বাসা চেম্বারে বিএনপির কার্যালয়

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৩:০০ পিএম, ৯ জুন ২০২১ বুধবার

বাসা চেম্বারে বিএনপির কার্যালয়

আন্দোলন সংগ্রামের সূতিকাগার নারায়ণগঞ্জে তিন বছরেরর বেশি সময় ঘরে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম একটি রাজনৈতিক দল কার্যালয় ছাড়া চলছে। নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কার্যালয় নেই বছরের পর বছর। দীর্ঘ এ সময়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি ও মহানগর বিএনপি চলেছে নেতাদের ঘরোয়া বৈঠক ও ঘর থেকে নির্দেশনার মাধ্যমেই। নেতাকর্মীরা বিষয়টি এখন আর মানতে নারাজ।

দীর্ঘ এ সময়ে জেলা ও মহানগর বিএনপি নেয়নি কোনো অস্থায়ী কার্যালয়। জেলা বিএনপির বর্তমানে কোন কমিটি না থাকায় সকলেই দায় এগিয়ে যাচ্ছেন আর মহানগর বিএনপি শহরের কালিরবাজারে ফ্রেন্ডস মার্কেটে মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালামের অফিসে একটি অস্থায়ী কার্যালয় ঘোষণা করে সেখান থেকে দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করছে। সেটি বর্জন করে মূলধারা থেকে বেরিয়ে মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান নারায়ণগঞ্জ ক্লাব মার্কেটের তৃতীয় তলায় নিজস্ব কার্যালয়টি রাজনৈতিক কাজে ব্যবহার করছেন।

অপরদিকে জেলা বিএনপির কার্যালয় না থাকায় আগে সিদ্ধিরগঞ্জে একটি অফিসে দলের কার্যক্রম হতো। এখন আহবায়ক তৈমূর আলম খন্দকার নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে মাসদাইরে তার বাসভবন মজলুম মিলনায়তন ও রাজধানীতে তার ব্যক্তিগত চেম্বারকে কাজে লাগানো হচ্ছে।

২০১৭ সালের মার্চ মাসে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি কার্যালয়টি ভেঙে দেওয়া হয়। এর আগে আদালতে কার্যালয়টি না ভাঙতে মামলা করেছিল বিএনপি। সে মামলায় জয়ী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) কার্যালয়টি ভেঙে ফেলে।

মামলায় পরাজিত হয়ে উপায় না পেয়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা নাসিক মেয়র আইভীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে অস্থায়ী কার্যালয়ের জন্য বললে আইভী তাদের অস্থায়ী কার্যালয়ের জন্য স্থান দেখতে বলেন। তবে দীর্ঘ ৪ বছর পার হলেও সে স্থান ঠিক করতে পারেনি জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা। এমন অবস্থায় কার্যালয়হীন নেতাকর্মীরা নিজেদের বসার বা আলোচনার কোনো স্থান পাচ্ছেন না।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন জানায়, ২০১৩ সালের মার্চে জেলা বিএনপির কার্যালয় ও এর নিচতলায় অবস্থিত দোকান মালিকদের অনেক আগেই বলা হয়েছে সেখানে নয় তলাবিশিষ্ট মার্কেট ভবন করা হবে। এর মধ্যে এখানকার ভবনে নিচতলায় যেসব দোকান মালিকেরা রয়েছেন তাদের নতুন ভবনের নিচতলায় অনুরূপ আকৃতির দোকান দেওয়া হবে।

এছাড়া দ্বিতীয় তলায় থাকা জেলা বিএনপির কার্যালয়টিও অনুরূপ আকৃতির করে দেওয়া হবে। কারণ বিএনপি কার্যালয় ও দোকান মালিকেরা আগেই পজিশন কিনে নিয়েছেন। এ কারণেই তাদের কেনা পজিশনের আকৃতি অনুযায়ী নতুন ভবনে জায়গা দেওয়া হবে। চার তলার পর করা হবে আবাসিক ফ্ল্যাট।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও