কিস্তি চাওয়ায় ব্যাংক কর্মকর্তাকে মারধর

আড়াইহাজার করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৩৯ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ বৃহস্পতিবার

কিস্তি চাওয়ায় ব্যাংক কর্মকর্তাকে মারধর

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় এনআরবিসি ব্যাংক লিমিটেড থেকে ঋণ নিয়ে কিস্তি পরিশোধ না করে উল্টো কিস্তির টাকা চাওয়ায় ব্যাংক কর্মকর্তা ও তাঁর স্ত্রীকে মারধর করা হয়েছে। স্বর্ণের চেইন, নগদ টাকা লুট করা সহ আসবাবপত্র ভাঙচুর করে যাওয়ার সময় প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা।

অভিযুক্ত ব্যক্তি হলেন উপজেলার খাগকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলামের ভাই ছাত্রলীগ নেতা পরিচয়দানকারী সজিবুল ইসলাম সজিব ও তার মা তাছলিমা আক্তার। আর তাদের সহযোগি জাকির খান ও মুজাহিদ সহ অজ্ঞাত ৭ থেকে ৮ জন।

ভুক্তভোগীরা হলেন, ‘আড়াইহাজার উপজেলার লাসারদী দিঘীরপাড়া ছানাউল্লাহ মিয়ার ভাড়াটিয়া ও এনআরবিসি ব্যাংক লিমিটেড আড়াইহাজার শাখার ডেপুটি ম্যানেজার মো. মনিরুল ইসলাম ও তাঁর স্ত্রী মোসাম্মৎ আয়েশা বানু।

১৬ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে ভুক্তভোগী ব্যাংক কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম বাদী হয়ে আড়াইহাজার থানায় অভিযুক্তদের নাম উল্লেখ করে অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের বরাত দিয়ে মনিরুল ইসলাম জানান, ‘সজিব ও তাছলিমা আক্তার রেফারেন্স এবং যোগসাজসে জাকির খানের দুবাই প্লাজার ৪র্থ তলার ‘জাকির খান কম্পিউটার এন্ড ট্রেনিং সেন্টার’ নামে দোকানের ব্যবসা দেখাইয়া এরআরবিসি ব্যাংক লিমিটেডের আড়াইহাজার শাখা থেকে এক বছর আগে ৩ লাখ টাকা মাসিক কিস্তিতে ঋণ নেয়। প্রাথমিকভাবে সজিব ও তাছলিমা মাসিক কিস্তি প্রদান করে। কিন্তু ৪ থেকে ৫ মাসের কিস্তি বকেয়া রাখে। বিভিন্ন সময়ে তাদের কিস্তি প্রদান করার কথা বললে নানান তালবাহানা করে। গত ১৫ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১১টায় আমি (মনিরুল ইসলাম), ম্যানেজার কচি শিকদার, ক্রেডিট অফিসার আজাহারুল হক সহ জাকির খানের দোকানে যাই। বিগত কয়েক মাসের বকেয়া কিস্তি সহ চলতি মাসের কিস্তি চাইলে বাকবিতন্ডা হয়। ওইসময় উপস্থিত তাছলিমা ও জাকির দুইজন আমাদের অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। এসময় তাদের গালমন্দ করতে নিষেধ করলে তাছলিমা হুমকি দেয় মারধর করার। তখন সকলেই সেখান থেকে চলে আসি। কিন্তু রাত সাড়ে ৮টায় তাছলিমার নির্দেশে সজিব, জাকির ও মুজাহিদ সহ ৭ থেকে ৮ জন হকিষ্টিক, লোহার রড, ধারালো অস্ত্র নিয়ে আমার ভাড়া বাসায় হামলা চালায়। প্রথমে লাথি দিয়ে ঘরের দরজা ভেঙে সকালে লোনের টাকায় চাওয়ায় গালাগালি করতে থাকে। এতে নিষেধ করলেই এলোপাথাড়ি ভাবে আমাকে মারধর করে। এসময় আমাকে বাঁচাতে আসলে আমার স্ত্রীও তাদের মারধরে স্বীকার হয়। তাকে অশ্লীল ভাষায় কথা বলে এবং শ্লীলতাহানি করে। এসময় গলায় থাকা স্বর্নের চেইন,ঘরে থাকা নগদ ২০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। এসময় আমাদের ডাক চিৎকারে আশে পাশের লোকজন এগিয়ে আসলে তারা প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়।’

তিনি বলেন, ‘আমার চোখে আঘাত করা হয়েছে। আমার চোখ নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। আমার স্ত্রীকে শ্লীলতাহানি করা হয়েছে। আমি এর বিচার চাই।

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিচুর রহমান বলেন, ‘অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা মামলা নিয়েছি। আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে। দ্রুত তাদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও