মৃত্যুতেও থাকতে পারেনি সাবেক এমপি ও কাউন্সিলর ছেলে

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১১:৫৪ পিএম, ১৪ জুলাই ২০২১ বুধবার

মৃত্যুতেও থাকতে পারেনি সাবেক এমপি ও কাউন্সিলর ছেলে

রাজনৈতিক মামলার আসামীর হওয়ার কারণে স্ত্রীর জানাযায় অংশ নিতে পারেননি নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সাংসদ ও বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন। সেই সাথে তার দ্বিতীয় ছেলে ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর মুহাম্মদ সাদরিলও জানাযায় অংশ নিতে পারেননি।

জানা যায়, গত ২৮ মার্চ হেফাজতের ডাকা হরতালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড থেকে শিমরাইল মোড় সহিংসতার ঘটনায় র‌্যাব ও পুলিশ বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় পৃথক ছয়টি মামলা দায়ের করেন। মামলায় বিএনপির সাবেক এমপি গিয়াসউদ্দিন ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদসহ বিএনপি, জামায়াতের ১৩৬ জনকে এজহার নমীয়সহ অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে ৩ হাজার ২০০ জনকে। এই মামলার আসামী হিসেবে রয়েছেন গিয়াসউদ্দিনের ছেলে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর মুহাম্মদ সাদরিল।

এরই মধ্যে চিরতরে না ফেরার দেশে চলে গেলেন গিয়াসউদ্দিনের স্ত্রী তৌফিজা বেগম । গত ১২ জুলাই হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পরলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হলে ১৪ জুলাই সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পরেন।

বিকেলে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইলো এলাকায় বাদ আছর নামাজে জানাজা শেষে সিদ্ধিরগঞ্জ সাইলো রোড কবরস্থানে মরহুমার দাফন সম্পন্ন করা হয়। এসময় রাজনৈতিক অসংখ্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কিন্তু মামলার আসামী হওয়ার কারণে স্ত্রীর জানাযায় অংশ নিতে পারেননি গিয়াসউদ্দিন। সেই সাথে তার ছেলে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর মুহাম্মদ সাদরিলও জানাযায় অংশ নিতে পারেননি। যা নিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা অনেক কষ্ট পেয়েছেন। রাজনীতি করতে গিয়েই তাদের এই হয়রানীর শিকার হতে হচ্ছে। এই হয়রানীর শেষ কোথায় জানা নেই তাদের।

এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ও মহানগর মহিলা দলের যুগ্ম আহবায়ক আয়েশা আক্তার দিনা।

১৪ জুলাই বুধবার এক বিবৃতিতে শোক প্রকাশ করার পাশপাশি তিনি এই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। আয়েশা আক্তার দিনা বলেন, ‘‘চিরতরে না ফেরার দেশে চলে গেলেন গিয়াসউদ্দিন সাহেবের স্ত্রী। গত পরশু হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পরলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় কিন্তু আজ সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পরেন। কিন্তু কি নির্মমতা এই পরিবারটি আজ বয়ে বেড়াচ্ছেন। নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানার হেফাজতের মামলায় ফেরারী জীবন কাটাচ্ছেন সাংসদ গিয়াস ভাই ও তার ছেলেরা।’’

তিনি বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের সবাই জানে গিয়াস ভাই এর ছেলেরা কখনো কোন রাজনীতিতে ছিলেন না। তৃতীয় ছেলে রিফাত বিএনপির প্রোগ্রামগুলোতে অংশগ্রহণ করলেও তা কোন আত্মঘাতী বা কারোর জন্য ক্ষতির কারণ হয় বা দেশের জন্য সমস্যা তৈরি হয় এমন রাজনীতি করতেন না। গিয়াস ভাই এর চার ছেলে। কখনো কোন সন্তানকে দেখি নাই এমপির ছেলে বলে দাম্ভিকতা বা কখনো দেখিনাই কারো সাথে বেয়াদবি তো দূরের কথা কারো মনে সামান্য কষ্ট দিয়েও কখনো কথা বলে নাই। অথচ এই পরিবারটি ২০০৬ সালে বিএনপি সরকার ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে আজ অবধি এই সরকারের হামলা মামলা সহ নির্মম নির্যাতনের স্বীকার হয়ে আসছে।’

দিনা আরও বলেন ‘কয়েক মাস আগে হেফাজতের আন্দোলনে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা হয় সেই মামলায় গিয়াস ভাই সহ তার নিরীহ ছেলেদের নামেও মামলা দেওয়া হয়। তার দ্বিতীয় পুত্র সাদরিল নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এর কাউন্সিলর। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র হতে শুরু করে বর্তমান সরকারের এমপি পর্যন্ত জানে সাদরিল অত্যন্ত সহজ সরল একটি ছেলে। অথচ এই সাদরিলও নাশকতার মামলার আসামী। গিয়াস ভাই এর স্ত্রী কে দেখেছি কিভাবে স্বামী, সংসার, সন্তান, শ্বশুর শাশুড়ি, আত্মীয় স্বজনকে সেবাযতœ করতো। রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকে আপ্যায়ন করতো নিজের হাতে। যতবার তার বাসায় খেয়েছি ততবারই দেখেছি ভাবী নিজের হাতে রান্না করছে।’

এই নারী কাউন্সিলর বলেন, আজ গিয়াস ভাই তার প্রিয়তমা স্ত্রীর জানাজায় মিথ্যা মামলার ফেরারী আসামী হওয়ার কারণে অংশগ্রহণ করতে পারেননি। অংশগ্রহণ করতে পারেননি ভাবীর প্রিয় ছেলে কাউন্সিলর সাদরিল। জানিনা এই পরিবারটি এই নির্মম কষ্ট কিভাবে সহ্য করছে। তাদের বুকের ভিতর কতটা ঝড় বইছে তা একমাত্র আল্লাহ পাকই জানেন।

দিনা বলেন, ‘সব কিছুরই হিসাব একদিন দিতে হবে। এই নির্মমতার মুখোমুখি একদিন তাদের ও হতে হবে যারা আজ এই পরিবারটির সাথে করেছেন। কারণ আল্লাহ পাক ছাড় দেন কিন্তু ছেড়ে দেননা। আজকে আল্লাহ পাক এর দরবারে এর জন্য বিচার দিয়ে রাখলাম যেন আল্লাহ পাক প্রদত্ত ন্যায় বিচার আমরা দেখতে পাই। আল্লাহ পাক এই পরিবারটিকে স্বজন হারানোর শোক কাটিয়ে উঠার ধৈর্য দান করুক এই দোয়া করি।’


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও