১৫ মিনিটের রাস্তায় ঘণ্টা পার ভোগান্তিতে যাত্রীরা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:৫৫ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ সোমবার

১৫ মিনিটের রাস্তায় ঘণ্টা পার ভোগান্তিতে যাত্রীরা

চাষাড়া থেকে পঞ্চবটি সড়কে যেখানে যাতায়াতে ১৫ থেকে ২০ মিনিট সময় লাগার কথা সেখানে প্রাায় এক ঘন্টা সময়ও বসে থাকতে হচ্ছে যাত্রীদের। এত নষ্ট হচ্ছে হাজারো মানুষের কর্মঘন্টা।

২৮ সেপ্টেম্বর সন্ধা সাড়ে ৬টা নাগাদ সরেজমিনে দেখা যায়, রোগীসহ দুটি অ্যাম্বুলেন্স এই জ্যামের মধ্যে আটকে আছে। গাড়ির কালো ধোঁয়ায় শিশুদের নাজেহাল অবস্থা। কোনো প্রকার ট্রাফিক নিয়ন্ত্রন না মেনে মালবাহী ট্রাকগুলো খেয়ালখুশি মতো লেনে দাঁড়িয়ে আছে। পুলিশ লাইন এলাকায় রাস্তার পাশে সংস্কারের কাজ করা হচ্ছে। যার কারণে রাস্তা আরও সরু হয়ে এসেছে। জ্যামের কারণে বিসিক এলাকার কর্মজীবি মানুষেরা পায়ে হেঁটেই গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন। ফলে নষ্ট হচ্ছে তাদের কর্মঘন্টা।

আরও দেখা যায়, পঞ্চবটির মোড়ে দুটি পেট্রোল পাম্প রয়েছে। যার সামনে অগোছালোভাবে বেশ কয়েকটি ট্রাক দাড় করিয়ে রাখা হয়েছে। যা অন্যান্য পরিবহনের স্বাভাবিক গতিতে বাধা দিচ্ছে।

জানা যায়, চাষাঢ়া-পঞ্চবটি যাতায়াতের এই সড়কে বড় বড় মালবাহী ট্রাক চলাচলের ফলে এই রাস্তায় অসংখ্য গর্ত তৈরি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই তলিয়ে যায় রাস্তাটি এবং তৈরি হয় আরও নতুন নতুন গর্ত। তবে সংস্কারের নামে মাঝে মধ্যে রাস্তায় খোড়াখুড়ি হলেও স্থায়ী সমাধান পায়নি এই পথে যাতায়াতকারি যাত্রীরা। এমনকি এই রুটে বেশিরভাগ সময় ট্রাফিক পুলিশ দেখতে পান না বলেও অভিযোগ করেন তারা। আর ট্রাফিক পুলিশ থাকলেও তারা ঠিক মতো দায়িত্বপালন করে না বলেও অভিযোগ যাত্রীদের।

যাত্রী মেহেদি হাসান সিলভী বিরক্তি প্রকাশ করে প্রতিবেদককে বলেন, ‘রাস্তার দুইপাশে প্রচুর অবৈধ স্থাপনা তৈরি হয়েছে। যার ফলে পানি চলাচলের পথও বন্ধ হয়েছে। এতে রাস্তায় পানি জমে পিচের ক্ষতি করছে। এবং যে পর্যন্ত এ রাস্তার পাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ না করা হবে সে পর্যন্ত এ রাস্তায় স্বাভাবিকভাবে চলাচলা অসম্ভব।’

রুপা মিত্র নামে এক নারী বলেন, ‘এই এলাকা শুধু নারায়ণগঞ্জের জন্য নয় বরং দেশের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল। বিসিকের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চলের যোগাযোগ সড়ক এমন তা কখনো কাম্য নয়।’

নারায়ণগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) সালেহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আজ এই রাস্তায় একটি গর্তে পরপর দুটি মালবাহী ট্রাকের ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। যার মধ্যে একটা আমরা সরাতে পেরেছি। তবে অপরটি এখনো সরাতে পারিনি। ফলে যতক্ষন না এ ট্রাক সরানো হবে ততক্ষন জ্যাম থাকবেই। তাছাড়া অন্যান্য সময়ে যে জ্যাম থাকে তার নানা কারণ রয়েছে। এই রাস্তায় অসংখ্য গর্ত রয়েছে।’



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও