোটেল, একটি হেলিপ্যাড ও অন্যান্য অবকাঠামোগত উন্নয়নে কাজে লাগানো।   পরিবেশ আন্দোলনের বক্তাদের শহর থেকে বাস ও রেলস্টেশন স্থানান্তরের প্রস্তাবটি ভাল প্রস্তাব বলে মন্তব্য করে বলেন,  রেল ও বাস স্ট্যান্ড চাদঁমারিতে স্থানান্তর একটি ভাল প্রস্তাব। এ জন্য ভবিষ্যতে নারায়ণগঞ্জবাসী উদ্যোগ গ্রহন করবে। আমরা বিশ্বাস করি শীতলক্ষ্যা সেতুর উন্নয়ন হলে নারায়ণগঞ্জ শহর থেকে চাপ কমবে এবং বন্দর-সোনারগাঁওয়ে শিল্পায়ন করে বেকারত্ব দূর করে সুষ্ঠু সমাজ গঠন করা যাবে। এ সমস্ত বিষয়ে সুষ্ঠু মানসিকতার প্রয়োজন। যে সমস্ত জন প্রতিনিধিরা এই আবেদনে সুপারিশ করেছেন তারা অবশ্যই বিজ্ঞ এবং সুষ্ঠু ও উন্নয়ন করার মানসিকতার মানুষ। এ সমস্ত উক্তি করতে হলে যে কেউ আমার সাথে আলোচনায় বসতে পারে। আমি তাদেরকে আমার সাথে আলোচনায় বসার জন্য আহবান জানাচ্ছি। কেউ শান্তিরচরকে কোন পরিবারের নামে চায় নাই বা কোন জনপ্রতিনিধি কোন পরিবারের পক্ষেও সুপারিশ করে নাই।

বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও