কুমুদিনি শ্রমিকদের অর্থ খাদ্য সহায়তা দিলেন সেলিম ওসমান

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:১৯ পিএম, ৩০ জুন ২০২১ বুধবার

কুমুদিনি শ্রমিকদের অর্থ খাদ্য সহায়তা দিলেন সেলিম ওসমান

নারায়ণগঞ্জে প্রস্তাবিত ক্যান্সার হাসপাতাল নির্মাণের জন্য সেচ্ছায় জায়গা ছেড়ে দেওয়া কুমুদিনি ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের শ্রমিকদের নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। সেই সাথে ভবিষ্যতে তাদের জন্য কর্মসংস্থানে নারায়ণগঞ্জের ব্যবসায়ীরা সর্বাত্মক সহযোগীতা করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

বুধবার ৩০জুন বিকেল ৫টায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রুটের চাঁদমারী এলাকায় অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি কার্যালয়ে স্বেচ্ছায় জমি ছেড়ে দেওয়া ২০৭জন শ্রমিক পরিবারের মাঝে এ অর্থ ও খাদ্য সহযোগীতা বিতরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়।

প্রথম দিনে প্রায় ১২০জন শ্রমিক এ সহযোগীতা গ্রহণ করেছেন। বাকি যারা উপস্থিত হতে পারেনি তাদের বরাদ্দের অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ এর কার্যালয় থেকে সংগ্রহ করার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এমপি সেলিম ওসমানের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এ নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে প্রত্যেকের জন্য নগদ ৫ হাজার টাকা, ৫০ কেজি চাল, ১০ কেজি ডাল, ১০ কেজি আলু, ৩ কেজি পেয়াজ, ৫ কেজি আটা, ২ কেজি চিনি, ৪০০ গ্রাম গুড়ো দুধ, ২ কেজি লবন, ২০০ গ্রাম হলুদ গুড়া, ২০০ গ্রাম মরিচ গুড়া।

আলোচনা সভায় এমপি সেলিম ওসমান শ্রমিকদের সাথে খোলাখুলি আলোচনার জন্য তাদের সুযোগ করে দেন। তারা ভবিষ্যতে কর্মসংস্থানের জন্য কে কি করতে চান।

এ সময় তিনি বলেন, হাসপাতালের জন্য আপনারা স্বেচ্ছায় জমি ছেড়ে দিছেন এর জন্য আমি আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ। আমি কুমুদিনীর কাছে কাছে কৃতজ্ঞ তারা একটি হাসপাতাল করবেন। আমি প্রধানমন্ত্রী কাছে কৃতজ্ঞ উনি এশিয়ার মধ্যে এক থেকে তিন নাম্বার পজিশনের উন্নত মানের একটি হাসপাতাল নির্মাণের অনুমোদন দিয়েছেন। আপনাদের কাছে নারায়ণগঞ্জবাসী কৃতজ্ঞ। সেই সাথে আমি কুমুদিনীর কাছে অনুরোধ রাখবো আমরা দায়িত্ব নিয়ে জায়গা খালি করে দিয়েছি আপনারা হাসপাতাল নির্মাণ করবেন।

শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আইনের চেয়ারে বসে আইন অমান্য করলে সে দোষী। তাই আমাকে কঠোর হতে হয়েছে। আমাদেরকে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হয়। আমার প্রতি হয়তো আপনাদের অনেকের রাগ ক্ষোভ থাকতে পারে। কিন্তু আবার আমাকে মানবিক দিকটাও দেখতে হবে। তাই আমি মানবিক দিক থেকে আজকে আপনাদের জন্য কিছু সহযোগীতা নিয়ে আসছি যা দিয়ে অত্যন্ত আপনাদের ১৫দিন সংসার চলবে। এই সময়তে আপনারা ভবিষ্যতে কে কি কাজ করতে পারবেন তা চিন্তা করতে পারবেন। আপনারা কে কি করতে পারবেন তা লিখিত ভাবে নাম ঠিকানা সহ নারায়ণগঞ্জ চেম্বারের কাছে জমা দিবেন চেম্বারের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জের ব্যবসায়ী মহ আপনাদের পাশে দাড়াবে। আজকে আপনারা যে অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছেন বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আমার পরিবারও এমন পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়েছিল। মামলা, বাড়ি নিলাম, অত্যাচার হয়েছে তারপরও আমরা মাথানত করি নাই।

তিনি আরো বলেন, আমরা আপনাদের নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে বসে আলোচনার মাধ্যমে একটা ব্যবস্থা করতে চেয়ে ছিলাম। কিন্তু একটি মহল আপনাদেরকে বিভ্রান্ত করেছে। কেউ কেউ বলেছেন আপনাদের ১ লাখ টাকা করে পাইয়ে দিবে। এখনো বিভ্রান্ত করে যাচ্ছেন। আপনাদের ওখনে পাকিস্তানির সাইনবোর্ড লাগানো হয়েছিল। প্রকৃত অর্থে নারায়ণগঞ্জে পাকিস্তানি থাকার কোন সুযোগ নাই। পাকিস্তানি হলে থাকতো মোহাম্মদপুরে। যাদের পাকিস্তানি বলা তাদের জাতীয় পরিচয় পত্র রয়েছে, পাসপোর্ট রয়েছে তাহলে তারা পাকিস্তানি হয় কিভাবে। একটি মহল তাদেরকে পাকিস্তানি বানিয়ে রেখেছে নিজেদের স্বার্থে। আপনারা কোন দালালের কথায় বিভ্রান্ত হবেন না। আপনাদের দাদা বাবা এখানে থেকে কাজ করেছেন। নারায়ণগঞ্জ বলতে পাট কে চিনিয়েছেন। আপনারা নারায়ণগঞ্জকে সম্মানিত করেছেন।

নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহ আলম বলেন, এমপি সেলিম ওসমান একজন উদার মনের মানুষ। উনার কথা মত চললে আপনাদের ভাতের অভাব হবেনা। উনার জন্য দোয়া করবেন উনি যেন আরো ভাল কাজ করে নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য ভাল কিছু করে দিতে পারেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে দোয়া পাঠ করেন নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শরিফ উদ্দিন সবুজ।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, দৈনিক ডান্ডিবার্তা পত্রিকার সম্পাদক ও দৈনিক ইত্তেফাক এর জেলা প্রতিনিধি হাবিবুর রহমান বাদল, দৈনিক শীতলক্ষ্যা পত্রিকার সম্পাদক আরিফ আলম দিপু, বিকেএমইএ এর সহ সভাপতি (অর্থ) মোর্শেদ সারোয়ার সোহেল, ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকু সহ অন্যান্যরা।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও