দূরে থেকেও জনগণের কাছে খোরশেদ

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১১:৪৫ পিএম, ১৮ জুলাই ২০২১ রবিবার

দূরে থেকেও জনগণের কাছে খোরশেদ

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের একজন আলোচিত কাউন্সিলর হলেন ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। সব সময় তিনি নিজেকে জনগণের কল্যাণে নিয়োজিত রাখেন। বিশেষ করে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ চলাকালিন সময়ে মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ জনসেবার কারণে সারাবিশ্বব্যাপী আলোচিত ও প্রশংসিত হয়েছেন।

একজন নারীর মামলায় কাউন্সিলর খোরশেদ আত্মগোপনে থাকার পর থেকেই তার গঠিত টিম খোরশেদ সব ধরনের সেবা কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন। দাফন সৎকার থেকে শুরু করে ফ্রি অক্সিজেন সাপ্লাই পর্যন্ত চালিয়ে যাচ্ছেন। সেই সাথে তার আবেদনের প্রেক্ষিতে বিভিন্ন উন্নয়ন কাজও চলমান রয়েছে। সেই সূত্র ধরে দূরে থেকেও জনগনের কাছে রয়েছেন ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ শহরের অন্যতম একটি খাল ছিল কালিয়ানী খাল। এই খালটি দিয়ে একসময় স্বচ্ছ পানি প্রবাহমান থাকতো। সেই সাথে খালটির আশে পাশের মানুষ এই খাল থেকে অনেক মাছ শিকার করতে পারতেন। কিন্তু বর্তমানে সেই খালটি পুরোপুরিভাবে অবৈধভাবে দখল হয়ে গেছে। শিল্প কারখানার ক্যামিকেলের রং খালটির পানি নষ্ট করে ফেলছে। খালটির প্রবাহ নষ্ট করে ফেলছে।

খালটির প্রবাহ নষ্ট হয়ে যাওয়ার কারণে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের গলাচিপা, মাসদাইর ও আশপাশ এলাকা সহ ফতুল্লা এলাকাবাসীকে অনেকদিন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছিল। তাদের বাড়ি ঘর পানির নিচে পড়ে থাকতো। বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল তাদের জনজীবন। বর্ষাকাল শুরু হলেই যেন তাদের কপালে চিন্তার ভাজ পড়তো।

আর তাই এলাকাবাসীর দুর্ভোগ কমিয়ে আনতে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরশন কালিয়ানী খালের খনন কাজের উদ্যোগ নেন। সেই সাথে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তার গিয়ে দেখেন খালটি অবৈধভাবে দখল হয়ে রয়েছে। তবে সিটি কর্পোরেশন প্রতিবন্ধকতা উপেক্ষা করেই কালিয়ানী খালের খনন কাজ হাতে নিয়েছেন। গত কয়েকদিন ধরেই তাদের এই খনন কাজ চলমান রয়েছে।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ আফসানা আফরোজ বিভা জানিয়েছেন, আমাদের সিটি কর্পোরেশনের প্রচুর ড্রেনের কাজ হওয়ার কারণে শহরে তেমন জলাবদ্ধতা থাকে না। কিন্তু গলাচিপা ও মাসদাইর এলাকা সহ তার আশপাশ কয়েকটি এলাকার পানি নামে না। এর কারণ এই এলাকার পানি নামে কালিয়ানী খাল দিয়ে। জলাবদ্ধতা নিরসনে কালিয়ানী খালে এসে দেখলাম খালটি ভরাট হয়ে গেছে। সেই সাথে অবৈধ দখলদারিরা খালটিকে সংকীর্ণ করে ফেলেছে। আর তাই সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে খালটি খননের কাজ শুরু হয়েছে। যতদিনই লাগুক না কেন আমরা এই খালটি খনন কাজ শেষ করেই ছাড়বো।

কিন্তু এই খাল খননের জন্য সিটি কর্পোরেশনের কাছে প্রথম আবেদন জানিয়েছিলেন সিটি কর্পোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। তার একটি ঘনিষ্ট সূত্র জানায়, এই কালিয়ানি খাল দিয়ে আমাদের ওয়ার্ডের কয়েকটি এলাকার পানি নামে। আর তাই সবশেষ গত পাঁচ থেকে ছয় মাস আগেও ভেকুর জন্য আবেদন করেছিলেন খোরশেদ। তখন ভেকু দিয়ে পরিস্কার করতে গিয়ে দেখি ভাসমান ভেকুর প্রয়োজন। তখন ভাসমান ভেকুর জন্য মেয়রের কাছে আবেদন জানান খোরশেদ। আর সেই আবেদনের প্রেক্ষিতেই এখন ভাসমান ভেকু দিয়ে খাল খনন কাজ চলছে।

ওই সূত্রটি জানান, কয়েক বছর আগে সিটি কর্পোরেশনের তৎকালিন নির্বাহী কর্মকর্তা, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওই ইউনিয়ন পরিষদের সহ সংশ্লিষ্ট সকলেই একজোট হয়ে খাল পরিদর্শন করেছিলেন। এভাবে ধীরে ধীরে খাল খননটি কাজটি এগিয়ে আসতে আসতে বর্তমানে গুরুত্বসকারে কাজ শুরু হয়েছে।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের এই খাল খনন কাজকে স্বাগত জানিয়েছেন গলাচিপা ও মাসদাইর সহ আশপাশের লোকজন। কালিয়ানী খালটি ভরাট হয়ে যাওয়ার কারনে ওই এলাকার মানুষের ভোগান্তির শেষ ছিল না। খোরশেদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ও সিটি কর্পোরেশনের সদইচ্ছায় কাজটি শুরু হয়েছে। এতে করেই সকলেই উপকৃত হবে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও