আল্লাহর হুকুম হলে নির্বাচন করবো : মাসুদ

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৫৯ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০২০ শনিবার

আল্লাহর হুকুম হলে নির্বাচন করবো : মাসুদ

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে একাধিক প্রার্থীর নাম শোনা গেলেও প্রভাবশালী তিনজনকে নিয়ে নানা গুঞ্জন চলছে। প্রভাবশালী তিন প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহন করলে নির্বাচনের মাঠ ভিন্ন রুপ নিবে। আর নির্বাচনের মাঠ থাকবে আনন্দ উল্লাসের। তবে প্রভাবশালী তিন প্রার্থীর মধ্যে দুইজন আওয়ামী লীগের সমর্থন নিয়ে নির্বাচন করার আগ্রহ রয়েছে। আর একজন প্রার্থী নির্দলীয় ভাবে নির্বাচন করতে চায়।

এদিকে বিএনপি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন গতবার নির্বাচন করা অ্যাডভোকেট মাহমুদুল হক আলমগীর। দল মনোনয়ন দিলেই তিনি প্রার্থী হবেন। দলীয় সিদ্ধান্ত পালনে তিনি প্রস্তুত রয়েছেন।

এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান, সাবেক চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান লিটন, পঞ্চবটি গফুর মার্কেটের মালিক হাজী মাসুদ ভূইয়াকে নিয়ে নানা গুঞ্জন চলছে। তারা উভয়ে স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী। তাদেরকে নিয়ে জনগন আলাদা ভাবে চিন্তা ভাবনা করছে। আবার অনেকে চায় পরিবর্তন এবং নতুন মুখ। পরিবর্তন হলে জনগন সঠিক সেবা পাবে সেই প্রত্যাশা করেন এনায়েতনগরবাসী। এছাড়াও সাধারণ জনগনও চায় একজন সৎ ও যোগ্য ব্যক্তি চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হউক। যার মধ্যে নাই কোন অহঙ্কার, জনগনকে ভাল বেসে সেবা করবে এমন ব্যক্তিকে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চায়।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বর্তমান চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান এবারও নির্বাচন করবে। তবে তিনি এবারও স্থানীয় সাংসদ শামীম ওসমানের সমর্থন ও আশীর্বাদ নিয়ে দলীয় মনোনায়ন নির্বাচন করতে চায়। আর সাবেক চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান লিটন কোন দলীয় ব্যানার নিয়ে নির্বাচন করবে না। তিনি নির্দলীয় ভাবে নির্বাচন করতে চায়। মাসুদ জনগণের ভালোবাসা ও সমর্থন চায়। জনগনের যদি চায় এবং আল্লাহর হুকুম হলে জনগনের সেবায় নিয়োজিত হবে। তার কোন চাওয়া পাওয়া নাই, জনগনের সেবা করা তার মূল লক্ষ্য।

মাসুদ ভূইয়া জানান, জনগন চাইলে এবং আল্লাহর হুকুম হলে জনগনের সেবা করতে চাই। জানি না আমি মানুষ হিসাবে কেমন, আমার মনে কোন অহঙ্কার নাই। আল্লাহ আমাকে যতটুকু দিয়েছে তার থেকে জনগনের উপকার করার জন্য। কোনদিন চিন্তা করিনি নির্বাচন করবো। সামনে নির্বাচন, তাই সকাল হতে রাত পর্যন্ত আমাকে বিভিন্ন লোকজন ফোন করে নির্বাচন করতে উৎসাহ দিচ্ছেন এবং অনেকে অনুরোধ করছেন। তবে জনগন আমাকে চাইলে তাদের চাওয়া পূরনের চেষ্টা করবো। আর জনগনের ভোটে নির্বাচিত হলে নি:স্বার্থে মানুষের সেবা করে যাবো। আর অসমাপ্ত কাজ গুলো সমাপ্ত করবো ইনশায়াল্লাহ।

হাবিবুর রহমান লিটন এবার নির্বাচনে অংশগ্রহন করার ইচ্ছে পোষন করে জানান, কোন দলীয় সমর্থন নিয়ে নির্বাচন করতে চাই না। জনগনের সেবা করবো তাই জনগনের সমর্থন নিয়ে নির্বাচন করতে চাই। জনগনই আমার ভরসা। জনগনের সিদ্ধান্ত আমার সিদ্ধান্ত।

আসাদুজ্জামান জানান, জনগন ভোটে নির্বাচিত হয়ে জনগনের সেবা করে চলছি। আগামী নির্বাচন দলীয় মনোনয়ন নিয়ে এবারও নির্বাচনে অংশগ্রহন করবে। তবে আমার রাজনৈতিক নেতা ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ভাইয়ের সমর্থন নিয়ে নির্বাচন করতে চাই। এছাড়া জনগনের ভাল বাসা সমর্থন চাই। জনগনের ভোটে প্রত্যাশা এবার নির্বাচন করার ইচ্ছে পোষন করছে তিনি।

এ বিষয়ে অ্যাডভোকেট মাহমুদুল হক আলমগীর বলেন, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন পেয়ে চেয়ারম্যান পদে মাঠে নেমেছিলাম। ধানের শীষের মনোনয়ন পাওয়া অনেক ভাগ্যের ব্যাপার এবং বহু দিনের আশা আকাঙ্খা থাকে। কিন্তু গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেয়েও নিজের ভোট নিতে দিতে পারেনি। আমার পরিবারের সদস্যরাও ভোট দিতে পারেনি। আগে থেকেই আওয়ামী লীগের লোকজন কেন্দ্র দখল করে ভোট দিয়ে দিছিলেন।

তিনি আরও বলেন, এবারের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনেও দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমি প্রার্থী হবো। যদি সুষ্ঠু ভোট হয় তাহলে আমি নির্দ্বিধায় পাস করবো। এনায়েতনগরে বিএনপি অনেক শক্তিশালী। আমরা এনায়েতগনরের ৯ টি ওয়ার্ডেই ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন নিয়ে মিটিং করেছি। তারা সকলেই দলীয় মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে ঐক্যবদ্ধ। এখানে ৯টি ওয়ার্ডেই বিএনপির কমিটি রয়েছে। তারা সকলেই সক্রিয়। সুষ্ঠু ভোট হলে কেউ জয় ঠেকিয়ে রাখতে পারবে না।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও