সভাপতি হলে ফিরবে গতি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:১৭ পিএম, ৩ মার্চ ২০২১ বুধবার

সভাপতি হলে ফিরবে গতি

নারায়ণগঞ্জ বিএনপির একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা হলেন বিএনপির চেয়ারপার্র্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে রয়েছে তার বিশাল কর্মীবাহিনী। তবে এরই মধ্যে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি থেকে তাকে মাইনাসের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু কেন্দ্রীয় নেতাদের অনুরোধমূলক নির্দেশনায় দলের ক্রান্তিলগ্নে তৈমূরকে আবার নারায়ণগঞ্জ বিএনপির দায়িত্ব নিতে হয়েছে। সেই সাথে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরাও আবারও সরব হয়ে উঠেছেন। আবারও নারায়ণগঞ্জের রাজপথ দখলে নেয়ার জন্য নতুন উদ্যমে জেগে উঠছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। গতি ফিরেছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে। আর সেই গতি ফেরানো অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারকেই এবার আগামী দিনের সভাপতি হিসেবে চান বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।

জানা যায়, গত ৩১ ডিসেম্বর রাতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ৪১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির ঘোষণা দেন। আর এতে আহবায়ক করা হয়েছে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারকে এবং সদস্য সচিব করা হয়েছে অধ্যাপক মামুন মাহমুদকে। আর এই আহবায়ক হওয়ার পর থেকেই অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের ফুলেল সিক্ত হন। সেই সাথে বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতারাও তাকে ফোন করে শুভেচ্ছা ও পাশে থেকে সহযোগিতা করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করছেন।

তারই ধারাবাহিকতায় গত ২০ জানুয়ারী রাজধানী ঢাকার কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সাথে ভিডিও কনফারেন্সে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির প্রথম মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার কার্যক্রম দুপুর ৩টা থেকে শুরু হয়ে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত চলে। আর এই সভায় নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির ৪জন সদস্য বাদে বাকী সকলেই উপস্থিত ছিলেন। সেই সাথে প্রায় সকলেই বক্তব্য রাখার সুযোগ পেয়েছেন। সকলের বক্তব্যই ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান মনযোগ সহকারে শুনেছেন এবং তারেক রহমানের বক্তব্যও জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির নেতারা খুব মনযোগ সহকারে শুনেছেন।

সভায় নেতাকর্মীদের বক্তব্যের বেশিরভাগ অংশই ছিল আহবায়ক অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারের প্রশংসা। বক্তব্য রাখতে গিয়ে সকলেই তৈমূর আলম খন্দকারের প্রতি আস্থা রেখে বলেছেন, তৈমূর আলম খন্দকার মাঠে আছেন বলেই আমরা হাজার হাজার লোক নামতে পারছি। তৈমূর আলম খন্দকার পুলিশের মার খেয়েও কোনোদিন মাঠ ছাড়ে নাই। আপনাকে (তারেক রহমান) ধন্যবাদ জানাচ্ছি তৈমূর আলম খন্দকারকে আবার আহবায়ক হিসেবে দায়িত্ব দেয়ার জন্য।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি হওয়ার পর থেকেই নেতাকর্মীদের মধ্যে যেন গণজোয়ার উঠেছে। বিএনপির নেতৃত্বে আসলেন আহবায়ক অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। তার নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা জেগে উঠেছেন। তারা নতুনরুপে ফিরে এসেছেন নারায়ণগঞ্জের রাজপথে। মনে হয় যেন এমন নেতৃত্বের অপেক্ষায়ই ছিলেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা।

সবশেষ মহান ভাষা দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে রেকর্ডগড়া শোডাউন করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি। অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করে দিয়ে এদিন তারা বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের বিশাল অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে নারায়ণগঞ্জের রাজপথে বিশাল শোডাউন করে চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণ করেছেন।

মহান ভাষা দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গত ২১ ফেব্রুয়ারী সকাল ১০ টা বাজার আগে থেকেই নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা নগর ভবনের সামনে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে জড়ো হন। এভাবে একের পর এক খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে জড়ো হতে হতে বিশাল জনসমাবেশে পরিণত হয় নগর ভবন এলাকা।

এরপর সেখান থেকে নারায়ণঘঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার ও সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদের নেতৃত্বে বিশাল মিছিল নিয়ে চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এসে শ্রদ্ধাঞ্জলী জ্ঞাপন করেন। সেই সাথে মিছিলে নেতাকর্মীদের স্লোগানে স্লোগানে প্রকম্পিত হয়ে উঠে নারায়ণগঞ্জ শহর।

এর আগের কয়েকটি কর্মসূচিতেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা সরব ভূমিকায় ছিলেন। তাদের কর্মসূচিগুলো লোকে লোকারণ্য হয়ে উঠেছে। যে বিএনপির আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের ভয়ে প্রেসক্লাবের গলি থেকে বের হতে পারতো না সেই বিএনপি নারায়ণগঞ্জের রাজপথে পুলিশের বাধা উপেক্ষা করেই একের পর এক কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছেন। আর তাই এসকল দিক বিবেচেনা করে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারকেই আগামী দিনের সভাপতি হিসেবে চান বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও