দুই মুক্তিযোদ্ধা নাই

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৫৯ পিএম, ২৫ ডিসেম্বর ২০২০ শুক্রবার

দুই মুক্তিযোদ্ধা নাই

মহান স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষ্যে গঠিত কমিটিতে রাখা হয়নি নারায়ণগঞ্জের দুই মুক্তিযোদ্ধাকে। সেই সাথে এই দুইজন বিএনপির প্রভাবশালী নেতাও বটে। আর দুই নেতা হলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান। নারায়ণগঞ্জ বিএনপির রাজনীতিতে রয়েছে তাদের অনেক অবদান। কিন্তু স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন কমিটিতে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির অনেক নেতার স্থান হলেও সেই দুই মুক্তিযোদ্ধার স্থান হয়নি। যা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ে চলছে নানা সমালোচনা। নেতাকর্মীদের মধ্যে চলছে তীব্র নিন্দার ঝড়।

দলীয় সূত্র বলছে, মহান স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষ্যে ২৫টি কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশের জাতীয় দল বিএনপি। ২২ ডিসেম্বর গুলশান বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই কমিটিগুলো ঘোষণা করেন। আর এসকল কমিটির মধ্যে ঢাকা বিভাগ ওয়ারী সদস্য কমিটিতে নারায়ণগঞ্জের নেতারাও রয়েছেন।

যার সূত্র ধরে বিএনপির এই কমিটিতে রয়েছেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আবুল কালাম, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহ আলম ও বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মুস্তাফিজুর রহমান দিপুু ভূইয়া, মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট শাখাওয়াত হোসেন খান, জেলা বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি খন্দকার আবু জাফর, আজহারুল ইসলাম মান্নান ও মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টু।

ঢাকা বিভাগ ওয়ারী সদস্য কমিটিতে আহবায়ক হিসেবে রয়েছেন জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস এবং সদস্য সচিব হিসেবে রয়েছেন ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন।

আর এই কমিটিতে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের স্থান হলেও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কাজী মনিরুজ্জামানের স্থান হয়নি।

জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন নারায়ণগঞ্জ বিএনপির একজন প্রভাবশালী নেতা। নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে বিএনপি দলীয় প্রতিকে জয়লাভ করার যথেষ্ট পরিমাণ দক্ষতা রয়েছে তার। আগেও তিনি এই এলাকার সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তার সময়ে নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়া এলাকার বিজয় স্তম্ভ নির্মিত হয়েছিল। সেই সাথে শহরের মাসদাইর এলাকায় প্রতিরোধ স্তম্ভও নির্মিত হয়েছিল।

এবার সেই মুক্তিযোদ্ধা মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিনকেই মহান স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষ্যে গঠিত কমিটিতেই রাখা হয়নি।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কাজী মনিরুজ্জামানকেও মহান স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষ্যে গঠিত কমিটিতেই রাখা হয়নি। অথচ এই নেতা নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এর আগে তিনি জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক পদেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন। নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছিলেন। কিন্তু তাকে এবার মূল্যায়ণ করা হয়নি।

আর এসব বিষয় নিয়ে বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় এ কেমন মূল্যায়ণ। দলের ভিতরে বিভাজন সৃষ্টি করবে এই কমিটি। কেন্দ্রীয় নেতাদেরকে ভুল বোঝানো হয়েছে। মহান স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন কমিটি করা হয়েছে অথচ এখানে নারায়ণগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধাদেরকে রাখা হয়নি এটা খুবই দুঃখজনক ঘটনা।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও