সারোয়ার উত্তরসূরিদের চমক

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৫৬ পিএম, ১৯ মার্চ ২০২১ শুক্রবার

সারোয়ার উত্তরসূরিদের চমক

নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে অন্যতম আলোচিত পরিবার হচ্ছে সারোয়ার পরিবার। এই পরিবারের সদস্যরা সবসময় নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের অন্যতম সহযোগি হিসেবে কাজ করে থাকেন। শামীম ওসমানের বিভিন্ন কর্মসূচিতে তারা সক্রিয় ভূমিকা পালন করে থাকেন। সেই সাথে নারায়ণগঞ্জবাসীরও বিভিন্ন সহযোগিতায় তারা এগিয়ে এসে থাকেন। দলীয় আন্দোলন সংগ্রামে সক্রিয় ভূমিকা পালন করে থাকেন। তারই ধারাবাহিকতায় এবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকীতে বিশাল আনন্দ র‌্যালী করে চমক দেখিয়েছেন সারোয়ারের উত্তরসূরিরা।

সূত্র বলছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকীকে ঘিরে আওয়ামী লীগ সহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। তারই অংশ হিসেবে গত কয়েকদিন ধরেই নারায়ণগঞ্জ শহরজুড়ে চলছে নানা আয়োজন। সেই তুলনায় পিছিয়ে নেই নারায়ণগঞ্জের সারোয়ার উত্তরসূরিরাও।

সারোয়ার পরিবারে সদস্য নারায়ণগঞ্জ শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়ার সাজনুর নেতৃত্বে ১৮ মার্চ বৃহস্পতিবার যুবলীগের নেতাকর্মীরা বিশাল র‌্যালী করে চমক দেখিয়ে দিয়েছেন। হাজার হাজার নেতাকর্মী সমর্থকদের সরব উপস্থিতিতে পুরো র‌্যালী জুড়ে ছিল এক উৎসবমুখর পরিবেশ। সেই সাথে ছিল বাদ্য বাজনা।

বিশাল দুই পতাকা এর মধ্যে একটি বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা ও যুবলীগের দলীয় পতাকা এবং সিনিয়র নেতাদের উপস্থিতি পুরো আনন্দ র‌্যালীকে আরও মর্যাদাপূর্ণ করে তুলে। র‌্যালীগের অগ্রভাগে ছিল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেখ রেহেনা সজীব ওয়াজেদ জয়ের ছবি সম্বলিত বিশাল ফেস্টুন। পাশাপাশি ছিল স্বাধীনতা যুদ্ধের বিভিন্ন স্থিরচিত্র।

বিকেল ৪ টায় শহরের চাষাঢ়া থেকে সাজনুর নেতৃত্ব বের হওয়া মিছিল প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে মন্ডলপাড়া ব্রীজ এলাকা হয়ে দুই নং রেল গেটস্থ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

বর্ণাঢ্য ওই আনন্দ র‌্যালীতে যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনুর সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়েছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ ও জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু হাসনাত মুহাম্মদ শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, মহানগর আওয়ামীলীগের সহসভাপতি রবিউল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, মহানগর সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো. জুয়েল হোসেন ও জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আজিজুর রহমান।

এর আগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণ ও কুষ্টিয়ায় ভাস্কর্য ভেঙ্গে দেয়ার ঘটনাতেও সক্রিয় ভূমিকায় সারোয়ার পরিবারের উত্তরসূরিরা। সেই সময়ে সারাদেশের মধ্যে অন্যতম আলোচিত বিষয় ছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণ ও কুষ্টিয়ায় ভাস্কর্য ভেঙ্গে দেয়ার ঘটনা। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ নিয়ে মামুনুল হক ও বাবুনগরীদের বিরুদ্ধে কটূক্তির অভিযোগ উঠে। আর এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের জ্যেষ্ঠ নায়েবে আমির সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীমের গ্রেপ্তারসহ সাত দফা দাবিতে ঢাকায় মুক্তিযুদ্ধের ব্যানারে অবরোধ কর্মসূচি পালিত হয়েছিল।

আর সেই অবরোধ কর্মসূচিতে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের ব্যাপক অংশগ্রহণ দেখা গিয়েছিল। সেখানে সারোয়ার পরিবারের অন্যতম সদস্য শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনু ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোঃ জুয়েল হোসেন নেতৃত্বে ছিলেন।

এরপর গত ২৯ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনের সড়কে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জ মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে মামববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। যেখানে জুয়েলের নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীদের ব্যাপক অংশ্রগণ দেখা যায়।

গত ৩০ নভেম্বর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জ শহরের ২নং রেলগেইট নারায়ণগঞ্জ শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনুর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ কর্মসূচি পালিত হয়। যেখানে সাজনুর নেতৃত্বে বিশাল কর্মসূচি পালিত হয়।

এদিকে গত ১ ডিসেম্বর মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে ধৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্য প্রদানকারীদের বিচার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। এই কর্মসূচিতেও উপস্থিত ছিলেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোঃ জুয়েল হোসেন।

একই সাথে ৬ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ শহর যুবলীগের উদ্যোগে কুষ্টিয়াতে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচি পালিত হয়। যে কর্মসূচিতে সারোয়ার পরিবারের সদস্য মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল ও শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনুর নেতৃত্বে ব্যাপক শোডাউন পরিলক্ষিত হয় শহরজুড়ে।

কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙ্গার প্রতিবাদে গত ৭ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু পাঠাগারের উদ্যোগে চাষাঢ়া শহীদ মিনারে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। যেখানে সারোয়ার পরিবারের মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনুর ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোঃ জুয়েল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

গত ৮ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে জেলা আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হয়। সেই কর্মসূচিতে মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোঃ জুয়েল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

সবশেষ ঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙ্গার প্রতিবাদে ১২ ডিসেম্বর ব্যাবসায়ীদের উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। সেই কর্মসূচিতেও শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনুর ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোঃ জুয়েল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

নেতাকর্মীদের সূত্র বলছে, ১৯৯৬ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আওয়ামীলীগের শাসনামলে শামীম ওসমানের ভরসার পাত্র ছিলেন সারোয়ার, মাকসুদ, লাল, নিয়াজুল, মিঠুরা। এর মধ্যে তৎকালেই ওসমান পরিবারের পাশাপাশি সারোয়ার পরিবারও ছিল রাজনীতিতে সক্রিয়। ১৯৯৬ হতে ২০০১ সাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকা সময়ে আলোচিত ছিলেন গোলাম সরোয়ার ও নুরুল আমিন মাকসুদ। এ দুইজনের মধ্যে গোলাম সারোয়ারকে ওই সময়ের ও বর্তমানের এমপি শামীম ওসমানের ডান হাত আর নুরুল আমিন মাকসুদকে বাম হাত হিসেবেই সবাই জানতো।

২০০১ সালের সংসদ নির্বাচনের পর গোলাম সারোয়ার চলে যান ভারতে। ২০০৮ সালের সংসদ নির্বাচনের পর গোলাম সারোয়ার চলে আসেন ঢাকাতে। পরে ওই বছরের ৩০ অক্টোবর তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান গোলাম সারোয়ার। বর্তমানে তার কর্মী বাহিনীকে ধরে রেখেছেন তার ভাই জাকিরুল আলম হেলাল, শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনু ও তাঁর ভাগ্নে মো. জুয়েল হোসেন। এদের মধ্যে জাকিরুল আলম হেলাল মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনু শহর যুবলীগের সভাপতি ও ভাগ্নে মো. জুয়েল হোসেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও