রিরোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্টের মানববন্ধন মিছিল

প্রেস বিজ্ঞপ্তি || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৮ পিএম, ১২ জুন ২০২১ শনিবার

রিরোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্টের মানববন্ধন মিছিল

প্রস্তাবিত বাজেট ২০২১-২২ সংশোধন করে ঝুঁকিপূর্ণ খাত রি-রোলিং ও স্টিল মিলের শ্রমিকসহ সকল ধরণের শ্রমিকের জন্য আর্মিরেটে রেশন, বিনামূল্যে চিকিৎসা, স্বল্পমূল্যে আবাসন, এবং এমপ্লয়মেন্ট ইনজুরি ও সার্বজনীন পেনশন স্কিম চালুর জন্য বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের দাবিতে রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার উদ্যোগে ১২ জুন বিকাল ৫ টায় ফতুল্লার পাগলা বাজারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

রি-রোলিং স্টিল মিলস্ শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি জামাল হোসেনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন রি-রোলিং স্টিল মিলস্ শ্রমিক ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, রি-রোলিং স্টিল মিলস্ শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক এস. এম. কাদির, শ্যামপুর-কদম শিল্পাঞ্চল শাখার সভাপতি আফজাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম, পাগলা শিল্পাঞ্চল শাখার সভাপতি গোলাম মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, গত ৩ জুন ২০২১, জাতীয় সংসদে ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকার বিশাল বাজেট উপস্থাপন করা হয়েছে। ৭.২ প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু করোনার ক্ষতি মোকাবিলায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমজীবী মানুষের জন্য কোন আশার আলো এই বাজেটে নেই। গবেষণায় এসেছে করোনার প্রথম ঢেউয়ে দেশে নতুন আড়াই কোটি লোক দরিদ্র হয়েছে। এরা সবাই শ্রমজীবী মানুষ। দ্বিতীয় ঢেউ এ সংখ্যা আরও বৃদ্ধি ঘটাবে। প্রত্যাশা ছিল শ্রমিকদের দীর্ঘ দিনের চাওয়া রেশন, আবাসন, বিনামূল্যে চিকিৎসা এটা করোনা মোকাবিলার এবারের বাজেটে অন্তত আসবে। কিন্তু বাজেটে মালিক ব্যাবসায়ীদের জন্য অনেক কর রেয়াত দেয়া হলেও ভ্যাটের আওতা বাড়ানো হয়েছে। বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস কেনার মধ্য দিয়ে ভ্যাট দেয় আমাদের সাধারণ মানুষ। ফলে বাজেটে ধনীরা সুবিধা পেলেও করোনায় সংকটগ্রস্ত সাধারণ মানুষের ব্যয় বৃদ্ধি পাবে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের শ্রমজীবীদের শ্রম-ঘামে উৎপাদন হয়, বৈদেশিক মূদ্রা আসে। সরকার দেশকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত করার স্বপ্ন দেখায়। করোনার বিপর্যয় থেকে শ্রমজীবীদের সুরক্ষা না দিতে পারলে দেশের কোন অগ্রগতি সম্ভব হবে না। আর করোনাকালের জীবনযাপন প্রক্রিয়া এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যেও মূল্য বৃদ্ধির কারণে শ্রমিকদের প্রকৃত মজুরি কমপক্ষে এক-তৃতীয়াংশ কমে গেছে। ফলে শ্রমিকদের জীবন মান মারাত্মক আকারে নিচে নেমে গেছে। এখন বাজেট অধিবেশন চলছে। শ্রমিকদের সুরক্ষা দিতে প্রস্তাবিত বাজেট সংশোধন করে শ্রমিকদের আর্মি রেটে রেশন, স্বলমূল্যে আবাসন, বিনা মূল্যে চিকিৎসা এবং এমপ্লয়মেন্ট ইনজুরি ও সর্বজনীন পেনসন স্কিমের জন্য বিশেষ বরাদ্দ দিতে হবে।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও