সাত খুন : কিলিং মিশনের রুহুল তৃতীয় দফায় ৮ দিনের রিমান্ডে

|| নিউজনারায়ানগঞ্জ২৪.নেট ০১:০১ এএম, ১ জানুয়ারি ২০১৫ বৃহস্পতিবার

সাত খুন : কিলিং মিশনের রুহুল  তৃতীয় দফায় ৮ দিনের রিমান্ডে
নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের ঘটনায় অপহরণের পর চেতনানাশক স্প্রে ও পরে পলিথিন মুড়িয়ে শ্বাসরোধ করে কিলিং মিশনে থাকা গ্রেফতারকৃত র‌্যাব-১১ এর সাবেক ল্যান্স কর্পোরাল রুহুল আমিনকে তৃতীয় দফায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৮ দিনের দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। সোমবার  দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মনোয়ারা বেগমের আদালতে এ রিমান্ড শুনানী অনুষ্ঠিত হয়।   নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন জানান, সাত খুনে নিহত আইনজীবী চন্দন সরকারের মেয়ে জামাতা ডা. বিজয় কুমার পালের দায়েরকৃত মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে রুহুলকে আদালতে পাঠায় মামলার তদন্তকারী সংস্থা ডিবি পুলিশ। এর আগে নিহত প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটির দায়ের করা মামলায় রুহুলকে দুই দফায় রিমান্ডে নিয়েছিল পুলিশ। গত ৭ অক্টোবর পটুয়াখালীর বাউফল এলাকা থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছিল।   তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির ওসি মামুনুর রশিদ মন্ডল জানান, ২৭ এপ্রিল দুপুরে সাতজনকে অপহরণের পর তাদের মুখে চেতনানাশক ওষুধ স্প্রে করে অচেতন ও পরে পলিথিন মুড়িয়ে শ্বাসরোধ করার কাজে ছিলেন রুহুল আমিন। ইতোমধ্যে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়া র‌্যাব সদস্যরা এ তথ্য জানিয়েছেন।   গত ২৭ এপ্রিল নাসিকের প্যানেল মেয়র নজরুল, তার বন্ধু মনিরুজ্জামান স্বপন, তাজুল ইসলাম, লিটন, গাড়িচালক জাহাঙ্গীর আলম, আইনজীবী চন্দন কুমার সরকার ও তার গাড়িচালক ইব্রাহীম অপহৃত হন। পরে শীতলক্ষ্যা নদী থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় দুটি হত্যা মামলা করে নিহতের স্বজনরা।   ৭ খুনের মামলায় এ পর্যন্ত র‌্যাবের ১১ জন সদস্যসহ মোট ২৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপহরণ ও হত্যাকান্ডের বর্ণনা দিয়ে তিন র‌্যাব কর্মকর্তাসহ ১২ জন আদালতে দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। এছাড়াও ঘটনার সাক্ষী হিসেবে ১৪ জন আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন।

বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও