লঞ্চডুবির ঘটনায় ক্ষতিপূরণ চেয়ে তৈমূরের আইনী লড়াই

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:০৩ পিএম, ৬ এপ্রিল ২০২১ মঙ্গলবার

লঞ্চডুবির ঘটনায় ক্ষতিপূরণ চেয়ে তৈমূরের আইনী লড়াই

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে কোস্টার ট্যাংকারের ধাক্কায় অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যাওয়া ও ৩৪ জনের মৃত্যুর ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা ভাবছেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার।

৬ এপ্রিল মঙ্গলবার বিকেলে এক বিবৃতিতে তিনি এই তথ্য জানান। অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, দেখলেই চোখে পানি চলে আসে। এই যে দুর্ঘটনাগুলো হয় আজ পর্যন্ত একটি ঘটনারও বিচার হয়নি। তদন্ত কমিটি গঠন করা এই তদন্ত কমিটি একটি রিপোর্ট আজ পর্যন্ত বের হয়নি। কেউ জানেনা কোন কারণে এসকল ঘটনা ঘটে। সেই সাথে লঞ্চ দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সরকার থেকে যে সকল সতকর্তামূলক ব্যবস্থা নেয়া দরকার সেটাও নেয়া হয় না।

তিনি আরও বলেন, প্রতি বছরই একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। কাল দেখলাম মারা যাওয়ার সময়ই মা তার সন্তানকে কিভাবে আগলে রেখেছে। এগুলো দেখলে খুবই কষ্ট পাই। কিন্তু এই নিষ্ঠুরতা প্রতিরোধে সরকারের কোনো প্রস্তুতি নেই। তদন্ত কমিটি গঠন করার দরকার তারা করে। কিছুদিন আগে তল্লা মসজিদে যে ঘটনা ঘটলো এই ঘটনায় কি হলো। আমি হাইকোর্ট পর্যন্ত না আসলে ৫ লক্ষ টাকাও পেতো না। এবারও আমরা চিন্তা করছি লঞ্চডুবির ঘটনাতেও আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য। বিভিন্ন দেশের আইন কানুন ঘেটে দেখবো। যদি সম্ভব হয় আইনগত ব্যবস্থা নিব।

জানা যায়, গত ৪ এপ্রিল সন্ধায় নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে কোস্টার ট্যাংকারের ধাক্কায় অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে সাবিত আল হাসান নামে মুন্সিগঞ্জগামী একটি লঞ্চ ডুবে যায়। আর এই ঘটনায় সবশেষষ ৩৫ জনের মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ৫ এপ্রিল সোমবার দুপুরে লঞ্চটি উদ্ধারের পরে সেই লঞ্চের ভেতর থেকে যখন লাশগুলো উদ্ধার করা হয় তখন স্বজনদের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠে পরিবেশ। একে একে যখন লাশগুলো উদ্ধার করে তীরে নিয়ে আসছিল তখন কান্নায় ভেঙ্গে পড়ছিল স্বজনরা।

এর আগে ২০২০ সালের ৪ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার পশ্চিমতল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় মারা যাওয়া প্রত্যেক পরিবারের সদস্যদের জন্য ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেছিলেন অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। এরপর সরকারের পক্ষ থেকে প্রত্যেক পরিবারের জন্য ৫ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা হয়।

তৈমূরের গভীর শোক
প্রাণহানির ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার।

৬ এপ্রিল মঙ্গলবার বিকেলে এক বিবৃতিতে তিনি এই শোক প্রকাশ করেছেন। বিবৃতিকে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, আসলে এই ঘটনায় শোক জানানোর ভাষা আমি হারিয়ে ফেলেছি। শোক জানানোর ভাষা আমার নেই। প্রতিবারই এভাবে প্রাণ হারায় আর কর্তৃপক্ষ বরাবরই চুপ থেকে যায়। যাই হোক মহান আল্লাহর দরবারে নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।

তিনি আরও বলেন, এই ঘটনার আমি সুষ্ঠু বিচার চাই। প্রতিবারই অপরাধীরা পার পেয়ে যায়। তাদের কোনো বিচার হয় না। এবার যেন তারা রেহাই না পায়। ভবিষ্যতে যেন এরকম ঘটনা না ঘটে সরকার সেই পদক্ষেপ নিবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছি।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও