বিপ্লবীর খেসারত দিলেন ভিপি রাজীব

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৩ পিএম, ১ জানুয়ারি ২০২১ শুক্রবার

বিপ্লবীর খেসারত দিলেন ভিপি রাজীব

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির গেল কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মাসুকুল ইসলাম রাজীব যাকে জেলায় আন্দোলন সংগ্রামের ক্ষেত্রে আপোষহীন ধরা হয় এবং রাজপথে দলীয় কর্মসূচীতে যার অবস্থান দেখা যায় তাকে বাদ দিয়ে জেলা বিএনপির ৪১ সদস্য বিশিষ্ট নবগঠিত আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। বিগত কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক পদে থাকা রাজীবকে দলের ভেতরে অসঙ্গতি নিয়ে কড়া প্রতিবাদ করতে দেখা গেছে।

এর আগে জেলা বিএনপির শীর্ষ পদে রাজীবের অবস্থান থাকবে বলে জেলা বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ধারণা করলেও অজ্ঞাত কারণে তাকে রাখা হয়নি কমিটিতে। গেল কমিটিতেও সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহমুদের সাথে রাজপথে কর্মসূচী পালন করতে একাধিকবাদ বাদানুবাদ হয় রাজীবের। কোন অলিগলিতে জেলা বিএনপির মত একটি জনবান্ধব সংগঠনের কর্মসূচী করতে অনীহা প্রকাশ করে রাজপথে প্রকাশ্যে নেতাকর্মীদের নিয়ে কর্মসূচী পালনের পক্ষে ছিলেন তিনি। এ কারণে জেলা বিএনপির সাবেক কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে বনিবনা হতনা তার। তাই অন্যরা না নামলেও নেতাকর্মীদের নিয়ে রাজপথে সক্রিয় থাকতেন রাজীব।

এছাড়া দলের পক্ষে কাজ না করে পদ নিয়ে বসে থাকার বিরুদ্ধে কথা বলা, নেতাকর্মীদের পক্ষে অবস্থান নেয়া, কমিটিতে ত্যাগীদের স্থান দেয়া নিয়েও সিনিয়রদের সাথে একাধিকবার বাদ সাধে তার। তিনি নিজে পদ পদবি পেয়ে দলীয় কর্মসূচী রাজপথে করতে নেতাকর্মীদের নিয়ে সব সময় প্রস্তুত থাকলেও এতে সম্মতি আসতোনা সভাপতি সম্পাদকদের।

শুক্রবার বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকারকে আহবায়ক করে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

১ জানুয়ারি কমিটির কাগজ তৈমুর আলম খন্দকারের হাতে তুলে দেন দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। এর আগে ৩১ ডিসেম্বর রাতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কমিটি অনুমোদন করেন।

৪১ সদস্যের কমিটির আহবায়ক করা হয়েছে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারকে যিনি এখন দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা। নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সেক্রেটারী ও সভাপতি পদেও ছিলেন তৈমূর। সদস্য সচিব করা হয়েছে সবশেষ কমিটির সেক্রেটারী অধ্যাপক মামুন মাহমুদকে যিনি জেলা যুবদলের দীর্ঘ বছর নেতৃত্ব দিয়েছেন।

তবে এ কমিটি নিয়েও উঠেছে চরম বিতর্ক। অভিযোগ রয়েছে দলের নিস্ক্রিয় নেতাদের জেলা বিএনপির শীর্ষ পদে পদায়িত করা হয়েছে।

বছরের প্রথম দিন ১ জানুয়ারি কমিটির কাগজ তৈমূর আলম খন্দকারের হাতে তুলে দেন দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। এর আগে ৩১ ডিসেম্বর রাতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কমিটি অনুমোদন করেন।

৭ জন যুগ্ম আহবায়করা হলেন মনিরুল ইসলাম রবি, নাছির উদ্দিন, আব্দুল হাই রাজু, লুৎফর রহমান আবদু, অ্যাডভোকেট মাহফুজুর রহমান হুমায়ুন, জাহিদ হাসান রোজেল, নজরুল ইসলাম পান্না মোল্লা।

সদস্যরা হলেন খন্দকার আবু জাফর, নজরুল ইসলাম টিটু, অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, শরীফ আহমেদ, মাহমুদুর রহমান সুমন, মোশারফ হোসেন, বশির উদ্দিন বাচ্চু, হাজী সেলিম, মোশারফ হোসেন (সোনারগাঁ), আশরাফুল হক রিপন, ওয়াহিদ বিন ইমতিয়াজ বকুল, রিয়াদ মোহাম্মদ চৌধুরী, হাবিবুর রহমান হাবু, দুলাল হোসেন, কাশেম ফকির, ইউসুফ আলী ভূঁইয়া, আব্দুল আজিজ মাস্টার, এম এ হালিম জুয়েল, গুলজার হোসেন, শাহ আলম হিরা, নুরুন্নাহার বেগম, একরামুল কবির মামুন, শাহ আলম মুকুল, মোস্তাকুর রহমান, রিয়াজুল ইসলাম, রহিমা শরীফ মায়া, রুহুল আমিন, কামরুজ্জামান মামুন, হামিদুল হক খান, বাকির হোসেন, আল মুজাহিদ মল্লিক, জুয়েল আহমেদ।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও